মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০১:০১ পূর্বাহ্ন

Notice :

সবাইকে দেশপ্রেমে আত্মনিয়োগ করতে হবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ::
জাতীয় সংগীত বাজছে মাইকে। সম্মানে আসন থেকে দাঁড়িয়ে ওঠে নিজেরাও জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ ধরলেন। পুরো জাতীয় সংগীত শেষ করে আবার আসনে বসলেন। পরে মঞ্চে এসেও মহান মুক্তিযোদ্ধা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করলেন।
এভাবেই ২৩ ডিসেম্বর বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বিশেষ অনুষ্ঠানে সঠিক মাপের স্ট্যান্ডসহ জাতীয় পতাকা, মুক্তিযুদ্ধ সংক্রান্ত বই উপহার গ্রহণ করেন সুনামগঞ্জ জেলার ২৭২টি কওমি ও আলিয়া মাদরাসার শিক্ষকরা। এ সময় মাদরাসা শিক্ষকরা একাত্তরে তিরিশ লাখ নিরীহ মানুষ হত্যা ও আড়াই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রম হরণের ঘটনায় পাকিস্তানিদের নিন্দা ও ঘৃণা জানান। হযরত মোহাম্মদ (সা.)-এর কাছ থেকে দেশপ্রেমের শিক্ষা নিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মাদরাসার শিক্ষকরা। ওই অনুষ্ঠানে মুজিববর্ষ উপলক্ষে স্যান্ডসহ সঠিক মাপের জাতীয় পতাকা প্রদানের সঙ্গে জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সঠিক মাপের জাতীয় পতাকা সরবরাহকাজ সম্পন্ন করে জেলা প্রশাসন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চ্যুয়ালি (জুম প্লাটফর্মে) যোগ দিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, অনেক ত্যাগ স্বীকার করে, অনেক মা বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এ দেশ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন হয়েছে। দল মত ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে দেশপ্রেমে আত্মনিয়োগ করতে হবে। তাহলেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়া সম্ভব।
তিনি আরও বলেন, জাতির পিতার প্রতি, জাতীয় পতাকার প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। একটি গোষ্ঠী চায়, বাংলাদেশ থেকে জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে, তাই তারা জাতির পিতার ভাস্কর্য ভাঙতে চায়। এদের প্রতিরোধ করতে হবে।
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, প্রধানমন্ত্রী সবার উন্নয়ন চান। তাই তিনি সবার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। জাতীয় চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতে জাতীয় পতাকার স্ট্যান্ড, জাতীয় পতাকা এবং বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই বিতরণের এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনার রিফাতুল হকের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের সচিব আমিনুল হক খান, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সচিব তপন কান্তি ঘোষ, সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মশিউর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইয়াসমিন নাহার রুমা, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ নির্বাহী কর্মকর্তা জেবুন নাহার শাম্মী, বিশ্বম্ভপুর নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাদিউর রহিম জাদীদ, দ্বীন-ই সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আলী নূর, মাওলানা আনোয়ার হোসাইন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু সুফিয়ান, সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, সাংবাদিক পংকজ কান্তি দে, হাওর উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি কাশ্মীর রেজা প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মাওলানা আনোয়ার হোসাইন বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম নিয়েছিলেন বলেই শোষক পাকিস্তানীদের কাছ থেকে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। এই স্বাধীনতা ধরে রাখতে আমরা ধর্ম-বর্ণ ভুলে সবাই দেশ গঠনের কাজে নিয়োজিত হবো। জাতির জনককে শ্রদ্ধা করেই আমাদের দেশকে এগিয়ে নিতে হবে।
হেফাজতে ইসলাম সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ও মদনিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল বছির বলেন, আমরা জাতির জনককে অশ্রদ্ধা করি না। তার ডাকে আমিও মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিতে বাড়ি থেকে পালিয়েছিলাম। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ট্রেনিং নিতে পারিনি। তাই মুক্তিযুদ্ধে যাওয়া হয়নি। তিনি বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে অস্বীকার করি না। তিনি বলেন, আমরা আজ স্বাধীন দেশের প্রতীক জাতীয় পতাকা উপহার পেয়ে ভালো লাগছে।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, মহান মুজিববর্ষ উপলক্ষে আজ ২৭২টি মাদরাসায় স্ট্যান্ডসহ সঠিক মাপের জাতীয় পতাকা প্রদানের মাধ্যমে জেলার সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা প্রদান করা সম্ভব হয়েছে। সকল মাধ্যমের শিক্ষাব্যবস্থার সংশ্লিষ্টরা সরকারের সহযোগী হিসেবে কাজ না করলে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী