1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

জাউয়াবাজারে অব্যবস্থাপনা : জলাবদ্ধতায় চরম ভোগান্তি

  • আপডেট সময় শনিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২১

পীর জুবায়ের ::
সিলেট-সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের উপরে বোকা নদীর তীর ঘেঁষে অবস্থিত জেলার অন্যতম বৃহত্তম জাউয়াবাজার। ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে যুগ যুগ ধরে ঐতিহ্য আর প্রসিদ্ধতা থাকায় দৈনন্দিন নিত্যপ্রয়েজনীয় সাংসারিক, ব্যবসায়িক পণ্য কেনা-বেচার অন্যতম ভরসাস্থল এই বাজার। ফলে প্রতিদিনই ক্রেতা-বিক্রতার সমাগম ঘটে বাজারটিতে।
জানাযায়, সরকার প্রতি বছর জাউয়াবাজার ইজারা দিয়ে দেড় কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করলেও বাজার অব্যবস্থাপনা, ড্রেনেজ সংকটসহ নানা সমস্যা বিরাজমান। ফলে বাজারে আসা সাধারণ ক্রেতা-বিক্রেতাসহ ব্যবসায়ীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিনে দেখাযায়, বাজারের গরুর হাটে জমে আছে ময়লা দুর্গন্ধযুক্ত পানি। চারদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে আবর্জনা। ড্রেনে পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে সেখানে মশাসহ পোকা মাকড়ের আবাসস্থল হয়ে উঠেছে।
অপরদিকে, একটু বৃষ্টি হলেই সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। স্থানীয়রা জানান, ড্রেনেজ সিস্টেম ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় বাজারের প্রতিটি গলিতে পানি জমে। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় বাজারে আসা ক্রেতা-বিক্রেতাসহ ব্যবসায়ীদের।
আব্দুল আলিম জানান, আমি অস্থায়ী সবজি ব্যবসায়ী। প্রতি হাটবারে এখানে আসি পণ্য বিক্রি করতে। কিন্তু যেখানে বসি সেখানে অপরিষ্কার থাকার কারণে ভয় হয়- কখন যে কোন রোগে আক্রান্ত হয়ে যাই।
ব্যবসায়ী সমির আলী জানান, গরু বিক্রি করতে প্রতি বাজার বারে এখানে আসি। কিন্তু এসব দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা পানির উপর দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। তখন ভয় হয় ডেঙ্গু মশা কামড় দেয় কিনা।
সূত্র জানায়, বাজার প্রতিবছর যে পরিমাণ টাকায় ইজারা দেয়া হয় তা থেকে ১৫% বাজার সংস্কারেরজন্য এবং ২% পরিচ্ছন্নতা ব্যয়েরজন্য বরাদ্দ রাখা হয়। বাজারের ইজারা থেকে সংস্কারের জন্য বরাদ্দকৃত টাকা বাজার উন্নয়নের জন্য খরচের কথা থাকলেও বিগত তিন বছরের ইজারা থেকে বরাদ্দকৃত টাকা বাজারের কোনো সংস্কারে ব্যবহার হচ্ছে না।
ব্যাবসায়ীদের অভিযোগ, দেড় কোটি টাকায় বাজার ইজারার যে পরিমাণ টাকা সংস্কারের জন্য বরাদ্দ রয়েছে তা বাজারের উন্নয়নের স্বার্থে খরচ করা হচ্ছে না। যার ফলে বাজার অব্যবস্থাপনা, অপরিচ্ছন্নতাসহ নানা সমস্যায় দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।
জাউয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আছাদুর রহমান জানান, ড্রেনেজ ব্যবস্থা সংকট থাকায় বৃষ্টি হলে বাজারের প্রতিটি গলিতে পানি জমে যায়। যার ফলে ময়লা পানিতে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। ফলে ব্যবসায়ীদের ব্যবসা করা অসহ্য হয়ে দাঁড়ায়। তাছাড়া আবর্জনা ও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় সেখান থেকে মশার জন্ম হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। এতে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ক্রেতারাও চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকতে হচ্ছে। তিনি আরও জানান, ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে বাজারে অনেক উন্নয়নকাজ প্রয়োজন। বাজারের ভিতরে ২টি বাথরুম থাকলেও একটি ব্যবহারের অনুপোযোগী আর আরেকটি পানি সংকট থাকায় ব্যবসায়ী, কর্মচারীদের জন্য গোসলসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
জাউয়াবাজার উন্নয়নে নিয়োজিত সংশ্লিষ্টরা জানায়, ইজারা থেকে বাজারের জন্য বরাদ্দকৃত টাকা থেকে বাজারের ভেতরে ইউনিয়ন পরিষদের সমন্বয়ে একটি আধুনিক বাথরুম নির্মাণসহ কিছু কাজ করা হয়েছে। নির্মাণ করা বাথরুমে যদি পানি সংকট থাকে তাহলে তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।
ইজারাদার শাহীন তালুকদার বলেন, আমরা সবসময় চেষ্টা করি বাজার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার। এ লক্ষ্যে আমরা আগামী সপ্তাহখানেকের মধ্যে বালু ও মাটি ফেলে জলাবদ্ধতা সমস্যা নিরসন ও ড্রেনে পানি নিষ্কাশনের সমস্যা সমাধান করবো।
ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com