মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৬:২৩ অপরাহ্ন

Notice :

চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় এমপিওভুক্ত হওয়ায় এমপি মিসবাহকে গণসংবর্ধনা

শহীদনূর আহমেদ ::
বিরোধী দলীয় হুইপ ও সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতিবিরোধী শুদ্ধি অভিযান সুনামগঞ্জেও হবে। যারা জনগণের সম্পদ আর সরকারি টাকা আত্মসাৎ করে বাড়ি-গাড়ির মালিক হয়েছেন; যারা দলের পদ-পদবী কাজে লাগিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে হঠাৎ আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছেন; প্রশাসকের ভূমিকায় থেকে যারা মানুষের মাথায় কাঁঠাল ভেঙে অর্থ-বিত্তের মালিক হয়েছেন – আমার দৃঢ় বিশ্বাস তাদেরকে এই শুদ্ধি অভিযানের আওতায় আনা হবে। আমরা দুর্নীতিবাজ, সন্ত্রাস, জঙ্গি, মাদকের বিরুদ্ধে। এদের কালো হাত ভেঙে দেয়ার সময় এসেছে। তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

সোমবার বিকেলে সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নে তাঁকে দেয়া গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় এমপিওভুক্তকরণে অবদান রাখায় এমপি অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহকে রঙ্গারচর ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে এই গণসংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদানের আগে এমপি মিসবাহ রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ও চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪তলাবিশিষ্ট একাডেমিক ভবন উদ্বোধন করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি মিসবাহ আরো বলেন, আমি ২০১৪ সালে নির্বাচনের পর বিদ্যালয়ে এক আলোচনা সভায় বলেছিলাম আমার নির্বাচনী এলাকায় একটি বিদ্যালয়ও যদি এমপিওভুক্তির আওতায় আসে সেটা হবে চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়। আমি আমার কথা রেখেছি। শিক্ষামন্ত্রীর কাছে বিশেষ ডিও লেটার পাঠিয়ে উপজেলার অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে এই বিদ্যালয়কে আমি এমপিওভুক্ত করেছি। সময়ের পরিক্রমায় বিদ্যালয়টিতে কলেজ শাখাও করা হবে।

বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় বিদ্যালয়ের ভূমিদাতা ও প্রতিষ্ঠাতা মরহুম আবুল কালাম আজাদকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এমপি মিসবাহ। তিনি বলেন, মরহুম আবুল কালাম আজাদ একজন প্রকৃত সমাজসেবী ছিলেন। তাঁর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তাছাড়া রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের জন্য তিনি নিজ ভূমি দান করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ও চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় ভূমিদাতা মরহুম আবুল কালাম আজাদের নামফলক উদ্বোধনকালে আমি আবেগ আপ্লুত হয়েছি। সমাজসেবায় মরহুম আবুল কালাম আজাদের অবদান ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে স্মরণীয় এবং অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।

সরকারের উন্নয়ন সম্পর্কে এমপি মিসবাহ বলেন, গত ৬ বছরের যে উন্নয়ন হয়েছে তা অতীতে কখনো হয়নি। অসংখ্য রাস্তাঘাট উন্নয়নের পাশাপাশি বিদ্যুতের আলোয় ঘর আলোকিত হয়েছে। শিক্ষার অবকাঠামোগত খাতে কয়েক’শ কোটি টাকার কাজ হয়েছে। ১০টি বিদ্যালয়ে বহুতল ভবন হয়েছে। আরো বহুতল ভবন নির্মাণের অনুমোদন হয়েছে। অসংখ্য ব্রিজ কালভার্ট নির্মাণ হয়েছে যা অতীতে কেউ কল্পনাও করেননি।
এমপি অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ আরো বলেন, ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জ সদর-বিশ্বম্ভরপুর আসনের ৯০ ভাগ এলাকা বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সদর উপজেলার শতভাগ এলাকা বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে।
তিনি বলেন, আপনারা প্রধানমন্ত্রীর জন্যে দোয়া করবেন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। সদর-বিশ্বম্ভরপুর এই মহাসড়কে যাত্রী।

চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আসকর আলী।
শিক্ষক আব্দুস শহীদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসমিন নাহার রুমা, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অশোক রঞ্জন পুরকায়স্থ, রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই, মোহনপুর ইউপি চেয়ারম্যান নূরুল হক, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি রশিদ আহমদ, সুনামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র মনির উদ্দিন মনির, রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ।

গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুলতানা আক্তার। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মরহুম আবুল কালাম আজাদের একমাত্র পুত্র আব্দুল্লাহ তাহমিদ সাইদ।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-প্রকৌশলী জসিম উদ্দিন, শিক্ষানুরাগী ও মরহুম আবুল কালাম আজাদ স্মৃতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবু সাইদ, শিক্ষানুরাগী সদস্য মমিনুল ইসলাম, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজু, রঙ্গারচর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি ফয়জুর রহমান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী