1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৫ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

ধানের ন্যায্যমূল্য নিয়ে শঙ্কা

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১

শহীদনূর আহমেদ ::
সুনামগঞ্জের হাওরে হাওরে ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। ধান মাড়াইয়ের পর শুকানোসহ প্রক্রিয়াজাতকরণের যাবতীয় কাজ চলছে। এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় হাওরপাড়ে ‘ঈদের আনন্দ’ বিরাজ করছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে দ্রুত সময়ের মধ্যে ফসল ঘরে উঠবে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। তবে, ফলন ভালো হলেও ধানের ন্যায্যমূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা। হয়রানি ছাড়া ন্যায্যমূল্যে ধান বিক্রয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন হাওরপাড়ের চাষীরা। তবে বরাবরের মতো কৃষককে প্রাধান্য দিয়ে সরকারিভাবে কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা হবে বলে জানিয়েছে জেলা খাদ্য বিভাগ।
সুনামগঞ্জে এবার ২ লাখ ২৩ হাজার ৩৩০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে বোরো ধান। ফলন ভালো হওয়ায় আবাদকৃত জমিতে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছে কৃষি বিভাগ। যা চালের দিক দিয়ে উৎপাদন ধরা হয়েছে ৯ হাজার মেট্রিক টন। এদিকে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় দ্রুত সময়ে ধান ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন সুনামগঞ্জের কৃষক-কৃষাণীরা। গত বুধবার পর্যন্ত জেলার হাওর অঞ্চলের প্রায় ৪৭ ভাগ জমির ধান কাটা হয়েগেছে বলে তথ্য নিশ্চিত করেছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। আর সপ্তাহ-দশদিন আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে নিরাপদে ধান ঘরে তোলা যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
অপরদিকে ধানের ভালো ফলনে কৃষকদের মধ্যে খুশির আমেজের পাশাপাশি ন্যায্যমূল্যে ধান বিক্রয় নিয়ে শঙ্কাও দেখা দিয়েছে। দালাল, ফড়িয়া, মধ্যস্বত্বভোগী এবং হয়রানি ছাড়া ন্যায্যমূল্যে সরকারিভাবে ধান বিক্রয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন চাষীরা।
আকবর আলী নামে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের এক কৃষক বলেন, এবার ধানের ফলন ভালো হয়েছে। তবে ধান কাটা, মাড়াই ও খলায় নিয়ে আসতে অনেক টাকা খরচ হয়েছে। যদি ধানের দাম ভালো না পাই তাহলে লাভবান হওয়া যাবে না।
হাবিজুর রহমান নামে আরেক কৃষক বলেন, সরকার প্রতি বছরই ধান ক্রয় করে। গুদামে ধান নিয়ে গেলে নানা হয়রানির শিকার হতে হয় আমাদের। দালাল, ফড়িয়াদের খপ্পরে পড়ে ধানের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হন কৃষকরা।
মধ্যস্বত্বভোগীদের প্রশ্রয় না দিয়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে অস্থায়ী গোডাউন নির্মাণ করে সরকারিভাবে ন্যায্যমূল্যে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের দাবি কৃষক ও হাওর সংশ্লিষ্ট সংগঠনের নেতাদের।
হাওর বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক বিজন সেন রায় বলেন, এবার সুনামগঞ্জে ধানের ফলন আশানুরূপ হয়েছে। মধ্যস্বত্বভোগীদের প্রশ্রয়-আশ্রয় দিলে কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। ইউনিয়ন পর্যায়ে অস্থায়ী গোডাউন নির্মাণ করে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে ধান কিনতে হবে। তানা হলে কৃষকরা লাভবান হতে পারবেন না।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. ফরিদুল হাসান বলেন, হাওর অঞ্চলে প্রায় অর্ধেকের কাছাকাছি ধান কাটা শেষ। কৃষকরা দ্রুত ধান কাটছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে কৃষকরা নিরাপদে ধান ঘরে তুলতে পারবেন। সারপ্লাস জেলা হিসেবে সুনামগঞ্জে ধান উৎপাদনের উপর নির্ভর করে কৃষকের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে সরকার ধান ক্রয় করবে বলে জানান কৃষি বিভাগের এই কর্মকর্তা।
জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক নকীব সাদ সাইফুল ইসলাম বলেন, সরকার কৃষি খাতে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। বরাবরের মতো এবারও কৃষক ও কৃষিকে গুরুত্ব দিয়ে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করবে সরকার। আশা করছি সপ্তাহখানেক সময়ের মধ্যে ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা আমাদের জানানো হবে। নির্দেশনা পাওয়ার পর ধান ক্রয় শুরু করা হবে।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com