1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

সবজির দাম নিয়ে চাষীরা হতাশ

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ::
করোনার শুরুতেই যে হারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য লাগামহীন পাগলা ঘোড়ার মত চলছিল, তাতে মানুষের মাঝে অস্বস্তি বিরাজ করছিল। শীতে সবজির বাজারে দামের লাগাম টেনে ধরায় ক্রেতারা খুশি হয়েছেন। অন্যদিকে উৎপাদন আর চাষ ভাল হলেও চাষীরা আছেন হতাশার মাঝে। কারণ তারা ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
বর্তমানে হাওর এলাকার ক্ষেতগুলো শীতকালীন সবজিতে ভরপুর। অন্যদিকে অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে চাষীরা ক্ষেত থেকে সবজি তুলে নিয়ে স্থানীয় বিভিন্ন হাট-বাজারে কেনাবেচায় ব্যস্ত সময় পার করলেও পূর্বের দামের অর্ধেকেরও কম মূল্যে বিক্রি করতে হচ্ছে বিভিন্ন জাতের সবজি। তাহিরপুর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে এমন চিত্রই দেখা গেছে।
স্থানীয়রা জানান, তাহিরপুরে অন্যান্য বছরের মত চলতি মৌসুমে শীতকালীন সবজির চাষ ভালো হলেও লাভের মুখ দেখতে পারছেন না কৃষকরা। অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকায় স্থানীয় বাজারে দাম নিয়ে হতাশ চাষিরা। উৎপাদিত নানা রকমের সবজি উপজেলার মানুষের খাদ্যের চাহিদা মিটিয়ে বাকি সবজি জেলা শহরের বাজারগুলোতে পৌঁছানোর অসুবিধার কারণে লাভবান হতে পারছেন না। এমনকি পাইকাররা স্থানীয় বাজারগুলোতে সবজি কিনতে গেলেও তারা ন্যায্যমূল্যের চেয়ে অনেক কম দামে কিনতে চান। এতে ব্যবসায়ীরা লাভবান হলেও কৃষকদের ক্ষতির মুখে পড়তে হয়।
কৃষি অফিস সূত্রে জানাযায়, এ মৌসুমে উপজেলায় শীতকালীন সবজি আবাদে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১৫২৬ হেক্টর। আর আবাদ হয়েছে ১৫৮০ হেক্টর জমিতে। যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ১০ হেক্টর বেশি। ৩’শ কৃষককে ১২জাতের বীজ এবং নগদ ১৯৩৮ টাকা ও ১শ কৃষকের মধ্যে বীজ সরবরাহ করা হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জমিতে উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য কৃষকদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতাসহ সার্বক্ষণিক পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
উপজেলার বাদাঘাট বাজারে সবজি কিনতে আসা সামায়ুন আহমেদ বলেন, করোনার শুরুতে সবজির দাম আকাশছোঁয়া ছিল। এখন স্বস্তি একই সবজি তরতাজা ও মিলছে অর্ধেক মূল্যে। যে সবজির দাম ছিল ৬০-১০০-১৫০ টাকা এখন তা ২০-৩০টাকার মধ্যে। তবে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকায় চাহিদামত সব সময় সবজি মিলছে বাজারে।
উপজেলা উত্তর বড়দল ইউনিয়নের কৃষক আলীম উদ্দিন উৎপাদিত সবজির দাম নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, পরিবেশ অনুকূলে থাকায় ফলন বেশ ভাল হয়েছে। কিন্তু জেলা উপজেলার অভ্যন্তরীণ পরিবহন ব্যবস্থা ভাল না থাকায় এখন যে দামে সবজি বিক্রি করি কোন রকম খরচের টাকা উঠবে।
বাদাঘাট ইউনিয়নের কৃষক জজ মিয়া বলেন, অতীতের তুলনায় এবার শীতের সবজি চাষের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি চাষ হয়েছে। এবছর অসময়ে বৃষ্টিপাত হলেও খুব একটা ক্ষতির মুখে পড়তে হয়নি। কিন্তু বর্তমান বাজার মূল্য খুবই কম। এই কৃষি থেকে উপার্জিত টাকায়ই আমার সংসার চলে। ছেলে, মেয়েদের পড়ালেখার খরচও এটা দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছি কোন রকমে।
তাহিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসার মো. হাসান-উদ-দৌলা বলেন, শীতকালীন সবজি চাষ অন্যান্য বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জমিতে উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য কৃষকদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতাসহ সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিচ্ছি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com