1. [email protected] : admin2017 :
  2. [email protected] : Sunam Kantha : Sunam Kantha
  3. [email protected] : wp-needuser : wp-needuser
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৪:০৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

আমনে স্বপ্ন বুনছে কৃষক

  • আপডেট সময় সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২

জাহাঙ্গীর আলম ভূইয়া ::
বন্যার ক্ষত কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে সোনালী আমনে স্বপ্ন বুনছেন সুনামগঞ্জের কৃষকরা। ইতোমধ্যে সোনালী ধানে ভরে উঠেছে বিস্তীর্ণ মাঠ। বাতাসে ভাসছে পাকা ধানের গন্ধ। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আমন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে। তবে ধানের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিয়ে কিছুটা শঙ্কা রয়েছে কৃষকদের মধ্যে।
সরেজমিনে দেখা যায়, ফসলের মাঠে এখন সোনালী স্বপ্নের ছড়াছড়ি। পাকা ধানের উপস্থিতিতে কৃষকের মনে লেগেছে আনন্দের ঢেউ। কৃষকরা তাদের কষ্টে ফলানো সোনালী আমন ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।
এ বছর সুনামগঞ্জ জেলায় আমন চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮১ হাজার ১০০ হেক্টর। কিন্তু আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় জেলায় ৮২ হাজার ২১৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের আবাদ হয়। ১ অগ্রহায়ণ থেকে শুরু হয়েছে জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে আমন ধান কাটা উৎসব।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, সুনামগঞ্জ সদরে ১১ হাজার ৬১০ হেক্টর, তাহিরপুরে ৬ হাজার ৩৩৫ হেক্টর, ধর্মপাশায় ৪ হাজার ৫৭০ হেক্টর, জামালগঞ্জে ৪ হাজার ৫৪৫ হেক্টর, দোয়ারাবাজার উপজেলায় ১৪ হাজার ৬২৫ হেক্টর, ছাতকে ১২ হাজার ৯৫৫ হেক্টর, জগন্নাথপুরে ৯ হাজার ৫৫৫ হেক্টর, বিশ্বম্ভরপুরে ৮ হাজার ৭৫৫ হেক্টর, শান্তিগঞ্জে ৪ হাজার ২১০ হেক্টর, দিরাইয়ে ২ হাজার ২২৫ হেক্টর, শাল্লায় ২ হাজার ১৩০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষাবাদ হয়েছে। জেলায় এবার সবচেয়ে বেশি চাষাবাদ হয়েছে ব্রি-৪৯ ও বিআর ২২ জাতের ধান।
কৃষক ফারুক মিয়া বলেন,বন্যার ক্ষতি কাটিয়ে ঋণ করে আমনের চাষ করেছি। আমনের ভালো ফলন হয়েছে এবার। ঋণগ্রস্ত কৃষকের মুখে হাসি ফুটবে। মাত্রই ধান কাটা শুরু হয়েছে, তাই বাজার দরের বিষয়ে কিছু বলা যাবে না। তবে বাজারে এখনো ধানের দাম ভালই।
কৃষক সাদেক মিয়া জানান, বন্যায় পর কীভাবে ঘুরে দাঁড়াবো এ নিয়ে খুব চিন্তায় ছিলাম। অনেক কষ্ট করেছি, শেষে ঋণ করে আমন ধানের চাষাবাদ করেছি। সেই ধানের বা¤পার ফলন হওয়ায় আমরা অনেক খুশি। গত দুই বছরের তুলনায় এবার আমনের বা¤পার ফলন হয়েছে। সে ধান কেটে ঘরে তুলছি, এবার কষ্ট ঘুচবে।
তাহিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. হাসান উদ দোলা জানান, আমন আবাদে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বিগত বছরের চেয়ে এবছর চাষাবাদও হয়েছে বেশী। এবার লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করবে। ফাঁকে ফাঁকে হালকা বৃষ্টিপাত হওয়ায় ক্ষতিকর পোকা মাকড়ের উপদ্রব ছিল না। এতে করে ফলন লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি পাওয়া যাচ্ছে। কৃষকরা ধান কাটছে। অনেকেই সরকারি ভর্তুকিতে নেয়া মেশিনে ধান কাটছে। কৃষকদের জন্য সরকারও ন্যায্য দামে আমন সংগ্রহ করবে।
সুনামগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিমল চন্দ্র সোম জানান, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার ধানের বা¤পার ফলন হয়েছে। ভালো ফলন হওয়ায় কৃষকরাও খুশি। ইতোমধ্যে ধান কাটা শুরু হয়েছে। এবার আমন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com