1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের পাঁয়তারা

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৮ জুন, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি ::
৩২ বছর আগে সরকারি খাসভূমি বন্দোবস্ত পাওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধাকে তার দখলীয় ভূমি থেকে উচ্ছেদ করে একটি চক্র সেখানে হঠাৎ করে মসজিদের নামে দিয়ে দেবার করার চেষ্টা চলছে। উচ্ছেদ না করতে পেরে একটি চক্র এখন বীর মুক্তিযোদ্ধার ভূমি জোরপূর্বক মসজিদের নামে দিয়ে দেয়ার চেষ্টার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন। দখলে বাধা দেয়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারকে মারধর করেছে সাম্প্রদায়িক চক্র। হেল্পলাইন ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে আইনগত সহায়তা চাওয়ার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করে। এ ঘটনায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন ২১ জনের বিরুদ্ধে ৬ জুন রাতে তাহিরপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
পুলিশ, লিখিত অভিযোগ ও মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ৪ জুন তাহিরপুর উপজেলার লাকমা গ্রামে বৈঠক করে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেনের বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায় একই গ্রামের বাচ্চু মিয়া, সাহাব উদ্দিন, সুলতান মিয়া, মহর উদ্দিন, সুরুজ মিয়া, বাবুল মিয়া, আব্দুস ছাত্তার, মুক্তা মিয়া, রতন মিয়া, শিব্বির মিয়া, জামাল মিয়া, রিফাত মিয়া, আব্দুল জহুর, সাদ্দাম, আলাল উদ্দিন, দুলু মিয়া, কামরুল, শাফি উদ্দিন, সুমন, মইনুল, সাদেকসহ গ্রামের একটি পক্ষ। তারা বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন, তার স্ত্রী মিলন বিবি, পুত্র রেজুয়ান, কন্যা আমেনা আক্তার, নাতিন সুইটি আক্তার, আনজুমা আক্তার, আবু সুফিয়ানকে মারধর করে। মারধরের সময় হেল্পলাইন ৯৯৯ নম্বরে ফোন করার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
অভিযোগ থেকে জানা গেছে, ৩২ বছর আগে মূল্যহীন ভূমি ওই বীর মুক্তিযোদ্ধা বন্দোবস্ত পেয়ে পরিশ্রমের মাধ্যমে মূল্যবান করেছেন। ফলে এই ভূমি দখলে নজর পড়ে একই গ্রামের বাচ্চু মিয়ার। সে জায়গা দখল করতে না পেরে সাম্প্রদায়িকতার আশ্রয় নেয়। অবশেষে দখল করতে ব্যর্থ হয়ে ওই জমি মসজিদের নামে পাইয়ে দেওয়ার পাঁয়তারা করে। তার সঙ্গে যোগ দেয় সাম্প্রদায়িক একটি গোষ্ঠী। গত শুক্রবার তারা আনুষ্ঠানিক বৈঠক করে জোরপূর্বক মসজিদের নামে জায়গা দখল করতে গেলে বাধা দেন দরিদ্র বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবার। হামলাকারীরা এসময় তাকে ও তার পরিবারের ৫ সদস্যকে মারধর করে। আহতরা সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাহিরপুর থানার বড়ছড়া মৌজার ১৯৮নং জেএলস্থিত ১ নং খতিয়ানের এস.এ ৩/৯১৭,৩১/৮২১ নং দাগভুক্ত ২.০০ একর জমি ১৯৮৯ইং সনে ১৬২৯/৮৯নং বন্দোবস্ত মোকদ্দমামূলে গত ২২/০১/১৯৯৫ইং তারিখে ২৭৬ নং দলিল সম্পাদন করেন। পরে ৫৪১/৯৫-৯৬ নং নামজারি মোকদ্দমামূলে বন্দোবস্ত প্রাপ্ত হয়ে পরিবার নিয়ে ভোগ দখল করে আসছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন। এর আগে ২০১৪ সনেও জোরপূর্বক মুক্তিযোদ্ধার জায়গা দখল করার চেষ্টা করে বাচ্চু মিয়া চক্র। কিন্তু সামাজিক বাধায় পিছিয়ে আসে। ২০১৪ সনের ১৩ নভেম্বর তার নামে থানায় আরেকটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন।
সম্প্রতি বাচ্চু মিয়া সাম্প্রদায়িক একটি চক্রকে সহযোগী করে সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষের আবেগকে কাজে লাগিয়ে এবার ভূমি দখল করে মসজিদের নামে দেওয়ার ষড়যন্ত্র শুরু করে। বিষয়টি বুঝতে পেরে বীর মুক্তিযোদ্ধা গত ১ জুন জেলা প্রশাসক বরাবরে ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগের বিষয়ে জানতে পেরে শুক্রবারে গ্রামের মসজিদে কথিত সালিশ বসিয়ে জোরপূর্বক মুক্তিযোদ্ধার জায়গা দখল করতে আসে বাচ্চু মিয়া ও তার লোকজন। মুক্তিযোদ্ধা বাধা দিলে তার বসতঘরে হামলা চালায় এবং তাকেসহ পরিবারের লোকদের মারধর করে। বীর মুক্তিযোদ্ধার ছেলে রেজোয়ান ওই চক্রের অন্যায় কাজের ভিডিও ধারণ করতে গেলে তাকে মেঝেতে ফেলে বেধড়ক মারধর করে।
ইউপি সদস্য মো. জম্মাত আলী বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধার সঙ্গে এমন অন্যায় আচরণের নিন্দা জানাই। তিনি বলেন, মসজিদ আল্লাহর ঘর। আল্লাহর ঘরের জন্য কেউ স্বেচ্ছায় জায়গা না দিলে জোরপূর্বক নেওয়ার সুযোগ নেই। যারা এসব কাজ করছে তারা ধর্মের বাণী না জেনেই এসব অন্যায় কাজ করছে।
আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জাহান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা তার পরিবারের উপর হামলা ভাংচুর লুটতরাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ঘটনাটি জানামাত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ওসি সাহেবকে ঘটনার কথা অবগত করে এ ব্যাপারে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছি।
তাহিরপুর থানার ওসি মো. আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, ৯৯৯ নম্বরে অবগত হয়ে আমার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। তিনি বলেন, ৩২ বছর আগে বন্দোবস্ত পাওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি মসজিদের নামে দিয়ে দিতে চায় কিছু মানুষ। আমরা তাদেরকে জোরজবরদস্তি না করার নির্দেশ দিয়ে এসেছি। বীর মুক্তিযোদ্ধার একটি লিখিত আবেদন পেয়েছেন বলে স্বীকার করেন তিনি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com