1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫২ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602
সংবাদ শিরোনাম

ক্ষণে ক্ষণে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম

  • আপডেট সময় রবিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২৩

শহীদনূর আহমেদ ::
ভারত রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেওয়ার পরই সুনামগঞ্জের বাজারে হু হু করে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। একদিনের ব্যবধানে দেশি পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ৯০ থেকে ১১০ টাকা। খুচরা বাজারে এখন এ পেঁয়াজের কেজি ১৭০ থেকে ২০০ টাকা। গ্রামীণ খুচরা বাজারে কেজিতে ১২০ টাকা বেড়ে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৩০ টাকায়। সকালে পাইকারি ও খুচরা বাজারে পূর্বের নির্ধারিত মূল্যে ১০০-১০০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি করা হলেও অসাধু ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে বাজারে ক্ষণে ক্ষণে বৃদ্ধি করছে পেঁয়াজের দাম। পেঁয়াজের বাজারে এমন অস্থিরতায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ ক্রেতারা। দ্রুত সময়ে বাজারের অসাধু সিন্ডিকেট প্রতিরোধ না করলে পেঁয়াজের দাম সাধারণের আয়ত্বের বাইরে যাবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করছেন সচেতন নাগরিকরা।
শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সরেজমিনে শহরের পশ্চিম বাজার, মধ্যবাজার, জেলরোড, ট্রাফিক পয়েন্টের খুচরা বাজারে ঘুরে পেঁয়াজের অতিরিক্ত দাম আদায়ের সত্যতা পাওয়া গেছে।
সাধারণ ভোক্তারা বলছেন, ক্ষণে ক্ষণে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। এজন্য পাইকারি ও খুচরা বাজারের অসাধু সিন্ডিকেটকে দায়ি করছেন তারা। সকালে পেঁয়াজ ১১০-১১৫ টাকা কেজি প্রতি পাইকারি বিক্রি হলেও দুপুরে ১৪০-১৪৫ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রি হয়। যা বিকেলে ১৬০-১৭০ টাকায় গিয়ে ঠেকে। পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে একেক স্থানে একেক দামে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।
শহরের পুরাতন জেলরোড এলাকার বিজয় এন্টারপ্রাইজে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১৬০-১৭০ টাকায়, মেসার্স জয়ে ১৬০-১৫০ টাকা, মা ভান্ডারে ১৬০ টাকায়, মধ্যবাজারের ইমন ট্রেডার্সে ১৭০ টাকায়, স্টেশন রোডের গৌরাঙ্গ স্টোরে ১৫৫-১৬০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি হতে দেখা যায়।
দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে গৌরাঙ্গ স্টোরের এক কর্মচারী বলেন, গতকাল একদামে পেঁয়াজ কিনছি। আজকে আরেকদামে কিনতে হচ্ছে। সময়ে সময়ে পেঁয়াজের দাম বাড়বো। লেখালেখি করে কি হবে। সবাই অতিরিক্ত দামে বিক্রি করছে।
শহরের একাধিক পাইকারি দোকান ঘুরে পেঁয়াজের কারসাজি লক্ষ করা যায়। পূর্বে গুদামজাতকৃত পেঁয়াজ নতুন দামে বিক্রি করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, গতকাল পর্যন্ত ১০৫-১১০ টাকা পাইকারি দাম ছিল। শহরের অনেক গুদামে এই দামে কেনা। কিন্তু আজ নতুনভাবে দাম বাড়ায় অধিক মুনাফা লাভে গুদামজাত করে রাখা পেঁয়াজ বেশি দামে বিক্রি করছে তারা।
পাইকারি দোকান মেসার্স মোল্লা’র ম্যানেজার বলেন, সকালে আমরা ১১০ টাকা কেজি বিক্রি করেছি। আমাদের কাছে গতকালের পেঁয়াজ ছিল। আজ নতুন পেঁয়াজ ৪০ বস্তা কিনেছি। যার পাইকারি দাম ১৪০-১৪৫ টাকা।
পেঁয়াজের বাজারের অস্থিরতার ব্যাপারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আল আমিন বলেন, যাঁরা পূর্বে দামে কেনা পেঁয়াজ নতুন দামে বিক্রি করছেন তারা বড় ধরনের অপরাধ করছেন। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
জেলা প্রশাসক রাশেদ ইকবাল চৌধুরী বলেছেন, পেঁয়াজের বাজার তদারকি করা হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com