1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১১:৩২ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ : আলোচনায় ড. মোহাম্মদ সাদিক

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের জন্য গঠিত সার্চ (অনুসন্ধান) কমিটির কাছে আজ বৃহস্পতিবার নাম জমা দেবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। গত মঙ্গলবার বিকেলে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা দলীয় প্রধানের হাতে খামে ভরে নাম দিয়েছেন। গোপনে দিলেও কয়েকজনের নাম সভা সূত্রে জানা গেছে, যেখানে তিনটি নাম প্রায় সবার তালিকায় আছে। এর মধ্যে অন্যতম হলেন সুনামগঞ্জের কৃতী সন্তান, পিএসসি’র সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক।
জানাযায়, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সভায় নাম পাঠানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে দলটি। গত রবিবার সার্চ কমিটির প্রথম সভা শেষে রাজনৈতিক দল, নাগরিক সমাজ ও পেশাজীবীদের কাছে নাম আহ্বান করা হয়। সার্চ কমিটি ১০টি নাম চূড়ান্ত করে রাষ্ট্রপতিকে দেবে। সেখান থেকে রাষ্ট্রপতি একজন সিইসি ও চার কমিশনার নিয়োগ দেবেন।
দলীয় সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর ওই সভায় উপস্থিত সদস্যদের কাছে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য কমিশনার কারা হতে পারেন এমন যোগ্যতাস¤পন্ন পছন্দের ব্যক্তিদের নাম চান দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। তবে সেই নামগুলো খামে ভরে তার হাতে দিতে বলেন প্রধানমন্ত্রী। পরে দলীয় সভাপতির কথামতো প্রত্যেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা পাঁচজনের নাম লিখে খামে ভরে শেখ হাসিনার কাছে জমা দেন।
সভায় উপস্থিত থাকা নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেশিরভাগ নেতাই প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে পছন্দের তালিকায় রেখেছেন সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমকে। তিনি বর্তমানে বিশ্বব্যাংকে বিকল্প নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সেখানে তার চাকরির মেয়াদ নভেম্বর পর্যন্ত রয়েছে। অবশ্য নতুন দায়িত্ব পেলে বিশ্বব্যাংকের চাকরি ফেলে আসতে কোনো বাধা নেই। শফিউল আলমকে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই অনেকেই তার নাম তালিকায় রেখেছেন। পছন্দের তালিকায় আরও রয়েছেন ড. মোহাম্মদ সাদিক। তিনি নির্বাচন কমিশন সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসির) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বও পালন করেছেন। তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনা সমৃদ্ধ বলে তাকেও পছন্দের তালিকায় রাখা হয়েছে। সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াও রয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতাদের কারও কারও তালিকায়। সাবেক আইন সচিব কাজী হাবিবুল আওয়ালও রয়েছেন তালিকায়। দুই সাবেক প্রধান বিচারপতির নামও জমা দিয়েছেন কয়েকজন। জমা দেওয়া তালিকায় তিনটি নাম ঘুরে-ফিরে এসেছে বলে সভা সূত্রে জানা গেছে।
অবশ্য দলীয় সভাপতির ইচ্ছে অনুযায়ী ওই বৈঠকে জমা দেওয়া নামগুলো নিয়ে আর আলোচনা করা হয়নি। সভায় সভাপতিমণ্ডলীর সব সদস্য জমা দেওয়া নামগুলো যাচাই-বাছাই করে সার্চ কমিটির কাছে জমা দিতে অনুরোধ করেন দলীয় সভাপতিকে। আজ বৃহস্পতিবার সার্চ কমিটির কাছে আওয়ামী লীগ তাদের পছন্দের ১০টি নাম পাঠাবে।
শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বিকেল সাড়ে ৪টায় শুরু হওয়া এ সভা সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলে। সভায় সার্চ কমিটির কাছে নাম প্রস্তাব করা, বিএনপির লবিস্ট নিয়োগ, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে আলোচনা করা হয়। এছাড়া সভায় সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার নির্দেশ প্রধান করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি জানান, ২১ ফেব্রুয়ারির পর থেকে সাংগঠনিক কাজ শুরু করে আগামী মার্চ থেকে নিরবচ্ছিন্নভাবে সংগঠন শক্তিশালী করতে কাজ করতে হবে। আট বিভাগে যে আটটি টিম রয়েছে আওয়ামী লীগের ওই টিমগুলোকে সফর শুরু করতে নির্দেশ দেন। যেসব জেলা-উপজেলায় সম্মেলন হয়নি তা স¤পন্ন করার কড়া নির্দেশনা দেন তিনি। সফরে সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরা ও বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের কথা জনগণকে জানানোর আদেশ দেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বিএনপি গণতন্ত্র ও নির্বাচনে বিশ্বাস করে না এটা তুলে ধরতে হবে। এ সময় জনগণকে স্মরণ করিয়ে বলতে হবে ২০০১ সালে বিনা রক্তপাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করে আওয়ামী লীগ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। আর বিএনপি ১৯৯৬ সালে ও ২০০৬ সালেও ক্ষমতা ছাড়তে চায়নি। ক্ষমতা আঁকড়ে থাকার সব চেষ্টা করেছে। ওই দলের মুখে গণতন্ত্র ও নির্বাচন নিয়ে এত বড় বড় সবক মানায় না।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, বৃহস্পতিবার সার্চ কমিটির কাছে নাম প্রস্তাব করবে আওয়ামী লীগ। দলের সভাপতিমণ্ডলীর সভায় প্রত্যেক সদস্য তাদের পছন্দের পাঁচজনের নাম কাগজে লিখে খামে ভরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে গোপনে জমা দেন। পরে এ নামগুলো যাচাই-বাছাই করে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনাকে সার্চ কমিটির কাছে পাঠানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। জমা দেওয়া নামগুলো নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়নি বলে জানান জাফরউল্লাহ। অবশ্য তিনি কারও নাম জমা দেননি।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com