1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বিমান থেকে পড়া সাহায্যের দিকে তাকিয়ে আছে গাজাবাসী

  • আপডেট সময় রবিবার, ৩১ মার্চ, ২০২৪

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
গাজা থেকে এক হাজার মাইল পূর্বে কাতারের আল-উদেইদ বিমানঘাঁটি থেকে সাহায্যের জন্য বড় বড় কাঠের বাক্সগুলো মার্কিন সামরিক পরিবহণ বিমানে তুলছে ক্রুরা। ক্ষুধার্ত গাজাবাসীদের মাঝে বিতরণের জন্য বড় বড় বাক্সের অন্তত ৮০ টি প্যালেট বিমানে তোলা হয়। প্যরাসুটের মাধ্যমে নিচে ফেলা এসব ত্রাণের দিকেই এখন তাকিয়ে আছে গাজাবাসী। শনিবার (৩০ মার্চ) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।
চলতি সপ্তাহেই ফ্রান্স, জার্মানি, জর্ডান, মিসর ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাহায্য নিয়ে দুইটি ত্রাণভর্তি বিমান পরিচালনা করা হয়েছে। এটি ছিল মার্কিন বাহিনীর ১৮ তম মিশন। অন্তত ৪০ হাজার প্রস্তুত-খাবারের প্যাকেট ছোট ছোট বাক্সে ভরা হয়। সেগুলোকে আবার একটি কাঠের বড় বাক্সে ভরে প্যারাসুটের মাধ্যমে নিচে ফেলা হয়।
চলতি সপ্তাহের শুরুতে সমুদ্রে পড়ে যাওয়া খাবারভর্তি বাক্স উদ্ধার করতে গিয়ে ডুবে মারা গেছে অন্তত ১২ জন। খাবার প্যাকেট নিতে গিয়ে হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে মারা গেছে আরও ৬ জন।
হতাহতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হামাস এগুলোকে অকেজো বলে উল্লেখ করেছে। প্যারাসুট থেকে ফেলা ত্রাণের বড় বড় বাক্সকে ক্ষুধার্ত বেসামরিক নাগরিকদের জন্য সত্যিকারের বিপদ বলে অভিহিত করেছে তারা। সেই সাথে প্যারাসুট থেকে ত্রাণ বিতরণ বন্ধের দাবিও জানিয়েছে হামাস। তবে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গাজাবাসীদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ এখন এক জটিল, ঝুঁকিপূর্ণ ও ব্যয়বহুল কাজ।
মিশনের কমান্ডার মেজর বুন বলেছেন, প্যারাসুটের মাধ্যমে খুবই সাবধানে খাবার ভর্তি কাঠের বাক্স সমুদ্রের পাড়ে ফেলার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু বিমানের শব্দ শুনেই লোকজন ভিড় করতে থাকে আর হুড়োহুড়ি শুরু হয়ে যায়। চেষ্টা করা হয় প্যারাসুটগুলো যাতে গাজার উপকূলে নিরাপদ ও খোলা জায়গায় নামানো হয়। কিন্তু বিমানের শব্দে নিচে ভিড় জমে গেলে সবসময় তা সম্ভব হয় না। তাছাড়া সাহায্যের প্যাকেটগুলো ক্ষুধার্ত মানুষের তুলনায় অতি নগণ্য যা এক বালতিতে এক ফোটা পানির মতো বলে উল্লেখ করেছেন মার্কিন বিমান বাহিনীর মুখপাত্র মেজর রায়ান ডিক্যা¤প। তাই বিমানের শব্দ শুনলেই লোকজন সেদিকে ছুটতে থাকে বলেও জানিয়েছেন তিনি। গাজার উত্তরাঞ্চলের ক্ষুধার্ত হাজার হাজার লোকজন তাই বিমান থেকে ফেলা প্যারাসুটের জন্যই এখন আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com