1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১২:৩৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বেহেলী গ্রামে নতুন বাজার স্থাপন নিয়ে উত্তেজনা : থানায় জিডি

  • আপডেট সময় সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার ::
জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী গ্রামে জোরপূর্বক জায়গা দখল করে নতুনভাবে একটি বাজার স্থাপন নিয়ে দুই পক্ষে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এবিষয়ে দাঙ্গা-হাঙ্গামা নিয়ন্ত্রণে এবং এলাকার নিরাপত্তা চেয়ে বেহেলী ইউনিয়নের মশালঘাট গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা পরেশ তালুকদার জামালগঞ্জ থানায় জিডি করেছেন। জিডি নং-৪৭৬, তারিখ – ১৫/১১/২০২৩ইং।
জিডির বিবরণে জানা যায়, বেহেলী ইউনিয়নের বেহেলী গ্রামের পার্শ্ববর্তী বৌলাই নদীর দক্ষিণ পার্শ্বে বেহেলী বাজার নামে প্রাচীন প্রতিষ্ঠিত একটি বাজার রয়েছে। কিন্তু কতিপয় ব্যক্তি বেহেলী বাজারের ঠিক উল্টোদিকে বৌলাই নদীর উত্তরপাড়ে সরকারি খাস এবং যৌথ মালিকানার জায়গা কয়েক বছর ধরে জোরপূর্বক দখল করে নতুনভাবে আরেকটি বাজার স্থাপন করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। এতে আপত্তি জানিয়ে আসছেন বেহেলী, মশালঘাট, তিলকই, গ্রামের জনগণ। বিবাদমান জায়গা দখল করে পাকা ঘর তৈরি করেছেন, বেহেলী গ্রামের রানু পাল ও আলীপুর গ্রামের আফসর উদ্দিন নামের দুই ব্যক্তি। পাশাপাশি লাগোয়া খালি জায়গায় অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে নদী থেকে মাটি উত্তোলন করে বাজার ভিট তৈরির জন্য মাটি ভরাট করে নিচ্ছেন। এনিয়ে দুই গ্রুপে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
বেহেলী, মশালঘাট, তিলকই গ্রামের সনাতনী সম্প্রদায়ের নিরীহ জনগণের পক্ষে জিডিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা পরেশ তালুকদার উল্লেখ করেন, সরকারি খাস জায়গা এবং যৌথ মালিকানার বিবাদমান জায়গাটি বছরে ৬ মাস পানির নিচে নিমজ্জিত থাকে। বোরো-ইরি মৌসুমে স্থানীয়রা সেখানে গরু চরান, পূজা-পার্বণ অনুষ্ঠানাধি করেন, বৈশাখ মাসে মাড়াইখলা হিসেবে ব্যবহার করেন। অন্যদিকে এলাকাবাসী প্রতিষ্ঠিত প্রাচীন বেহেলী বাজার থেকেই নিত্যপ্রযোজনীয় পণ্য-দ্রব্যাদি ক্রয় করে থাকেন। কিন্তু দখলদার রানু পাল এবং আফসর উদ্দিনের নেতৃত্বে এলাকার ২০/৩০জন মিলে নতুনভাবে আরেকটি বাজার স্থাপন করতে চাইলে, আপত্তি জানানো স্থানীয়দের প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে আসছে। এনিয়ে উভয়পক্ষে যে কোনো সময় অনাকাক্সিক্ষত দাঙ্গা-হাঙ্গামায় আইন-শৃঙ্খলার চরম অবনতির আশঙ্কা রয়েছে।
এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ দিলীপ কুমার দাস বলেন, একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা যদি কোথাও কোনো খাস জায়গায় বাজার স্থাপন করেন, তাহলে ঐবাজার বন্ধ করার কোনো এখতিয়ার ওসির নাই। তবে এখানে বাজার হলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে, মারামারি হতে পারে, এটি আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। আমার হাইয়ার অথোরিটি ডিসি স্যারের সাথে কথা বলে এব্যাপারে হয়তো কোনো ব্যবস্থা নেবেন। তবে আপাতত এখানে বাজার স্থাপন বন্ধ আছে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com