1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ১১:১৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

বাড়তি ভাড়া নিয়েও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

  • আপডেট সময় শনিবার, ২৯ মে, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ::
দেশে দ্বিতীয় ধাপে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঢেউ চলছে। তবে কয়েক ধাপে লকডাউন চলমান থাকায় কমে আসছে সংক্রমণ। করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। তবে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করেই সুনামগঞ্জে চলছে গণপরিবহন। যাত্রীদের মাস্ক পরার কোন বালাই নেই। হ্যান্ড স্যানেটাইজার ব্যবহারতো হচ্ছেই না। নির্ধারিত সিটের অতিরিক্ত নেয়া হচ্ছে যাত্রী। এরপরও আদায় করা হচ্ছে বাড়তি ভাড়া।
জানাযায়, পরিবহন খাতে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অতিরিক্ত ৬০% ভাড়া আদায় এবং ধারণক্ষমতার ৫০ ভাগের অধিক যাত্রী বহন না করতে নির্দেশনা থাকলেও এটি চালক-যাত্রী কেউই মানছেন না। সকল গণপরিবহনে ৬০% ভাড়া বৃদ্ধি করে সামাজিক দূরত্ব, স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশনা আরোপ করা হলেও সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কসহ আভ্যন্তরীণ সড়কে মানা হচ্ছে না সেই নির্দেশনা। যাত্রীদের কাছ থেকে ৬০% ভাড়া অতিরিক্ত আদায় করা হলেও জোড়া আসনে বহন করা হচ্ছে যাত্রী।
জেলার আভ্যন্তরীণ সড়কে পরিবহনে সামাজিক দূরত্বের কোনো বালাই নেই। সিএনজিতে ৫ জন, লেগুনায় ১২-১৪ জন করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে। নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে ইচ্ছে মতো আদায় করা হচ্ছে ভাড়া। এতে যাত্রীরা যেমন ভোগান্তিতে পড়ছেন, তেমনি বাড়ছে সংক্রমণ ঝুঁকি।
শুক্রবার সন্ধ্যায় সিলেট ও সুনামগঞ্জগামী লোকাল বাস সার্ভিস রাহাত পরিবহনের ৩৬ আসনেই লোকবহন করতে দেখা যায়। যাত্রীদের কাছ থেকে গন্তব্যে পৌঁছতে ৬০% অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হয়। অতিরিক্ত ভাড়া ও প্রতিটি আসনে যাত্রী নেয়ায় হেলপারের সাথে সচেতন যাত্রীদের বাকবিতণ্ডা হয়। ৬০% ভাড়া আদায় করলেও জোড়া আসনে কেন যাত্রী বহন করা হচ্ছে এমন প্রশ্ন করা হলে হেলপার বলেন, যাত্রীদের সাথে কথা বলেই তাদের উঠানো হয়েছে। গাড়িতে উঠে অনেকেই ভাড়া নিয়ে ভেজাল করে।
নূর আলী নামে এক যাত্রী বলেন, আমি সুনামগঞ্জ যাব, আমার কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হয়েছে। আমার পাশে আরেকজন বসানো হয়েছে। সব সিটের একই অবস্থা। গণপরিবহনে সামাজিক দূরত্ব, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে প্রশাসনের নজরদারি প্রয়োজন।
সুহেল মিয়া নামে এক যাত্রী বলেন, আমি পাগলা থেকে এক সিএনজিতে উঠছিলাম সুনামগঞ্জে যাবো। আমার কাছ থেকে ৫০ টাকা ভাড়া রাখা হয়েছে। সিএনজিতে ৫ জন যাত্রী বহনের কথা জানান তিনি।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাস মালিক সমিতির এক নেতা বলেন, বিআরটিসি তাদের বাসে জোড়া সিটে লোক বহন করছে। তাদের দেখাদেখি আমাদের লোকাল বাসগুলোতে জোড়া সিটে লোক উঠাচ্ছি। তবে আমাদের গেইটলক সার্ভিসে প্রতি সিটে একজন যাত্রী বহন করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে বিআরটিএ-এর মোটরযান পরিদর্শক সফিকুল ইসলাম রাসেল বলেন, পরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে আমাদের মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত থাকবে। আর ট্রাফিক সড়কে মনিটরিং করবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com