1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৪:০৫ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

ভোটে-মাঠে কোথাও নেই জাপা

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৭ জুন, ২০২৪

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
মাঠে কিংবা উপজেলা পরিষদের ভোটে কোথাও নেই জাতীয় পার্টি (জাপা)। জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাপার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠেছে। সম্প্রতি সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ ও পুলিশের আইজিপি বেনজীর আহমেদের ঘটনায় দেশজুড়ে তোলপাড় হলেও নীরব জাতীয় পার্টি। তারা এই ইস্যুতে কথা বলছে না। কালেভদ্রে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বিভিন্ন ইস্যুতে গণমাধ্যমে বিবৃতি দেন। খোদ নেতারাই বলছেন জাতীয় নির্বাচনে তৈরি হওয়া অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণে জাতীয় পার্টি ব্র্যাকেটবন্দি হয়ে পড়েছে।
নেতৃত্বের দ্বন্দ্বে ভেঙে যাওয়া জাতীয় পার্টি ভোটের মাঠেও দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে দলটি তার ইতিহাসের সর্বনি¤œ ১১ আসন এবং ৪ শতাংশ ভোট পেয়েছে। সংসদে প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসলেও উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না কেউ। চার ধাপের নির্বাচনে উল্লেখ করার মতো জাপার কোনো প্রার্থী মাঠে ছিল না। অন্যদিকে গৃহবিবাদ তো পিছুই ছাড়ছে না। রওশন এরশাদ তার নিজের অনুসারীদের নিয়ে সম্মেলন করেছেন। কমিটির তালিকা নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়ে নিজেদের মূল জাতীয় পার্টি দাবি করছেন। তারা এখন নির্বাচন কমিশনের স্বীকৃতির অপেক্ষায়।
এখন দুজনকে বাদ দেওয়ার পর জাপার বনানী ও কাকরাইল কার্যালয়ে বসার মতো লোক নেই। দলীয় কার্যক্রম নেই বললেই চলে। রওশনপন্থিরা উদ্দেশ্যহীনভাবে কাজ করছে। সম্প্রতি তাদের হাঁকডাকও বন্ধ হয়ে গেছে।
জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক এমপি ফখরুল ইমাম গণমাধ্যমকে বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ব্যাপার যে, বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টি কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারছে না। আমরা পার্টির পলিসি নিয়ে কথা বলতে পারি না। এগুলো নিয়ে কথা বলবেন পার্টির মুখপাত্র মহাসচিব ও চেয়ারম্যান। আজিজ-বেনজীর ও এমপি আনার ইস্যুতে মুখ খোলা দরকার। জোরালো প্রতিবাদ ও আওয়াজ দরকার। জাতীয় পার্টি তা করতে পারছে না, কারণ জাতীয় নির্বাচনের পর পার্টির ভেতরের অবস্থা এখনও ঘোমট।
তিনি জানান, সর্বশেষ বর্ধিত সভার পর পার্টিতে কোনো বৈঠকই হয়নি। বিভিন্ন ইস্যুতে আগে প্রেসিডিয়ামের বৈঠক হতো। এখন তাও হচ্ছে না। পার্টি থেকে ডাকা হচ্ছে না। আমরাও কার্যালয়ে যাচ্ছি না।
আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক এমপি বলেন, আগের মেয়াদেও সংসদে বিরোধী দল হিসেবে জাপা জোরালো বক্তব্য দিয়েছে। এখন নানা রাজনৈতিক সমীকরণে পারছে না। সরকারও পাত্তা দিচ্ছে না জাপাকে। এত বড় বড় ইস্যু যাচ্ছে-না, পার্টি থেকে কোনো কথাবার্তা নেই। এগুলো নিয়ে হোমওয়ার্ক করা উচিত। এসব কারণে জনগণ আমাদের ক্রমেই দূরে ঠেলে দিচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, আমরা ভোটে নেই, আবার কিছু জায়গায় রয়েছি। উপজেলা নির্বাচনে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক পার্টির কেউ ভোট করছেন না-এটা ঠিক। আর বেনজীর-আজিজ ইস্যুতে আমরা সংসদে কথা বলব। চেয়ারম্যান জিএম কাদের, আমিসহ আমাদের দলের এমপিরা দুর্নীতি ও পাচারের বিষয়গুলো বারবার তুলে ধরেছি। এটা নিয়ে মাঠে আন্দোলন করার কিছু নেই। আমরা সঠিক তদন্ত চাই। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কাউকে দোষী বলা যাবে না।
সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা জিএম কাদের মনে করছেন, দুর্নীতি এখন স্বাভাবিক হয়ে গেছে। এগুলো নিয়ে আলোচনা করা যায়; কিন্তু করেও লাভ হয় না। সমাজের পরিবর্তন হয় না। সময়ের আলোকে জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, আমরা ন্যায়বিচারের সমাজ গঠন করতে পারিনি। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলার কথা ছিল। কিন্তু তা চলছে কই। জনগণ মনে করছে যারা অপরাধী ও যারা বিচার করবে তারা একই পথের পথিক। আজিজ আহমেদ-বেনজীর আহমেদের ঘটনা শেষ পর্যন্ত নাটকের পর্যায়ের চলে যায় কি না-শঙ্কা আছে।
জাতীয় পার্টির রওশনের অংশের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, জাতীয় পার্টি গৃহপালিত বিরোধী দল। তারা সংসদে ও বাইরে মাথা উঁচু করে কথা বলতে পারবে না। বললেও জনগণ তা গ্রহণ করবে না। সরকার তাদের পাত্তা দিচ্ছে না। এত দরকার নেই; বিরোধী দলের ১০ জন মুখই যথেষ্ট কথা বলার জন্য। ব্যারিস্টার সুমন যদি সবখানে কথা বলতে পারেন তা হলে জাতীয় পার্টির লোকজন পারছেন না কেন? তারা মুখে কুলুপ দিয়ে বসে আছেন।
আর মহাসচিব কাজী মামুনুর রশিদ বলেন, আমাদের এখন তেমন ব্যস্ততা নেই। একটু ব্যবসা-বাণিজ্যের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন সবাই। ঈদের পর পুরোদমে সাংগঠনিক ব্যস্ততা শুরু হবে। তৃণমূল থেকে কাজ শুরু করব। আমরাই জাতীয় পার্টির মূল। জাতীয় সম্মেলনের মাধ্যমে দলের নেতৃত্ব তৈরি হয়েছে। যা নির্বাচন কমিশনে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। আশা করি নির্বাচন কমিশন সঠিক সিদ্ধান্ত দেবে। উপজেলা নির্বাচন নিয়ে তারা ব্যস্ত। উপজেলা নির্বাচন শেষ হলে আমাদের বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশন বসবে। তিনি জানান, তাদের মনোনীত বেশ কয়েকজন প্রার্থী উপজেলা নির্বাচনে মাঠে রয়েছেন স্বতন্ত্র হিসেবে।
রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রাজনীতিবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক মুহাম্মদ ইয়াহইয়া আখতার বলেন, বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টির জোরালো ভূমিকা থাকা উচিত, কিন্তু নেই। বিষয়টি আমার কাছে অস্বাভাবিক নয় কারণ তাদের রাজনৈতিক চরিত্র ভিন্ন। মুখে এক, কাজে আরেক। জনগণ তাদের কাছে খুব একটা প্রত্যাশাও করে না।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com