1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

তাহিরপুরে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু হতে কত দেরি?

  • আপডেট সময় বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি ::
তাহিরপুর উপজেলায় নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটির নির্মাণকাজ শেষ হলেও এখনও উদ্বোধন না হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন উপজেলাবাসী। সম্প্রতি ফায়ার সার্ভিসের অভাবে সংঘটিত একাধিক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে বেশ ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীরা। অথচ নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি চালু থাকলে হয়তো ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ অনেকাংশে কমিয়ে আনা যেত বলে মনে করছেন সচেতন মহল।
নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস ভবনটি উপজেলা সদরের তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ সংলগ্ন স্থানে নির্মাণ করা হয়েছে। নির্মাণকাজ চলতি বছরের শুরুর দিকেই শেষও হয়েছে। কিন্তু এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন না হওয়ায় সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এদিকে তাহিরপুরবাসী অধীর আগ্রহে আছেন কবে চালু হবে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কার্যক্রম।
গণপূর্ত বিভাগ কার্যালয় সূত্রে জানাযায়, সিভিল ডিফেন্স স্টেশন প্রকল্পের আওতায় ১৫৬ নং প্রকল্প হিসেবে ২০১৯ সালের শেষের দিকে ২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকার বেশি প্রস্তাবিত মূল্যে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ভবনটির নির্মাণকাজ শুরু হয়েছিল। কাজ সম্পূর্ণ শেষ হয়েছে।
জানাযায়, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে যে কোনো সময় কোথাও আগুন লাগলে বিশ্বম্ভরপুর অথবা সুনামগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাহিরপুর গিয়ে সেই আগুন নেভাতে সাহায্য করেন। কিন্তু বিশ্বম্ভরপুর থেকে তাহিরপুর যেতে যে সময় লেগে যায় ততক্ষণে আগুনে সব শেষ হয়ে পড়ে। ফলে তাৎক্ষণিকভাবে সেবা না পাওয়ায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে আছে মানুষের জীবনের ঝুঁকিও। সম্প্রতি উপজেলার বাদাঘাট বাজার ৫টি গুদামঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে ১৫ লাখ টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে। এরপূর্বে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম সংলগ্ন তিনটি দোকান আগুনে পুড়ে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। এছাড়াও গত ১০ বছরে এ উপজেলায় অগ্নিকাণ্ডে প্রায় কোটি টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
উপজেলা সদর বাজারের ব্যবসায়ী সাদেক আলী, সামায়ুন, অনির্বাণসহ অনেকেই জানান, উপজেলায় নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটির নির্মাণকাজ শেষ এখন যত দ্রুত সম্ভব চালু করা প্রয়োজন। বিপদ কখন আসে বলা যায় না। ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু করা হলে, সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে সতর্ক থাকলে ও প্রস্তুতি নিয়ে রাখলে ক্ষতির সম্মুখিন হতে হবে না।
বাদাঘাট বণিক সমিতির সভাপতি সেলিম হায়দার ও সাধারণ সম্পাদক মাসুক মিয়া জানান, উপজেলার নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশন দ্রুত চালু করা প্রয়োজন। সম্প্রতি ৫টি দোকান আগুনে পুড়ে যায়। এরপূর্বেও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু থাকলে এতো ক্ষতি হতো না। তাই যত দ্রুত সম্ভব ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু করার দাবি জানাই।
ফায়ার সার্ভিস ভবন নির্মাণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার রেজাউল করিম বলেন, ভবনটির নির্মাণকাজ সম্পূর্ণ শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ নতুন ভবন পরিদর্শন করেছেন। একটি কমিটি গঠন করা হবে। আমরা হস্তান্তর করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি।
গতপূর্ত বিভাগের উপবিভাগীর প্রকৌলশী আশরাফুল আলম জানান, নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটির দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার নির্মাণকাজ শেষ করলেও আমাদের কাছে এখনও হস্তান্তর করেননি। হস্তান্তর করলেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রায়হান কবির বলেন, ফায়ার সার্ভিসের ভবনটি এখনও আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়নি। আশা করছি শিগগির এটি হস্তান্তর করা হবে। আমরা হাতে পেলেই উদ্বোধনের জন্য উদ্যোগ নেব। নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি চালু হলে উপজেলাবাসীর উপকারে আসবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com