1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বিশ্বম্ভরপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণ

  • আপডেট সময় রবিবার, ২০ জুন, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ::
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের পলাশ বাজারে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে একটি চক্র সংখ্যালঘু পরিবারের ভিটাভূমিতে জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ করছে। এরই প্রতিবাদে ভূমির মালিক দাবিদার পলাশ ইউনিয়নের মাঝাইর গ্রামের মৃত ঠাকুর মণি দাস-এর পুত্র তপন চন্দ্র দাশ সংবাদ সম্মেলন করে ওই চক্রের পলাশ গ্রামের মৃত আব্দুল আওয়ালের পুত্র জুয়েল মিয়া ও মামুন মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। শনিবার সকালে দৈনিক সুনামকণ্ঠ কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন তপন চন্দ্র দাশ। তিনি বলেন, তপশীল ভূমি মৌজা মাঝাইর, জেএলনং-৩১৪ আরএস ডিপি ৬৩৯, দাগ নং- ৯৬৯, আর.এস ২২৬৭, পরিমাণ ৫৮ শতক ভিট রকম ভূমির মধ্যে উত্তর পশ্চিমাংশে ১৮ শতক ভিট রকম ভূমিতে জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ শুরু করা হয়েছে, যা আজো অব্যাহত আছে। বিবাদী পক্ষের এহেন কর্মকাণ্ডে আমরা আইনের দোহাই দিয়ে বাধা দিলে তারা আমাদেরকে হুমকি প্রদান করছে। এই অবস্থায় আমি অসহায় হয়ে পড়েছি।
তপন চন্দ্র দাশ বলেন, আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। সুনামগঞ্জ আদালতে মামলা করেও ভূমিখেকো চক্রের হিংস্র থাবা থেকে নিজেদের স্বত্ব দখলীয় ভূমি রক্ষা করতে পারছি না। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সুনামগঞ্জ জেলা দেওয়ানী আদালতে উক্ত ভূমি বিষয়ে একটি বাটোয়ারা মামলা দায়ের করি যার নং – ৯৪/১৯। তারপরেও উক্ত ভূমিখেকোরা জোরপূর্বক উক্ত জমি দখলের পাঁয়তারা করায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত সুনামগঞ্জে ফৌজদারি কা: বি: ১৪৪ ধারায় বিবিধ মামলা নং-১৬১/২০২১ইং (বিশ্বম্ভরপুর) দায়ের করার পর, বিজ্ঞ আদালত শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় উভয়পক্ষকে নোটিশ প্রদান করেন এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিশ্বম্ভরপুরকে রির্পোট প্রদানের জন্য বলেন। সেই মোতাবেক সহকারী কমিশনার বিশ্বম্ভরপুর একটি তদন্ত রিপোর্ট কোর্টে দাখিল করেন। বর্তমানে কোভিড-১৯ এর কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় এই বিষয়ে পরবর্তী কোন আদেশ পাওয়া যায়নি। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমরা বিরত রয়েছি। এই জমি সংক্রান্ত বিষয়ে গত ১৪ জুন ২০২১ইং তারিখে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অর্ফিসার মো. সাদিউর রহিম জাদিদ বর্ণিত বিষয় নিয়ে একটি শুনানীর জন্য আমাকে নোটিশ প্রদান করেন। আমি উক্ত শুনানীতে অংশগ্রহণ করে উক্ত জমিসংক্রান্ত বিষয়ে আদালতে মামলা চলমান আছে বলে জানাই। পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উক্ত ১৪ জুনের শুনানী শেষে আদেশের দোহাই দিয়ে পরের দিন আমাদের প্রতিপক্ষ জুয়েল ও মামুন আইনের প্রতি তোয়াক্কা না করে আমাদের ভূমিতে ঘর নির্মাণ শুরু করে যা অদ্যাবধি অব্যাহত আছে। আমরা আইনের দোহাই দিয়ে ঘর নির্মাণে বাধা দিলে পাল্টা আমাদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। আমরা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচারপ্রার্থী।
অভিযোগের ব্যাপারে জানতে জুয়েল মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিরোধীয় ভূমিতে আমরা ৫০বছর ধরে দখলে আছি। এই ভূমি আমাদের রেকর্ডিয় ভূমি। এ জন্য আমরা ঘর নির্মাণ করছি।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com