1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

দোয়ারায় ১৬ বছর ধরে ছাত্রলীগের কমিটি নেই!

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১

আশিস রহমান ::
সম্মেলন নেই। নেই কোনো সাংগঠনিক কর্মসূচি। টানা ১৬ বছর ধরে নেই কোনো কমিটি। এ অবস্থায় দোয়ারাবাজার উপজেলায় সাংগঠনিক অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে ছাত্রলীগ।
সংগঠন সূত্রে জানাযায়, ১৯৮৮ সালে দোয়ারাবাজার উপজেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা হয়। প্রথম কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন মুজিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমদ তারেক। এরপর ১৯৯২ সালে ফরিদ আহমদ তারেককে সভাপতি ও সায়াদ আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। পরে ২০০৩ সালে সুকেশ রায়কে আহ্বায়ক করে ২১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এরপর ২০০৬ সালে আনোয়ার হোসেনকে সভাপতি ও ফরিদ আহমেদ ইমনকে সাধারণ স¤পাদক করে সর্বশেষ দোয়ারাবাজার উপজেলা ছাত্রলীগের ৫১ সদস্যের কমিটি অনুমোদন করেন তৎকালীন সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তনুজ কান্তি দে ও সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী উজ্জ্বল। এরপর থেকে এখনোব্দি কোনো কমিটি না হওয়ায় উপজেলাজুড়ে ঝিমিয়ে পড়েছে ছাত্রলীগের কার্যক্রম। বর্তমানে নতুন কোনো কমিটি না থাকায় অনেকেই নিজেদেরকে উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক দাবি করছেন। পোস্টার ব্যানারে আহ্বায়ক দাবি করে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করতে দেখা গেছে তাদেরকে। এতে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন সাধারণ কর্মীরা।
ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা জানান, ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নতুন কমিটি করতে হলে প্রথমে পুরাতন কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করতে হয়। ২০০৬ সালের ছাত্রলীগের এই কমিটি এখন পর্যন্ত বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়নি। অনুসন্ধান করে জানা গেছে, এই কমিটির সবাই এখন সংসারী। অনেকে রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে বিভিন্ন পেশায় সম্পৃক্ত হয়েছে, কেউ বিয়ে করে সন্তানের বাবা হয়েছেন আবার কারোর সন্তানও পড়াশোনা করছে স্কুল-কলেজে।
দোয়ারাবাজার উপজেলা ছাত্রলীগের সর্বশেষ কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা কবেই ছাত্ররাজনীতি ছেড়ে দিয়েছি। আমাদের সন্তানরা এখন স্কুল কলেজে পড়াশোনা করে। প্রায় একযুগ ধরে নতুন কোনো কমিটি না হওয়া খুবই হতাশাজনক।
সাবেক সাধারণ স¤পাদক ফরিদ আহমেদ ইমন বলেন, ১৬ বছর আগের আমাদের সেই কমিটি এখনোব্দি কেনো বিলুপ্ত করা হয়নি তা আমার জানা নেই। এতে করে নতুন নেতৃত্ব তৈরি না হলে রাজনীতি আর রাজনৈতিকদের দখলে থাকবে না। রাজনীতি চলে যাবে ব্যবসায়ীদের দখলে। যা আমরা স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোতে লক্ষ করেছি সেখানে ব্যবসায়ীরা নৌকার মনোয়ন পেতে আবেদন করে, অথচ কোনো সাবেক ছাত্রনেতা খোঁজে পাওয়া যায় না। এর দায় আমরা এড়াতে পারিনা।
দোয়ারাবাজার উপজেলা ছাত্রলীগকর্মী তাহের আহমদ মন্টি বলেন, ৩ বছর আগে জেলা থেকে সিভি (জীবন বৃত্তান্ত) চাওয়া হয়েছিল। সিভি জমা দিয়েছি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কমিটি হয়নি। অথচ একই সময়ে আমাদের পার্শ্ববর্তী ছাতক উপজেলা থেকেও জেলায় সিভি জমা নেওয়া হয়েছে এবং সেখানে একটি আহ্বায়ক কমিটিও হয়েছে। আমরা চাই আমাদের উপজেলায় দ্রুত ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়া হোক।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রিপন বলেন, খুব শীঘ্রই দোয়ারাবাজারে ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি দেওয়া হবে। সেজন্য স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের সাথে আমরা সমন্বয় করছি। তিনি আরও বলেন, দোয়ারাবাজারে ছাত্রলীগের কোনো কমিটি নেই। সেখানে কেউ যদি সভাপতি কিংবা আহ্বায়ক দাবি করে তবে সেটা ভুয়া। কেউ এরকম করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনিভাবে ব্যবস্থা নেব।
জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দীপঙ্কর কান্তি দে বলেন, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দ্রুত ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়া হবে। নতুন কমিটি দেওয়ার বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের সাথে পরামর্শ করা হচ্ছে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com