1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

ধারারগাঁও-হালুয়ারঘাট সেতু নির্মাণ হবেই : এমপি মিসবাহ

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার ::
সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেছেন, ধারারগাঁও-হালুয়ারঘাটে সুরমা নদীর উপরে ব্রিজ নির্মাণের দাবি দীর্ঘদিনের। কিন্তু আমি সংসদ সদস্য হওয়ার পরেই জাতীয় সংসদে জনগণের দাবিটি সর্বপ্রথম আমিই উত্থাপন করেছি। আমার আগে কেউ এই দাবি বাস্তবায়নের উদ্যোগ পর্যন্ত নেননি। সংসদেই না শুধু, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথেও কথা বলেছি, ডিও দিয়েছি। তিনিও আন্তরিক এই ব্রিজ নির্মাণের বিষয়ে। স্থানীয় সরকারমন্ত্রীসহ এলজিইডি’র প্রধান প্রকৌশলীকেও ডিও দিয়েছি। দেখা করে বার বার কথা বলেছি। যার ফলশ্রুƒতিতেই হালুয়ারঘাটে সমীক্ষা করেছে এলজিইডি। তারা এই ব্রিজটিকে তাদের প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করেছে। কিন্তু কিছু কুচক্রী মতলববাজরা এটি নিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে। যখন কিছুই ছিলনা তখন কেউ কথা বলেনি। আমি যখন এটিকে সমীক্ষা করালাম, প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করালাম, তখন তারা ব্রিজ নির্মাণ হবে জেনেই এটি নিয়ে অপরাজনীতি শুরু করেছে। মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। এটি কাম্য নয়। এমপি মিসবাহ বলেন, এদের কথায় বিভ্রান্ত হবেন না, ধারারগাঁও-হালুয়ারঘাটসেতু নির্মাণ হবেই।
সোমবার বিকালে সুরমা ইউনিয়নের বেরিগাঁও প্রাইমারি স্কুল মাঠে সুরমা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এমপি মিসবাহ আরও বলেন, এই এলাকার সন্তান হিসাবে, আপনাদের সন্তান হিসাবে আমি বিগত দশ বছরে আমার সর্বোচ্চ চেষ্টার মাধ্যমে উন্নয়ন করার চেষ্টা করে গেছি। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এই এলাকায় ঢিমেতালে চলা উন্নয়নে অবহেলিত ছিল সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভরপুর। স্বাধীনতা পরবর্তী ৪২ বছরে যে উন্নয়ন ছিল তার চেয়েও অধিক উন্নয়নকাজ আমি বাস্তবায়ন করেছি দশম ও একাদশ সংসদের সময়ে। তিনি বলেন, ৪২ বছরে ৫টি ব্রিজ ছিল সুরমা ইউনিয়নে। কিন্তু দশ বছরে আমি ১২টি ব্রিজ নির্মাণ করেছি। কয়েক কিলোমিটার নতুন রাস্তা পাকাকরণ করেছি। আরও দুই কিলোমিটার পাকা রাস্তার কাজ চলমান রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আরও ৫ কিলোমিটারের উপরে পাকা রাস্তা নির্মাণকাজের প্রস্তাব প্রক্রিয়াধীন রয়েছে সুরমা ইউনিয়নে। এই কাজগুলো বাস্তবায়ন শেষ হলে যোগাযোগে মডেল ইউনিয়ন হবে এই সুরমা।
পীর মিসবাহ বলেন, দশ বছরে এলাকার উন্নয়নে আমি কাজ করেছি, উন্নয়ন কতটুকুন করেছি তা আপনাদের সামনে দৃশ্যমান। আমি কথা দিয়েছিলাম আমি আমার বিত্ত ভৈবব বৃদ্ধির জন্য কাজ করবোনা। আমি মানুষের উন্নয়নের জন্য সরকারের যারা দায়িত্বে রয়েছেন তাদের দুয়ারে দুয়ারে যাব। কোনদিন আমার ব্যক্তিগত কোন কাজে আমি দ্বারস্থ হইনি তাদের। আমি শান্তি ও সম্প্রীতি রক্ষা করে দশ বছর মানুষের পায়ে পায়ে হেঁটেছি। আমার কোন সন্ত্রাসী বাহিনী, কোন দালাল বাহিনী ছিলনা, আগামীতেও থাকবেনা। কোন মানুষ বলতে পারবেন না আমার ক্ষমতা আমি কারো ক্ষতির জন্য ব্যবহার করেছি। মানুষের সাহেব নয় মানুষের কর্মী হিসাবে আমি কাজ করে গেছি। আগামীদিনেও আমাকে আপনারা আপনাদের সকল প্রয়োজনে আপনাদের কর্মী হিসাবেই পাশে পাবেন।
তিনি বলেন, আমার সময় সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভরপুরে কয়েক হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। যা অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও যোগাযোগে আমিই সর্বাধিক উন্নয়ন এখানে করতে পেরেছি। পীর মিসবাহ বলেন, সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, লাঙ্গল মার্কার বিজয় আগামীদিনেও এই আসনে নিশ্চিত। আজকের হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি এটাই প্রমাণ করেছে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com