1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বিএনপির সমাবেশ শেষ পরিবহন ধর্মঘটও শেষ

  • আপডেট সময় শনিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার ::
সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ শেষ হওয়ার পরপরই সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে। ৩৬ ঘণ্টা পর শনিবার সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হয়। সুনামগঞ্জ জেলা বাস-মিনিবাস-মাইক্রোবাস মালিক গ্রুপের সভাপতি মো. মোজাম্মেল হক জানান, সড়কে অবৈধ সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বন্ধসহ চার দফা দাবিতে আমরা দুদিনের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলাম। আমরা আমাদের নির্ধারিত কর্মসূচি পালন শেষে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বাস চলাচল শুরু হয়েছে। অপরদিকে, সুনামগঞ্জ থেকে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গিয়ে দেখে যায় কাউন্টারগুলোতে যাত্রীদের ভিড়। সন্ধ্যায় ৬টার পর কাউন্টারগুলোতে টিকেট বিক্রি শুরু হয়।
পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেওয়ার পর বিএনপির নেতারা বলেছিলেন, গণসমাবেশ বাধাগ্রস্ত করতে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন এবং পরিবহননেতাদের দিয়ে এসব ধর্মঘট পালন করানো হচ্ছে। তবে পরিবহন শ্রমিক ও মালিক সংগঠনের নেতাদের দাবি ছিল, তাঁদের কর্মসূচি পূর্বঘোষিত।
এদিকে, পরিবহন মালিক সমিতির ডাকা দুদিনের ধর্মঘটের সময় সুনামগঞ্জের ৫টি পয়েন্টে বিশেষ তল্লাশি চৌকি বসিয়েছিল জেলা পুলিশ। প্রতিটি চৌকিতে একজন ইন্সপেক্টরের নেতৃত্বে ১২-১৫ জন পুলিশ টহলে ছিল। এসময় চলাচলকারী যানবাহনকেও আর্থিক জরিমানার পাশাপাশি মামলাও দেয়া হয়েছে। তবে যানবাহন আইনের নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে মামলা ও জরিমানা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এদিকে দ্বিতীয় দিনের ধর্মঘট কঠোরভাবে পালিত হয়েছে। প্রথম দিন তিন চাকার যান চলাচল করলেও দ্বিতীয় দিন চাকার যানও সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে চলাচল করতে পারেনি। ফলে দ্বিতীয় দিন যাত্রী দুর্ভোগ আরো বেশি ছিল। যান চলাচল বন্ধ থাকায় স্টেশন থেকে ফিরে গেছেন অনেক যাত্রী।
পুলিশ সুপারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ধর্মঘট চলাকালে যাতে রাস্তাঘাটে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে এবং আইন শৃঙ্খলা বিঘিœত না হয় সেজন্য সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের ৫টি স্থানে বিশেষ তল্লাশি চৌকি বসানো হয়েছিল। ছাতক-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের গোবিন্দগঞ্জ পয়েন্ট, জাউয়াবাজার পয়েন্ট, ডাবর-জগন্নাথপুর রাস্তার মোড়, দিরাই-মদনপুর রাস্তার মোড় এবং সুনামগঞ্জ পৌর শহরের ইকবাল নগরে এই তল্লাশি চৌকি বসানো হয়েছিল। এসব পয়েন্টে একজন ইন্সপেক্টরের নেতৃত্বে ১২-১৫জন পুলিশ সদস্য সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছেন। এসময় তারা নিয়মিত কার্যক্রম হিসেবে চলাচলকারী বিভিন্ন যানবাহনকে মামলাসহ আর্থিক জরিমানা করেছেন।
জয়নগর বাজারের ব্যবসায়ী পারভেজ মিয়া বলেন, আমি মোটরসাইকেল নিয়ে সুনামগঞ্জ শহরের ডিজিটাল মেলায় এসেছিলাম। আমার গাড়ির কাগজপত্র সব ছিল। কিন্তু ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় পুলিশ আমাকে চার হাজার টাকা জরিমানা করেছে। এভাবে অনেককেই জরিমানা করেছে, মামলা দিয়েছে।
জামালগঞ্জ উপজেলার ঘাগটিয়া গ্রামের বালু শ্রমিক আকিক মিয়া বলেন, আমাকে জরুরি প্রয়োজনে জাফলং যেতে হয়। খুব সকালে মোটর সাইকেল ভাড়া করে সুনামগঞ্জ শহরে এসে দেখি সব বাস ও গাড়ি চলাচল বন্ধ। অনেক চেষ্টা করেও সিলেট যেতে পারিনি। তাই দুপুরের দিকে বাড়ির দিকে রওয়ানা দিয়েছি। তিনি বলেন, এই ধর্মঘট আমাদের অনেক ক্ষতি করেছে।
মাইক্রোবাস চালক শিপন মিয়া বলেন, গাড়ি চালানোর আয়েই আমরা দিনাতিপাত করি। কিন্তু দুদিনের ধর্মঘটে আমরা অলস বসেছিলাম। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির এই সময়ে অবরোধ আমাদের জন্যও আর্থিকভাবে অনেক ক্ষতির।
জেলা বিএনপির সাধারণ স¤পাদক অ্যাড. নূরুল ইসলাম নূরুল বলেন, আওয়ামী লীগ পুলিশ দিয়ে, বাস বন্ধ করে আমাদের আটকাতে পারেনি। মাঝখানে সাধারণ মানুষকে চরম ভোগান্তিতে ফেলেছে।
শনিবার দুপুরে সুনামগঞ্জ মল্লিকপুর বাস-স্টেশনে এসে দেখা যায় ঢাকা ও সিলেটগামী সব বাস, স্টেশনের মুখে এলোমেলো পার্কিং করা। ভিতরেও বাসগুলো সারি সারি করে রাখা হয়েছে। বাস কাউন্টারও বন্ধ। বিচ্ছিন্নভাবে কিছু যাত্রী ঘুরাফেরা করছেন।
সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) রিপন কুমার মোদক বলেন, অবরোধের সময় যাতে মহাসড়কে কোন বিশৃঙ্খলা না ঘটে সে জন্য ৫টি বিশেষ টহল চৌকি বসানো হয়েছিল। পাশাপাশি নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ত্রুটিপূর্ণ যানবাহনকে জরিমানা ও মামলা দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com