1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৫৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

ভারতের অগ্রাধিকারের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম : প্রণয় ভার্মা

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২৩

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
ভারতের অগ্রাধিকার তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা। তিনি বলেছেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্রকে সহায়তায় অগ্রাধিকার দেওয়া ভারতের নীতি। প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ভারতের অগ্রাধিকারের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম। ভারত বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগিতায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
বৃহ¯পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) সকালে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস স্মরণে ‘মিট দ্য সোসাইটি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। রাজধানীর বনানীতে অবস্থিত ঢাকা গ্যালারির মিলনায়তনে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে সম্প্রীতি বাংলাদেশ।
পারস্পরিক সহযোগিতায় উন্নত ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে ভারত ও বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে একসঙ্গে কাজ করছে উল্লেখ করে প্রণয় ভার্মা বলেন, এর ফলশ্রুতিতে দুই দেশের অগ্রগতি ক্রমশ বিকাশমান। ভারত-বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নিয়ে দুই দেশের নেতাদের রয়েছে দৃঢ় অঙ্গীকারবদ্ধ।
বাংলাদেশ ভারতের সবচেয়ে বিশ্বস্ত অংশীদার বলে মন্তব্য করে প্রণয় ভার্মা বলেন, সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্বের দীর্ঘ পথ চলায় বাংলাদেশ ও ভারত আজ বিশ্বে উদীয়মান অর্থনীতির দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। বিশ্বজুড়ে নন্দিত হয়েছে বাংলাদেশের উন্নতি ও অর্জন।
ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, মহামারি, সন্ত্রাস এবং জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় ভারত ও বাংলাদেশ বিশ্ব মঞ্চে একত্রে কাজ করেছে। জাতীয় উন্নয়নের মাধ্যমে আমরা দুইদেশের অর্থনীতি, সমাজ ও জনগণের মধ্যে সুদৃঢ় যোগসূত্র স্থাপন করতে চাই।
শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস শোকের দিন, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ বৃথা যায়নি, সার্বভৌমত্ব অর্জনের পর থেকে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য ৫২ বছর আগে তাদের অকুতোভয় আত্মত্যাগ চির অমর হয়ে থাকবে।
সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আলোচক হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শহীদ জায়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্ত ও পদ্মশ্রী ভূষিত লে. কর্নেল কাজী সাজ্জাদ আলী জহির (অব.) বীর প্রতীক, শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আলী শিকদার (অব.)।
সম্প্রীতির বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতার ঠাঁই নেই উল্লেখ করে পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ শুধু একটি ইতিহাস নয়, এটি একটি মহাকাব্য। এই মহাকাব্যকে আমাদের ধারণ করতে হবে। দুর্ভাগ্য আমাদের এই কাজটি আমরা খুব কম করেছি। আমরা কিছু বই লিখেছি, কিছু স্মৃতিকথা লিখেছি, সেসব স্মৃতিকথায় অনেক ভুল-ভ্রান্তি আছে আমরা জানি। কিছু চলচ্চিত্র যুক্ত করার চেষ্টা করছি। সেই চলচ্চিত্রগুলো শিল্প হয়নি। এই মহাকাব্যকে শিল্পে পরিণত করতে হবে।
তিনি বলেন, ২৫ মার্চ রাতের পর থেকে আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র ভারত আমাদের সহযোগিতা করেছে, সমর্থন দিয়েছে। তারা আমাদের সহায়তা দিয়েছে, আশ্রয় দিয়েছে, অস্ত্র দিয়েছে, গোলাবারুদ দিয়েছে, সামরিক প্রশিক্ষণ দিয়েছে। ভারত আমাদের স্বীকৃতির পর থেকে পুরো পরিবেশটা পাল্টে গেল।
