1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১১:৫৩ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

নিরীহ পরিবারের উপর হামলা : আহত ৪, গ্রেফতার ২

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১

তাহিরপুর প্রতিনিধি ::
তাহিরপুরে নিরীহ পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় ৪ জন আহত হয়েছে। বুধবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের টাকাটুকিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। হামলায় আহতদেরকে প্রথমে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে গুরুতর আহত তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। আহতরা হলেন উপজেলার দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের টাকাটুকিয়া গ্রামের দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে বাছিন্দ্র বর্মণ (৪৫), তার স্ত্রী বিউটি রাণী বর্মণ (৩২), ছেলে বাবলু বর্মণ (১৫), ভাই সঞ্জিত বর্মণ (২৪)। অপরদিকে, ঘটনার পরপর তাহিরপুর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুজনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হল টুকেরগাঁও গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে শহিদ মিয়া (৫০) ও সিরাজ মিয়া (৪৫)।
দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে সত্যেন্দ্র বর্মণ জানান, বুধবার সকালে তার ভাই সঞ্জিত বর্মণ টুকেরগাঁও তার মামার জায়গা থেকে মাটি আনতে যায়। এ সময় টুকেরগাঁও গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে বিল্লাল মিয়া (৬৫), তার ছেলে মুছা মিয়া (২১), শহীদ মিয়ার ছেলে রুহিত মিয়া (২২), মুক্তার মিয়ার ছেলে কাশেম মিয়া (২১)সহ কয়েকজন পূর্ব বিরোধের জের ধরে তাকে গালমন্দ ও মারপিট করে। পরে বিল্লাল মিয়ার নেতৃত্বে ৬০-৭০ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সঞ্জিতদের বাড়িতে গিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। হামলায় বাছিন্দ্র বর্মণ, বিউটি রাণী বর্মণ, বাবলু বর্মণ ও সঞ্জিত বর্মণ আহত হন। আহত অবস্থায় বাছিন্দ্র বর্মণ ও তার ছেলে বাবলু দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় তাদের পিছু ধাওয়া করে শ্যামল আচার্য্যরে বাড়ির সামনে গিয়ে তাদেরকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে যায় হামলাকারীরা।
সত্যেন্দ্র বর্মণ আরও জানান, বাড়িতে থাকা দুই মেয়েকেও মারপিট করেছে তারা।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, স্কুল কলেজ থেকে আসা যাওয়ার পথে টুকেরগাঁও গ্রামের বিল্লাল মিয়ার ছেলে মুছা মিয়া (২১)সহ কয়েকজন সত্যেন্দ্র বর্মণের পরিবারের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করতো। এঘটনায় এলাকায় সালিশও হয়েছে কয়েক বার। মূলত এ ঘটনার জের ধরেই বুধবারের হামলার ঘটনা ঘটেছে।
অভিযোগের ব্যাপারে বিল্লাল মিয়া বলেন, সংঘর্ষের সময় আমি হাওরে ছিলাম। তাছাড়া সংঘষের্র ঘটনায় মুক্তার মিয়ার দুই ছেলে পাবেল মিয়া (২৫), আবুল কাসেম (২২) ও শহিদ মিয়ার ছেলে আলাল মিয়াও আহত হয়েছে।
এ ঘটনায় বুধবার রাতে টাকাটুকিয়া গ্রামের দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে সত্যেন্দ্র বর্মণ (৩৭) বাদী হয়ে টুকেরগাও গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে বিল্লাল মিয়া (৬৫)সহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে তাহিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। বুধবার রাতে মামলা দায়েরের পরপরই তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদারের নেতৃত্বে ও এসআই মোহাম্মদ শাহাদৎ হোসেন, এসআই সুজন শ্যাম, এএসআই রাজু কুমার বিশ^াসের সহযোগিতায় পুলিশের একটি দল উপজেলার আনোয়ারপুর এলাকা থেকে মামলার এজাহার নামীয় দুই আসামি টুকেরগাঁও গ্রামের মৃত ফালু মিয়ার ছেলে শহিদ মিয়া (৫০) ও সিরাজ মিয়া (৪৫)কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।
তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ তরফদার বলেছেন, অন্য আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com