1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৩:১৮ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

‘হুঁশিয়ারি’ আমলে নিচ্ছেন না বিএনপি নেতারা

  • আপডেট সময় বুধবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২৪

স্টাফ রিপোর্টার ::
আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় উপজেলা নির্বাচনও বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে দলটি। তবে সুনামগঞ্জে দলটির ৮ জন নেতা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিতে ইতোমধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা নিজেদের ‘অস্তিত্বের’ লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত ভোটেযুদ্ধ থাকবেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়া প্রতিটি উপজেলাতে বিএনপি নেতারা ভোটের মাঠে তাদের সরব উপস্থিতি জানান দিবেন বলে জানাগেছে।
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে এ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন শাল্লা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গনেন্দ্র চন্দ্র সরকার, দিরাই উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক স¤পাদক গোলাপ মিয়া, জামালগঞ্জ উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি নূরুল হক আফিন্দী, তাহিরপুর উপজেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি আবুল কাশেম, উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি বুরহান উদ্দিন, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মো. হারুন অর রশিদ, বিএনপি নেতা মোহন মিয়া বাচ্চু, ধর্মপাশা উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম চৌধুরী। চেয়ারম্যান পদ ছাড়াও বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল নেতাকর্মীসহ ভাইস চেয়ারম্যান পদেও ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়ার লক্ষ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তাছাড়া ছাতক, দোয়ারাবাজার, শান্তিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ সদর, মধ্যনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে বিএনপি নেতারা তাদের উপস্থিতি জানান দেবেন বলে জানাগেছে।
উপজেলা পরিষদের ভোটে এ পর্যন্ত মনোনয়ন জমা দেওয়া বিএনপি নেতাদের সাথে কথা হলে তারা জানান, এবার উপজেলা নির্বাচন দলীয় প্রতীকে হচ্ছে না। আওয়ামী লীগের নেতারাও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। তাই মনোনয়নপত্র দাখিল করা হয়েছে। তারা বলেন, রাজনীতি হচ্ছে জনগণের জন্য আর জনগণের জন্য কাজ করতে ভোটে অংশগ্রহণ ছাড়া বিকল্প নেই।
এবিষয়ে শাল্লা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি গনেন্দ্র চন্দ্র সরকার বলেন, পূর্বেও আমি উপজেলা নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছি। এবছর তৃণমূল বিএনপি শাল্লায় উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী। কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মানতে চাইছেন না তারা। তাদের আগ্রহের কারণেই আমি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। এক্ষেত্রে দল থেকে বহিষ্কার করলেও আমার আপত্তি নেই। নির্বাচিত হলে দল ঠিকই আমাকে ফিরিয়ে নিবে। অতীতেও সুনামগঞ্জ জেলায় এমন হয়েছে। আমার বিশ্বাস- আমি বিজয়ী হবো। আমার সমাজের ১৭ হাজার ভোটার আছে। তাদের ভোট এবছর আমি পাবো। এসব ভোট পূর্বে আমার ছিলো না। তাছাড়া আ.লীগের গ্রুপিং দ্বন্দ্ব আছে উপজেলায়। এই সুযোগটাই নিতে চাই। কারণ, নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। তৃণমূল কর্মীরা যাতে নিরুৎসাহিত না হয়, সেদিক বিবেচনায় নিয়েই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বলে জানান তিনি।
এদিকে দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে দলের কেউ নির্বাচনে অংশ নিলে তার বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা। বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানান, যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে বলা হয়েছে। আশা করি, সবাই প্রত্যাহার করবেন। কেউ যদি দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে নির্বাচন করেন তা হলে দল তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া নেতাদের সঙ্গে আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে কথা বলছি, বিভাগীয় সাংগঠনিক স¤পাদক এবং জেলার নেতারাও কথা বলছেন, যাতে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে ফেলেন। অনেকের সাড়া পাওয়া গেছে। আশা করি, অধিকাংশই প্রত্যাহার করে নেবেন। আর না করলে দল তো নিশ্চয়ই একটা সিদ্ধান্ত নেবেই।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com