1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৩৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

শ্রমিকনেতা বাদল সরকার আর নেই

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার ::
বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের জেলা শাখার সভাপতি বাদল সরকার (৬৬) আর বেঁচে নেই। সোমবার সকাল ৭টায় সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত দুরারোগ্য ব্যাধিতে ভুগছিলেন। শহরের বিলপাড়া এলাকার বাসিন্দা বাদল সরকার মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১ ছেলে, ২ মেয়ে রেখে গেছেন।
সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বাদল সরকারের মরদেহ শ্রদ্ধা জানাতে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে আসা হয়। তখন মরদেহে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
বাদল সরকারের মরদেহে শ্রদ্ধা জানান বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের জেলা শাখার সাধারণ স¤পাদক নাছির উদ্দিন, কৃষক সংগ্রাম সমিতির কেন্দ্রীয় সাধারণ স¤পাদক শাহজাহান কবির, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের কেন্দ্রীয় সাধারণ স¤পাদক রজত বিশ্বাস, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট জেলা শাখার সাধারণ স¤পাদক সাইফুল আলম, হকার্স শ্রমিক সংঘের সভাপতি আব্দুল হাই, ক্ষৌরকার শ্রমিক সমিতির সভাপতি নির্মল চন্দ, সাধারণ স¤পাদক দেবাশীষ চন্দ বাপ্পা, এনডিএফ’র জেলা সভাপতি রতœাংকুর দাস, অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা সুখেন্দু কুমার তালুকদার, আমির উদ্দিন, ফরিদ মিয়া, রূপাঙ্কর দাস, কাদির মিয়া, বিলাল মিয়া, বীরেন্দ্র কর, মইনুল হক, মনির মিয়া, সিরাজ মিয়া প্রমুখ। শহীদ মিনারে রাখা শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন বিভিন্ন সংগঠনের সহকর্মী ও শুভাকাক্সিক্ষরা। বেলা আড়াইটায় শহরের ধোপাখালিস্থ কেন্দ্রীয় শ্মশানে বাদল সরকারের শেষকৃত্য স¤পন্ন হয়।
এদিকে, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য, সুনামগঞ্জ জেলার সভাপতি এবং জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের জেলা সহ-সভাপতি বাদল সরকারের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি রতœাংকুরদাস জহর, সাধারণ স¤পাদক সাইফুল আলম, ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির সহসভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ স¤পাদক নাসির মিয়া, বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট নিরঞ্জন তালুকদার, সাধারণ স¤পাদক খায়রুল বসর ঠাকুর খান। এ যুক্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন- বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাদল সরকার সংগ্রামী ভূমিকা পালন করেছেন। পেশায় তিনি একজন ক্ষৌরকার হওয়ার সুবাদে সুনামগঞ্জ জেলা ক্ষৌরকার ইউনিয়ন গঠন করেন। এছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলা বারকি শ্রমিক ইউনিয়ন, হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন, হকার্স শ্রমিক ইউনিয়ন গড়ে তোলা সহ বিভিন্ন শ্রমিক সেক্টরে সংগঠন-সংগ্রাম গড়ে তোলেন। বাদল সরকার ট্রেড ইউনিয়ন নেতা হলেও শ্রমিক-কৃষক-জনগণের দুঃখ, দুর্দশার কারণ হিসেবে সা¤্রাজ্যবাদ, সামন্তবাদ ও আমলা-দালাল পুঁজিকে সমস্ত শোষণ-নিপীড়নের হোতা হিসেবে মনে করতেন। তাই শোষণের এই তিন পাহাড়কে উচ্ছেদ করতে শ্রমিক শ্রেণীর নেতৃত্বে শ্রমিক-কৃষকের মৈত্রীর ভিত্তিতে জাতীয় গণতান্ত্রিক বিপ্লবকে অগ্রসর করার মহান ব্রত গ্রহণ করেন। ৯০ দশকে বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির নেতৃত্বে ইজারাবিরোধী যে ঐতিহাসিক ভাসানপানির আন্দোলন গড়ে উঠে বাদল সরকার তাতে নেতৃত্বকারী ভূমিকা পালন করেন। জেলার তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, ধর্মপাশা উপজেলাসহ যেখানে যেখানে ভাসান পানির আন্দোলন গড়ে উঠেছিলো বাদল সরকার সেখানে প্রত্যক্ষ ভূমিকা গ্রহণ করেছেন। আন্দোলনের কারণে সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ অসংখ্য জেলে-কৃষকের উপর হামলা-মামলা সংগঠিত হয়। সেসব হামলা-মামলা তিনি অত্যন্ত সাহস ও ধৈর্য্যের সহিত মোকাবেলা করাসহ দায়িত্বশীল ভূমিকা গ্রহণ করেন। জেলা শহরে অবস্থান করার কারণে তাঁর বাসা নেতা-কর্মীদের একটি প্রধান আশ্রয়স্থল হিসেবে গড়ে উঠেছিল।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরো উল্লেখ করেন- বাদল সরকার শুধু একজন নিবেদিত সংগঠকই ছিলেন না, আন্দোলন-সংগ্রামের সকল কাগজপত্র, রেকর্ড সংরক্ষণ করাসহ বিপ্লবী ও প্রগতিশীল সাহিত্য অত্যন্ত সুনিপুণ হাতে যত্ম করে সংরক্ষণে রাখতেন। যা আগামীদিনের আন্দোলন-সংগ্রামের ইতিহাস রচনায় এক গুরুত্বপূর্ণ দলিল ও উৎস হিসেবে বিবেচিত রয়েছে। অত্যন্ত প্রাণোচ্ছল, সজ্জন ও ক্লান্তিহীন এই সংগ্রামী নেতৃত্বের অভাব সুনামগঞ্জ জেলাসহ গোটা শ্রমিক অঙ্গনে পূরণ হবার নয়।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com