1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

দয়া করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের হার ও সংক্রমণজনিত মৃত্যু সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সারাদেশে সর্বাত্মক ও কঠোর লকডাউন চলছে গত বুধবার (১৪ এপ্রিল ২০২১) থেকে। কিন্তু অভিজ্ঞ মহলের ধারণা লকডাউন করোনা-সংক্রমণরোধে খুব বেশি একটা কার্যকর ভূমিকা রাখার পর্যায়ে পর্যবশিত হতে পারবে না। এর বিভিন্ন কারণ অবশ্যই আছে। কেউ কেউ মনে করছেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ হামলে পড়ার আশঙ্কাকে সামনে রেখে দেশে যে-ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া দরকার ছিল সে-ধরনের প্রস্তুতিমূলক সার্বিক ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন করা সম্ভব হয় নি। এই কারণে বর্তমানে করোনার দ্বিতীয় আক্রমণ শুরু হতে না হতেই বিপদ-বিপন্নতা আরও ভয়ঙ্কর আকারে বেড়েছে। মোটকথা আগে থেকেই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ ও চিকিৎসাসুযোগ বৃদ্ধি করার যে-সুযোগ মিলে ছিল সে-সুযোগটাকে ব্যবহার করা হয় নি, অথচ সুযোগটাকে ব্যবহার করা সম্ভব ছিল। অবগত হওয়া যায় যে, গত বছর তাৎক্ষণিক প্রচেষ্টায় করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য যে-অবকাঠামোগত সুবিধা তৈরি করা হয়েছিল সেটাকেও দ্বিতীয় আক্রমণের আগে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে মাস্ক পরিধান করার সাধারণ প্রতিরোধক ব্যবস্থাটির প্রতিও সাধারণ মানুষ নিতান্তই উদাসীন। এই পরিস্থিতিতে কীভাবে কোভিড-১৯কে প্রতিরোধ করা সম্ভব সেটা কীছুতেই বোধগম্য নয়। অথচ বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা আর কীছু না হোক অন্তত মাস্ক পরিধান নিশ্চিত হলে করোনা-প্রতিরোধের কাজ সার্বিক বিবেচনায় অনেকটাই কার্যকর অবস্থায় পর্যবশিত হতে পারে এবং এই পদ্ধতিতে সংক্রমণের হার অনেকটা সহনীয় মাত্রায় নেমে আসার সম্ভাবনাকে নিশ্চিত করতে পারে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। পত্রিকান্তরে এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, মাস্ক পরিধান না করার জন্য কোথাও কোথাও দুয়েকজনকে জরিমানা করা হয়েছে, এমন কি বেআইনিভাবে দেওয়া হয়েছে পিটুনি। কিন্তু মাস্ক না পরার জন্য এইমতো ক্ষেত্র বিশেষে জরিমানা করার আইন কার্যকর করা হলেও দেশের সর্বত্র যত্রতত্র সেটাকে কার্যকর করা যায়নি। এই পরিপ্রেক্ষিতে বিদগ্ধ মহলের ধারণা, অন্তত প্রাথমিকভাবে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জাতিগতভাবে সক্ষম হতে গেলে মাস্ক পরিধানের ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে অবশ্যই কঠোরভাবে সচেতন হতে হবে। তাঁরা মনে করেন, জনগণকে মাস্ক পরিধান করতে বাধ্য করতে আইন প্রয়োগে বরাবরের মতো শৈথিল্য প্রদর্শনের কারণে সংক্রমণ বাড়ছে এবং বাড়ছে মানুষের মৃত্যু। সুতরাং করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারে, স্বাস্থ্যবিধি মানাতে জনসাধারণকে বাধ্য করতে আইন প্রয়োগকারীদেরকে অবশ্যই আইন প্রয়োগে হতে হবে চূড়ান্ত মাত্রায় কঠোর এবং মনে রাখতে হবে বর্তমানে এর কোনও বিকল্প নেই।
সিনেমা ও মডেলিং অভিনেত্রী নাজিরা মৌ। তিনি সম্প্রতি দুবাইতে হানিমুনে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি কোনও ছবি তোলতে পারেন নি। বলেছেন, ‘হানিমুনে গিয়ে কোথাও ছবি তোলতে পারি নি। যেখানে ঘুরতে যাই, মাস্ক একবারের জন্য খোলা যাবে না। খুললেই ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা।’ দুবাই তার দেশের মানুষকে বাধ্য করেছে মাস্ক পরতে, আইন ভঙ্গ করলে জারিমানা গুনতে হচ্ছে। অথচ এই সহজ বিষয়টি আমরা বাংলাদেশে কায়েম করতে পারছি না। নিজেরা নিজের বিপদ ডেকে আনছি আর সেই বিপদের নাম অনিবার্য মৃত্যু।
দুবাইয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবে যা কার্যকর করা হয়েছে সেটাকে কার্যত কার্যকর করতে বাংলাদেশের মানুষ চেষ্টা করতে কোনও কসুর করছেন না। যেমন সুনামগঞ্জে বিভিন্ন ব্যক্তি, সংগঠন, প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। দেশের অন্যান্য স্থানেও এমন হচ্ছে, মহৎ মানুষেরা জাতিকে করোনা সংক্রমণের বিপন্নতা-দুর্বিপাক থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করছেন এইভাবে, তাঁদের সামর্থ্য অনুযায়ী। পরিমিতি ও আকারে তা আসলেই সীমিত ও স্বল্প। কিন্তু এই ক্ষুদ্র ও সীমিত সেবাটির ইতিবাচক তাৎপর্য অপরিসীম, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে আমরা মনে করি, আর কীছু না পারা যাক অন্তত জনসমক্ষে মাস্ক পরিধান করাটাকে যে-করেই হোক বাধ্যতামূলক করা হোক। কেউ যেনো মাস্ক না পরে ঘর হতে বেরুতে না পারে। জনগণকে আমরা অনুরোধ করছি, আপনারা মাস্ক পরিধান না করে বাইরে বের হবেন না, অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন। দেশ ও জাতির জন্যে অন্তত এইটুকু দায়িত্ব পালন করুন। মনে রাখবেন, এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টার ফলে হয় তো কোনও একজনের প্রাণ রক্ষা হতে পারে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com