1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৮:৪৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বিজয়ের অপেক্ষায় চপল-অভি

  • আপডেট সময় বুধবার, ৫ জুন, ২০২৪

বিশেষ প্রতিনিধি ::
নির্বাচনী মাঠ মাতিয়ে ও বেশিরভাগ ভোটারদের প্রতিশ্রুতি আদায় করে এখন বিজয়ের অপেক্ষায় আছেন জেলার তিন উপজেলার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। সদরে দ্বিতীয় বারের মতো বিজয়ের শেষ হাসি হাসতে প্রস্তুত খায়রুল হুদা চপল ও তার সমর্থকরা। শান্তিগঞ্জে উন্নয়নের রূপকার সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি’র পুত্র সাদাত মানান্ন অভিও ভোটারদের মন জয় করে বিজয়ের প্রহর গুণছেন। এছাড়াও মধ্যনগরে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী প্রবীর বিজয় তালুকদার ও সাইদুর রহমান বিজয়ের আশায় আছেন।
রাজনৈতিক বিশ্লেষক, সচেতন ভোটার ও সুধী মহলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ৬ষ্ঠ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে প্রশাসন কঠোর রয়েছে। কোনও পেশীশক্তিকে দাঁড়াতে দিবেনা প্রশাসন। যার ফলে ভোটাররা স্বস্তিতে তারা নিজেদের ভোট প্রয়োগ করতে পারবেন। সম্প্রতি তিন উপজেলার ৪৩ প্রার্থীদের সবাই শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রেখেই প্রচারণা শেষ করেছেন। কোনও প্রার্থীই হাঙ্গামা ও সংঘর্ষে জড়াননি। দুএকজন একে অন্যকে রাজনৈতিকভাবে ঘায়েল করে বক্তব্য দিলেও কেউ সীমা লঙ্ঘন করেননি। যার ফলে ভোটাররা স্বস্তিতে আছেন।
সচেতন ভোটাররা জানান, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় খায়রুল হুদা চপল গত ৫ বছর সততা ও আন্তরিকতায় দায়িত্ব পালন করেছেন। উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মানুষের সঙ্গে ছিল তার নিবিড় যোগাযোগ। তিনি সরকারি-বেসরকারি বরাদ্দের সুষম বণ্টনসহ ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দুর্যোগে, দুর্বিপাকে সহায়তা করেছেন। গ্রামে-গঞ্জে বিভিন্নমুখি উন্নয়ন করেছেন। যে কারণে তিনি ভোটারদের মধ্যে জনপ্রিয়। এবার তার প্রতীক মোটর সাইকেলের প্রচারণায়ও ভোটাররা তাকে অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়েছেন। তার সঙ্গে চেয়ারম্যান পদে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি অ্যাড. মণীষ কান্তি দে মিন্টু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফজলে রাব্বী স্মরণও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।
অপরদিকে, শান্তিগঞ্জে সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নানের ছেলে সাদাত মান্নান অভি নির্বাচনের মাঠে আসার পরই ভোটারদের মন জয় করেন বিনয় ও ব্যবহার দিয়ে। পিতার মাইলফলক উন্নয়নের কারণে তিনি প্রচারণায় শুরু থেকেই এগিয়ে। শেষ দিকে তার আনারস প্রতীকের অবস্থা আরো ভালো হয়েছে বলে মনে করেন সুধীজন। তিনি ও তার সমর্থকরাও বিজয়ের অপেক্ষায় আছেন। তবে তার সঙ্গে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজি আবুল কালাম।
মধ্যনগরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনারস প্রতীকের প্রার্থী প্রবীর বিজয় তালুকদার ও কাপ-পিরিচের প্রার্থী সাঈদুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বিতার দৌড়ে এগিয়ে আছেন। এই দুই প্রার্থীও বিজয়ের অপেক্ষায় রয়েছেন বলে জানান ভোটাররা।
রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জ সদর, শান্তিগঞ্জ ও মধ্যনগর উপজেলায় ৪৩ প্রার্থী ভোটযুদ্ধে আছেন। ১৬১টি ভোট কেন্দ্রের ভোটগ্রহণের সরঞ্জামসহ কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়েছে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রেই ২৫জনের মতো আইন কর্মকর্তা ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতিটি উপজেলায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিজিবি ও র‌্যাব দায়িত্ব পালন করবে। তিন উপজেলার ১ হাজার ৫৪টি ভোটকক্ষ রয়েছে। মোট ভোটার ৪ লাখ ৪৭ হাজার ৪১৮ জন।
রিটার্নিং কর্মকর্তা হোসাইন আল শাহীন বলেন, সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব প্রস্তুতি শেষ। প্রতিটি কেন্দ্রেই সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবাই প্রস্তুত রয়েছে। কেউ বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com