1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩, ১১:২০ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

নদীতে ব্যারিকেড দিয়ে মাছ শিকার নৌযান চলাচলে ঝুঁকি

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার ::
সুরমা নদীর বিভিন্ন স্থানে বাঁশ-কাঁটা ও জালের ব্যারিকেড দিয়ে মাছ শিকার করছে অসাধু মৎস্যজীবীরা। এতে নৌযান চলাচলে মারাত্মক ঝুঁকির সৃষ্টি হয়েছে। এসব ব্যারিকেড অপসারণের জন্য নৌযান মালিক এবং চালকরা দাবি জানিয়েছেন।
স্থানীয়রা জানান, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার আমবাড়ি, যোগিরগাঁও, ব্রাম্মণগাঁও, ধনপুর, ওয়েজখালি, জগাইরগাঁও, ইনাতনগর, পৈন্দা, মোহনপুর, সর্দারপুর, জগন্নাথপুর, মইনপুর প্রভৃতি এলাকার নদীর মাঝে বাঁশ-কাঁটা ও সিৎকার জালের ব্যারিকেড দিয়ে নদীতে চলাচল পথ সংকীর্ণ করা হয়েছে। একই সাথে নদীর মাঝপথে একাধিক নৌযান চলাচল করার সময় ঝুঁকির মুখে পড়তে হয়। কোনো কোনো সময় দুর্ঘটনায় পড়তে হয় নৌযানকে। তাই নদীতে বাঁশ-কাঁটা ও সিৎকার জালের ব্যারিকেড স্থাপনে জড়িত অসাধু মাছ শিকারিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি স্থানীয় বাসিন্দাসহ নৌযান মালিক ও চালকদের।
শহরের উত্তর আরপিননগরের বাসিন্দা সুবেল মিয়া বলেন, শীতের মওসুমে সুরমা নদীর বিভিন্ন স্থানে সিৎকার জাল দিয়ে মাছ শিকার করেন অসাধু মৎস্যজীবীরা। এতে নৌযান চলাচলে সমস্যা হয়। তখন বদনাম হয় আমাদের সকলের।
আমবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা জহিরুল মিয়া বলেন, নদীতে ব্যারিকেড দিয়ে মাছ ধরলে নৌকা, ব্লাকহেড ও লঞ্চ চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হয়। এই অবৈধ ব্যারিকেডের অপসারণ জরুরি প্রয়োজন।
নুরপুর গ্রামের রাজা মিয়া বলেন, নদী যেভাবে দখল হয়, বুঝা যায় লিজ নেয়া হয়েছে।
জগন্নাথপুর গ্রামের আমজদ মিয়া বলেন, ব্যারিকেড দিয়ে মাছ শিকার করায় নদীতে কোনো কাজ করা যায় না। বছর বছর এই সমস্যা হয়। এই সমস্যার বিহিত হওয়া দরকার।
নৌযানের মালিক আব্দুল গফুর জানান, দিনে ও রাতে নদীতে নৌযান চলাচলের সময় ব্যারিকেডে একটু লাগলেই তারা আমাদেরকে জরিমানা করে। এটাতো আইনগতভাবে বৈধ নয়। এসব সমস্যা দূরীকরণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।
নৌকা চালক রহিম উদ্দিন বলেন, নদীতে এসব ব্যারিকেড দেয়ায় মহাবিপদে আছি আমরা চালকেরা। নদীতে কোনো ঘাটে নৌকা ভিড়ানো যায় না। ব্যারিকেডে নৌকা লাগলে তো আর উপায় নেই। অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ করে।
জেলা মৎস্যজীবী সমিতির যুগ্ম আহ্বায়ক আলাউর রহমান বলেন, নদীতে এভাবে ব্যারিকেড দিয়ে মাছ শিকার অবৈধ এবং গুরুতর অপরাধ। বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি আমাদের।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com