1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

কোন প্রার্থীই আমাদের কাছে ‘হেভিওয়েট, লাইট ওয়েট’ না, সবাই সমান : ইসি আনিছুর রহমান

  • আপডেট সময় সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার ::
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ট্রেন অনেক দূর চলে গেছে, আটকানো সম্ভব না বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান। তিনি বলেন, বিএনপি এখন নির্বাচনে আসার আর কোন সুযোগ নেই, আমরা তিনজন কমিশনার মুখে ফেনা উঠিয়ে ফেলেছিলাম প্রত্যাহারের আগে এবং প্রতীক বরাদ্দে আগ পর্যন্ত আমরা বলেছিলাম তখন পর্যন্ত সুযোগ ছিল। সেজন্য তারা যদি নির্বাচনে আসে তাহলে পুনঃতফসিলের সুযোগ ছিল কিন্তু এখন আর সুযোগ নেই, নির্বাচনের ট্রেন অনেক দূরে চলে গেছে, এ ট্রেনকে আটকানোর আর কোন সুযোগ নেই। আইনী জটিলতায় পরে যাব যদি আমরা এ সংক্রান্ত কিছু বলি বা করি, এখন সেটি তার স্টেশনে গিয়ে পৌঁছাবেই।
রোববার দুপুরে সুনামগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমির হাসন রাজা মিলনায়তনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রার্থীরাসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বিশেষ আইনশৃঙ্খলা ও মতবিনিময় সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন তিনি।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের ছোট ভাই আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ এবং নির্বাচন কমিশনের সাবেক সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিক কোন রকমের আলাদা সুযোগ-সুবিধা পাবেন না জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান বলেন, পুলিশ প্রধানের ভাই হোক বা যে কেউ হোক, তাদের কোন আলাদা সুযোগ দেওয়া হবে না। প্রার্থীকে ভোটে জয়ী হয়েই আসতে হবে।
এখন নির্বাচন পরিবেশ ভালো আছে জানিয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান বলেন, এখন পর্যন্ত জাতীয় নির্বাচনের পরিবেশ ভালো রয়েছে। দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। সেগুলো আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। আর যেন এরকম ঘটনা না ঘটে, সেজন্য সতর্ক অবস্থানে দেখা হবে।
নির্বাচনে বিদেশিদের চাপ নেই জানিয়েছে ইসি আনিছুর রহমান বলেন, নির্বাচন নিয়ে বিদেশি কোন চাপ নেই। বহু বিদেশি আমাদের কাছে আসছে। তারা আমাদের প্রস্তুতি কি, আমরা কি কি করতে চাই, সেগুলো জেনেছে। আমরা কারোর চাপের মধ্যেই নাই। আমরা আমাদের নিজস্ব চাপের মধ্যেই আছি। এবার বিপুল সংখ্যক পর্যবেক্ষক আসছেন দেশগুলোর দূতাবাস, বিভিন্ন দেশ এবং সংস্থার লোকেরা আমাদের কাছে সময় বাড়ানোর কথা বলেছেন আমরা বাড়িয়েছি। এখন তারা লিস্ট পাঠিয়েছেন। এই লিস্টটি পর্যালোচনা করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তাদের ভিসা দেয়া হবে। এখানে অধিকাংশ পর্যবেক্ষককেই অন এরাইভাল ভিসা দেয়া হবে এবং তাদের নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। ২ হাজারের উপরে দেশি পর্যবেক্ষকের আবেদন এসেছে সেগুলো যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। সেজন্য আমাদের চোখে নির্বাচন ভালো বললে হবে না, আন্তর্জাতিক দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষকরা দেখে বলতে হবে। এছাড়া আমেরিকার যে কথাটি বলা হয়েছে আমেরিকার দূতাবাস থেকে বিশাল একটি লিস্ট দিয়েছে, তারা পর্যবেক্ষণ করবে তাদের মতো করে।
নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান বলেন, যদি কোথাও লেভেল প্লেইং ফিল্ড না থাকে তাহলে ভোট হবেনা। ভোটের কার্যক্রম চলবেনা। সেখানে যখন লেভেল প্লেইং ফিল্ড হবে তখন ভোট নেব। তিনি আরো বলেন, কোন প্রার্থীই আমাদের কাছে ‘হেভিওয়েট, লাইট ওয়েট’ না। সব প্রার্থীই আমাদের কাছে সমান।
ইসি আনিছুর রহমান আরো বলেন, নির্বাচনে কত পার্সেন্ট ভোট কাস্ট হলে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য বলা যায় আইনে সেটা কোথাও লেখা নাই। ভোটার যত পার্সেন্টই হোকনা কেন আমরা ফলাফল সেটাই দিবো। এর আগেও আমরা এভাবে রেজাল্ট দিয়েছি।
বিএনপি ভোট বর্জনের লিফলেট বিতরণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একটি পক্ষ ভোটে অংশগ্রহণ করেনি। ভোটে অংশগ্রহণ না করার অধিকার তাদের আছে। কিন্তু ভোটারদের ভোট দিতে বাধা দেওয়া, ভোট কেন্দ্রে আসা যাওয়ায় বাধার অধিকার তাদের নেই। আইনে পরিষ্কার বলা আছে এধরনের কাজ অপরাধ। আইনে অপরাধের শাস্তির কথাও পরিষ্কারভাবে বলা আছে। এধরনের অপরাধমূলক কাজ হলে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমাদের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ইতোমধ্যে বিভিন্ন জেলায় ব্যবস্থাও নিচ্ছে। তিনি বলেন, যারা বলছে পাতানো নির্বাচন হবে, তারা অহেতুক বলছে। কারণ আমরা এক বছর দশমাস ধরে আছি। কোনও দলীয় চাপ অনুভব করছিনা। আমরা আমাদের মতো স্বাধীনভাবে কাজ করছি। নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ করাই আমাদের প্রধান কাজ।
সুনামগঞ্জের সকল প্রার্থীদের প্রশংসা করে তিনি বলেন, সুনামগঞ্জের প্রার্থীদের মধ্যে সদ্ভাব বজায় রয়েছে। তাদের মধ্যে সুন্দর পরিবেশ আছে। তারা আমাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন শ্রদ্ধাবোধ, সহমর্মিতা ও সহযোগিতা অব্যাহত রাখবেন।
সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাশেদ ইকবাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশেষ আলোচনা সভায় প্রার্থীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ-৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মুহিবুর রহমান মানিক এমপি, সুনামগঞ্জ-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি, এই আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. মোহাম্মদ সাদিক, সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী এডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এমপি, সুনামগঞ্জ-১ আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী সেলিম আহমেদ প্রমুখ।
সভায় জাতীয় পার্টি প্রার্থী এডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. মোহাম্মদ সাদিকের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গসহ নানা অভিযোগ আনেন। এছাড়াও সুনামগঞ্জ-২ আসনের স্বতন্ত্রপ্রার্থী ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপিও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রভাববিস্তারসহ আইন নির্বাচনে কারচুপির আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান প্রার্থীদেরকে লিখিতভাবে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানানোর জন্য বলেছেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার আহমেদ সিদ্দিক, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি শাহ মিজান শফিউর রহমান, জেলা প্রশাসক রাশেদ ইকবাল চৌধুরী, সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ এহসান শাহ প্রমুখ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com