1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৯ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

খুনের পর লাশ ৬ টুকরো করে ভাসিয়ে দেয়া হয় বিলে : ৬ জন কারাগারে

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৬ মে, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ::
দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের মঙ্গলপুর গ্রামের একটি বিল থেকে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধারের ঘটনায় এক নারীসহ ৬ জনকে আটক করেছেন র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা। মঙ্গলবার (৪ মে) র‌্যাব সদস্যরা দিরাইয়ের বিভিন্ন এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটককৃতদের দিরাই থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
আটককৃতরা হল ইসলামপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাইয়ুমের স্ত্রী আল বাহার বেগম (৩৫), ভাঙ্গাডহর গ্রামের মৃত জলধর দাসের সত্যরঞ্জন দাস (৫৫), নরোত্তমপুর গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে নাসির উদ্দিন (৩৫), দাউদপুর গ্রামে মৃত তোয়াহিত মিয়ার ছেলের নাজমুল হুসাইন (৪৯), নরোত্তমপুর গ্রামের মুসলিম উল্লাহ’র ছেলে লুৎফর রহমান (৩৫) ও ভাঙ্গাডহর গ্রামের মকবুল আলীর ছেলে আ. মালেক (৩০)।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের মঙ্গলপুর গ্রামের বিল হতে দুদু মিয়া (৪৫) নামে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করছিল পুলিশ। এই ক্লুলেস হত্যাকাণ্ডের মূল রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য র‌্যাব ছায়া তদন্ত শুরু করে। পরবর্তীতে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯ এর একটি আভিযানিক দল সুনামগঞ্জের দিরাই থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। গত মঙ্গলবার সকালে ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে আটক করে।
র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জ ক্যা¤েপর অধিনায়ক লে. কমান্ডার সিঞ্চন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়- আটককৃত ৬ জন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দাউদপুর গ্রামের মো. কবির হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে। দুদু মিয়ার সঙ্গে কবিরের আর্থিক লেনদেন নিয়ে শত্রুতার জের এবং দুদু কর্তৃক কবিরকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও অপমানিত হওয়ার জেরে কবির সহযোগীদের নিয়ে দুদুকে হত্যা করে। পরে লাশ কেটে টুকরো টুকরো করে বিলে ফেলে দেয়। ঘটনায় জড়িত সন্দেহদের আটক করা হলেও মূল হোতা আটককৃত নাজমুলের ভাই কবির মিয়া ও তার সহযোগী ভাঙ্গাডহর গ্রামের দোলন মিয়া পলাতক রয়েছে। আটককৃত আসামিদের দিরাই থানার মামলা নং-০১, তারিখ ০৪/০৫/২০২১ ইং, ধারা ঃ ৩০২/২০১/৩৪ মূলে হস্তান্তর করা হয়ছে। দিরাই থানার এসআই আজিজুর রহমান অজ্ঞাতনামা লাশের টুকরো উদ্ধার ও জড়িত ৬ জন আটকের ঘটনায় বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আজিজুর রহমান জানান, গত ১ মে বিল থেকে ৬ টুকরো অজ্ঞাতনামা লাশটি নিখোঁজ দুদু মিয়ার হতে পারে বলে সন্তানদের দাবি। তবে ডিএনএ টেস্ট ছাড়া নিশ্চিত হওয়া যাবে না। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে র‌্যাব ৬ জনকে আটক করে মঙ্গলবার (৪ মে) আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে। আমরা তাদের বুধবার আদালতে সোপর্দ করেছি। আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।
উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল রাতে দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের মঙ্গলপুর গ্রামের বিলের একটি ডোবা থেকে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন সকালে এলাকার একটি পুকুর পাড় থেকে লাশের ক্ষতবিক্ষত মাথা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত লাশের পরিচয় জানা যায়নি। তবে পুলিশ ও স্থানীয়রা ধারণা করছিলেন টুকরো টুকরো লাশগুলো মঙ্গলপুর গ্রামের নিখোঁজ দুদু মিয়ার। কেননা, ২৯ এপ্রিল (মঙ্গলবার) দুপুর ২টা থেকে নিখোঁজ ছিলেন দুদু মিয়া (৪১)। উদ্ধারকৃত লাশের পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখে সন্তানরা দুদু মিয়ার লাশ বলে দাবি করেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com