1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

দ্রুত এগিয়ে চলছে মেডিকেল কলেজ নির্মাণকাজ

  • আপডেট সময় শনিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২৩

শহীদনূর আহমেদ ::
দ্রুত এগিয়ে চলছে সুনামগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নির্মাণকাজ। জেলার স্বাস্থ্যখাতের সর্ববৃহৎ মেগা প্রকল্পটির নির্মাণকাজের ৬০ ভাগ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে।
সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ২০২৪ সালের মধ্যে শতভাগ কাজ সম্পন্ন করতে তোড়জোড় চলছে। প্রকল্পের ২২টি বহুতল ভবনের মধ্যে ইতোমধ্যে ৯তলাবিশিষ্ট একাডেমিক ভবনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নতুন বছরের প্রথম দিকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করা যাবে বলে জানাগেছে।
এদিকে, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল ও হাসপাতাল প্রকল্প দৃশ্যমান হওয়ার সাথে সাথে আশান্বিত হচ্ছেন জেলার সকল উপজেলার মানুষ। এতে হাওর জেলা সুনামগঞ্জের স্বাস্থ্যখাতের আমূল পরিবর্তন হওয়ার পাশাপাশি চিকিৎসাবিদ্যায় জ্ঞান অর্জনে তৈরি হবে অপার সম্ভাবনা। এমন একটি প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপিকে কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ জানাচ্ছেন সুনামগঞ্জবাসী।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ৮১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সুনামগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রকল্পের নির্মাণকাজ করছে গণপূর্ত বিভাগ। ২০১৮ সালের নভেম্বরে প্রকল্পটির অনুমোদন হলে ২০১৯ সালের ১া ডিসেম্বর নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি। নির্মাণকাজের মেয়াদ ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত থাকলেও পরে ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত সময় বর্ধিত করা হয়। বর্ধিত এই সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে চেষ্টা করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো।
৩৫ একর জায়গাজুড়ে বিশাল এই প্রকল্পটির অবকাঠামো ইতোমধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে। প্রকল্পের ২২টি ভবনের মধ্যে কেবল একাডেমিক ভবনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চলমান রয়েছে বাকি ভবনগুলোর কাজ। প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার মধ্যে রয়েছে ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট ৮তলা হাসপাতাল ভবন, ৯তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন, ৬তলাবিশিষ্ট নার্সিং কলেজ, ৮তলাবিশিষ্ট নার্সিং হোস্টেল, শিক্ষার্থীদের জন্য ৮ তলাবিশিষ্ট ছাত্রাবাস, ইন্টার্নি ডাক্তারদের জন্য ৬তলা বিশিষ্ট দুইটি ডরমেটরি ভবন, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তারদের আবাসনের জন্য ১০ তলাবিশিষ্ট আবাসন ভবন, হাসপাতাল পরিচালক ও অধ্যক্ষের জন্য রয়েছে ৫ তলাবিশিষ্ট রেসিডিয়েনসিয়াল ভবন। এছাড়াও রয়েছে নান্দনিক অডিটোরিয়াম, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের জন্য সাবস্টেশন বিল্ডিং, ৪তলাবিশিষ্ট একটি মসজিদ, একটি লন্ড্রি ভবন, ব্যায়ামাগার, মর্গ ও ফরেনসিক বিভাগসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত স্থাপনা।
নির্মাণকাজে নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম জামাল এন্ড কোম্পানি লিমিটেডের এমডি মফিজুর রহমান বলেন, আমরা দ্রুত গতিতে কাজ করছি। আমাদের অংশের ২৬৬ কোটি টাকার প্রকল্পের যে কাজ ছিল তার কাজ শেষ পর্যায়ে। আশা করছি ডিসেম্বরের শেষদিকে গণপূর্ত বিভাগের কাছে হস্তান্তর করতে পারবো। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও দ্রুত গতিতে কাজ করছে।
গণপূর্ত বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী (সিভিল) মোহাম্মদ আশরাফুল আলম বলেন, এটি সুনামগঞ্জ জেলার অন্যতম মেগা প্রকল্প। স্বাস্থ্যখাতে এতো বিশাল অংকের আর কোনো প্রকল্প এ জেলায় হয়নি। বর্ধিত সময় ২০২৪ সালের জুনের মধ্যে কাজ শেষ করতে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি। ইতোমধ্যেই এই প্রকল্পের ৬০ ভাগ শেষ হয়েছে। প্রকল্পের কাজ তদারকি ও যাবতীয় বিষয় দেখভাল করতে গণপূর্ত বিভাগ সচেষ্ট রয়েছে। আশা করছি আগামী বছর প্রকল্পের যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা যাবে।
অপরদিকে, শান্তিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অস্থায়ী ক্যাম্পাসে ২০২০ সাল থেকে চলছে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম। ইতোমধ্যে ২০২০-২০২১, ২০২১-২০২২ এবং ২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষের পাঠ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। প্রতি ব্যাচে ৫০ জন করে শিক্ষার্থী রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। একাডেমিক ভবন হস্তান্তর হলে নতুন বছরে সেখানে পাঠকার্যক্রম শুরু করা যাবে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের অধ্যক্ষ মনোজিৎ মন্ডল। তিনি বলেন, আমরা এখন অস্থায়ী ক্যাম্পাসে স্বল্প পরিসরে পাঠকার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি নতুন বছরে মূল ক্যাম্পাসে ক্লাস শুরু করতে পারবো।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com