1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৫:২৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

শিক্ষক দিবস : শিক্ষকের মর্যাদার জয় হোক

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২২

:: দুলাল মিয়া
৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস। ১৯৯৪ সাল থেকে জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কোর উদ্যোগে দিবসটি উদযাপিত হয়। শিক্ষকদের জন্য দিবসটি নিঃসন্দেহে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। শিক্ষকদের অসামান্য অবদানকে স্মরণ করার জন্য এ দিনটিকে বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালন করা হয়। শিক্ষকদের সম্মানার্থে পালিত এটি একটি বিশেষ দিবস। ২০২২-এ বিশ্ব শিক্ষক দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হলো- The transformation of education begins with teachers. অর্থাৎ শিক্ষকদের দিয়েই শিক্ষার রূপান্তর শুরু।
একই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ ২৭অক্টোবর ২০২২ প্রথমবারের মতো সরকারিভাবে বাংলাদেশে শিক্ষক দিবস উদযাপন করা হবে। দিবসটি উপলক্ষে সব জেলা-উপজেলায় র‌্যালি, আলোচনা সভা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি এবং স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনগুলোর মাধ্যমে রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করতে বলা হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা বলা হয়েছে, ২৭ অক্টোবর দেশব্যাপী শিক্ষক দিবস উদযাপনের লক্ষ্যে কেন্দ্র থেকে মাঠ পর্যায় পর্যন্ত বিভিন্ন উৎসব সফলভাবে আয়োজনের মাধ্যমে সব স্তরের শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করে (প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, কলেজ, কারিগরি ও মাদ্রাসা) দিবসটি উদযাপন করবে। শিক্ষাক্ষেত্রে যে কোনো পরিবর্তন অবশ্যই শিক্ষকদের দিয়ে শুরু করতে হয়; অর্থাৎ শিক্ষকদের পরিবর্তন হলে শিক্ষার্থীর পরিবর্তন হয়। আর তখনই শিক্ষার পরিবর্তন ঘটে। ২০২৩ সাল থেকে আমাদের দেশে শিক্ষা ব্যবস্থায় যে পরিবর্তন ঘটবে তা শিক্ষকদের দ্বারাই শুরু করতে হবে।
শিক্ষকতা পেশাকে সম্মানজনক অবস্থানে নিতে হলে শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতি, দায়িত্ব ও অধিকার, প্রশিক্ষণ, চাকরির নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা বিধানের প্রক্রিয়া, পেশাগত স্বাধীনতা, কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ ও মূল্যায়ন, শিক্ষা সংক্রান্ত নীতিনির্ধারণ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ, কার্যকর শিক্ষাদান ও শিখনের পরিবেশ, আর্থিক ও সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে।
বৈশ্বিক করোনা মহামারি, মানবিক বিপর্যয় ও অর্থনৈতিক সংকটে আক্রান্ত হয়েও শিক্ষকসমাজ মানবিক ও বুদ্ধিবৃত্তিক সমাজ বিনির্মাণে নিরলসভাবে কাজ করছেন। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সরকারিভাবে উদযাপিত শিক্ষক দিবসে সরকারের নিকট শিক্ষক সমাজের প্রত্যাশা হলো চাকরি জাতীয়করণ।
শিক্ষক ছাড়া কোনো সমাজ নেই। প্রত্যেক মানুষেরই শিক্ষক রয়েছেন। শিক্ষকতা একটি মহান ব্রত। একটি উৎকৃষ্ট সমাজ বিনির্মাণে উৎকৃষ্ট শিক্ষকের বিকল্প নেই। আর একজন উৎকৃষ্ট মানুষই হতে পারেন, একজন উৎকৃষ্ট শিক্ষক। উৎকৃষ্ট শিক্ষকের মর্যাদাও সবার ঊর্ধ্বে। যে সমাজে উৎকৃষ্ট শিক্ষকের সংখ্যা যত বেশি সে সমাজ ততই উন্নত ও সমৃদ্ধ। দেশে সুনাগরিক সৃষ্টির লক্ষ্যে শিক্ষকের সর্বাধিক সম্মান ও সম্মানী নিশ্চিত করা কল্যাণ রাষ্ট্রের দায়িত্ব। শিক্ষকের দায়িত্বও অনেক। একজন শিক্ষককে মনেপ্রাণে শিক্ষক হতে হবে। সুশিক্ষক হিসেবে উত্তম চিন্তা ও কর্ম করলে সমাজে উত্তম মানুষ তৈরি হবে। আর উত্তম মানুষ তৈরি হলেই শিক্ষকের মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হবে। শিক্ষক দিবস অমর হোক।
লেখক : প্রভাষক, বাংলা বিভাগ, জাউয়া বাজার ডিগ্রি কলেজ, ছাতক, সুনামগঞ্জ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com