শহীদ বুদ্ধিজীবী ড. আলিম চৌধুরীর স্মৃতিচারণ করে শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী বলেন, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী মুক্তিযুদ্ধের নয় মাসই হত্যা করেছে। বিশেষ করে শেষ প্রান্তে এসে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যখন বুঝতে পেরেছে আমরা বিজয় অর্জন করতে যাচ্ছি, তখন তারা বুদ্ধিজীবী হত্যার নীল নকশা বাস্তবায়ন করতে শুরু করলো। তারা একটি খুনি দল গঠন করলো। যার নাম আল বদর, আল শামস, রাজাকার। যারা দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন তাদের মনে রাখতে হবে, তাদের কথা ভাবতে হবে। দেশ স্বাধীন হওয়ার এত বছর পরে রাজকার-আলবদররা আছে অন্য নামে। তারা বুদ্ধিজীবী-মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটূক্তি করে। এই জায়গা থেকে আমরা নিষ্কৃতি চাই। দেশটা যেন এদের দখলে না যায়, ওরা যেনো আমাদের সবকিছু ধ্বংস করে না দেয়।
লে. কর্নেল কাজী সাজ্জাদ আলী জহির (অব.) বীর প্রতীক বলেন, আমরা তাদের বুদ্ধিজীবী বলছি, যারা বড় বড় শহরের যোগ্য লোক ছিলেন। কিন্তু ঢাকার বাইরে প্রতিটি গ্রামে বুদ্ধিজীবী হত্যা হয়েছে। কারণ প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকও বুদ্ধিজীবী। যে বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার মাধ্যমে স্বাধীনতা সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যায়, সেই বুদ্ধিজীবী। মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকও বুদ্ধিজীবী হতে পারে। এই ব্যাপারটা আমাদের পীড়া দেয়। অনেক মাদ্রাসার শিক্ষককে হত্যা করা হয়েছে, কারণ তারা গণহত্যার পক্ষে ছিল না, ফতোয়া দিচ্ছে না বলে তাদের হত্যা করা হয়েছে।
শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে এমন কোথায় হয়নি, যখন অন্যদেশের সেনাবাহিনী এসে আক্রমণ করে, সেটা দেখে দেশের মানুষ আনন্দে উৎফুলিত হয়। আমাদের দেশে এটা হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতের যুদ্ধ বিমান দেখে। মুক্তিযুদ্ধ একই সঙ্গে আমাদের ত্যাগের-দুঃখের, বীরত্বের, অর্জনের কাহিনি। পৃথিবীর ইতিহাসে এত বড় অর্জন আর কখনো হয়নি। এত বড় বীরত্ব আর কখনো দেখা যায়নি। এত বড় যুদ্ধও আর হয়নি।
তিনি বলেন, রাজকার-আলবদররা এই দেশে মন্ত্রী হয়, এটা কি সহ্য করা যায়? প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা তিনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছেন। আমরা আমাদের সেই অপরাধবোধ, গ্লানি থেকে মুক্ত হয়েছি। এখনো যদিও অনেক যুদ্ধাপরাধী বেঁচে আছে। যতদিন পর্যন্ত তাদের বিচার করা না যাবে, ততদিন শান্তি নেই। আমি কোনোদিন আমার মন থেকে এই প্রতিহিংসা দূর করতে পারবো না।
শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আলী শিকদার (অব.) বলেন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের যারা হত্যা করেছে, তারা যদি পাকিস্তানের সহযোগী না হতো, তাহলে তারা কখনোই এই হত্যাকা- চালাতে পারতো না। রাজাকার, আল-বদররাই এই জঘন্য কাজটি করেছে। তারা যদি পাকিস্তানি সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা না করত, তাহলে তারা নয় মাস যে গণহত্যা, নির্যাতন চালিয়েছে, তা কখনোই চালাতে পারত না।
মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সেনাবাহিনীর যারা শহীদ হয়েছিলেন তাদের স্মরণ করে তিনি বলেন, পৃথিবীতে অনেক দেশ স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছে। সেসব দেশে অন্যদেশগুলো ত্রাণ, রাজনৈতিক, অস্ত্র, কূটনৈতিক, আন্তর্জাতিক সমর্থন দিয়েছে অন্য দেশ। কিন্তু সরাসরি সৈন্য পাঠিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে স্বাধীনতা যুদ্ধ কেউ করেনি। শুধু ভারত তাদের সৈন্য পাঠিয়ে আমাদের সঙ্গে একত্রে যুদ্ধ করে, জীবন দিয়ে স্বাধীনতা অর্জনে সহায়তা করেছে। বাংলাদেশ-ভারতের স¤পর্ক রক্তের স¤পর্ক। মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতীয় সেনাবাহিনীর যারা আমাদের জন্য জীবন দিয়েছেন, তাদের আমরা স্মরণ করি। পাশাপাশি ভারতের সরকার ও জনগণ সেসময় আমাদের যে সমর্থন দিয়ে গেছেন সেজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com