1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

সুনামগঞ্জে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

  • আপডেট সময় সোমবার, ১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

হাসান বশির ও নাছিমা আক্তার:
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় দেশের উন্নয়নের কথা ভাবেন। বিশেষ করে অবহেলিত এলাকার উন্নয়ন নিয়ে ভাবনা বেশি প্রধানমন্ত্রীর। তিনি হাওর, পাহাড় ও চরের মানুষের জীবনযাপনকে আরও উন্নত দেখতে চান।
রোববার বিকেলে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার মুজিববাজার এলাকায় আব্দুস সাত্তার মাস্টার স্মৃতিবৃত্তি ২০২০ ও অনলাইন বেস্ট পারফর্মার শিক্ষকগণকে বৃত্তি, ক্রেস্ট, সনদপত্র বিতরণ ও মেজর মাহফুজুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
হাওরের মানুষদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত দরদি জানিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, হাওর এলাকার জন্য কোনো প্রকল্প নিয়ে গেলে তিনি খুশি হন। তাই সুনামগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট হচ্ছে। সুনামগঞ্জে রেললাইন আসবে, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে, হাওর এলাকায় উড়ালসড়ক হবে। এগুলোর কাজ অনেক এগিয়ে গেছে। এ জন্য শেখ হাসিনার সব কাজে সহযোগিতা ও সমর্থন দিতে হবে। তিনিই দেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় কাণ্ডারি। হাওরের জেলা সুনামগঞ্জের আরও উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ অপেক্ষমাণ জানিয়ে মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, সুনামগঞ্জের সঙ্গে নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ-ঢাকার যোগাযোগ সড়ক হবে।
দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির মূল শক্তি স্বাধীনতা বলে মন্তব্য করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, উন্নয়নের জন্য ভালো নেতার দরকার। আমাদের নেতা হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার ম্যাজিকে আজ দেশের ১৬ কোটি মানুষের ঘরে ঘরে বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে।
পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, এমন কোনো গ্রাম নেই, ঘর নেই; যেখানে বিদ্যুৎ যায়নি। অথচ ১৫ বছর আগে এটি চিন্তাও করা যায়নি। আমরা স্বাধীন না হলে এটি সম্ভব হতো না। স্বাধীনতাই আমাদের মূল শক্তি। তাই স্বাধীনতাকে সুরক্ষা করতে হবে।
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান আরও বলেন, দেশ কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগসহ সব ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। একটি দল থেকে সতর্ক থাকতে হবে, তারা উন্নয়নের বিরোধী। রাজাকারদের সঙ্গে কোনো আপস নয়, এরা ঘরের শত্রু। এই শত্রুদের থেকেও সাবধান থাকতে হবে।
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, জমি-টমি দেখলে মন পাগল হয়ে যায়, মনে হয় ওখানে চলে যাই। আমি গ্রামের মানুষ, গ্রামের ছেলে, আমার রক্ত মাংস সবকিছুই গ্রামে জড়িয়ে আছে। এর বাইরে আমি উঠতে পারিনি। এখানে এসেছি মেজর মাহফুজুর রহমান সবুজ সেনাবাহিনীর অফিসার আমাকে দাওয়াত করেছে তার মরহুম পিতা আব্দুস সাত্তার মাস্টার ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত বৃত্তিপ্রদান অনুষ্ঠানে এবং তার নামে প্রতিষ্ঠিত একটি স্কুল উদ্বোধনের জন্য। একটি দল আছে যারা বাংলাদেশকে মনে-প্রাণে চায় না; তাদের সঙ্গে আমরা জীবনেও আপস করবো না। কারণ এদেরকে হঠানোর জন্যই আমাদের দেশের লাখ লাখ মানুষ প্রাণ দিয়েছেন। এই রাজাকারদের হঠাবার জন্য আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ ২৫টি বছর সংগ্রাম করেছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা আমাদের নিজের দেশটি নিজের হাতে ফেরত পেয়েছি। সুতরাং যারা স্বাধীনতা বিরোধী তাদের সঙ্গে আপস চলবে না। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আপস করবে না, এটা পরিষ্কার।
মন্ত্রী বলেন, আরেকটি বিষয় স্বাধীনতার মতোই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাধীনতা যেমন দরকার, মান ইজ্জতের জন্য, বেঁচে থাকার জন্য কিছু কাজের দরকার। সেগুলোকে বলা হয় উন্নয়ন। উন্নয়ন না হলে স্বাধীনতার কোন মূল্য নেই। স্বাধীনতার জন্য যেমন নেতৃত্ব দরকার, উন্নয়নের জন্য সাহসী মানুষ দরকার এই সাহসী মানুষ শেখ হাসিনা। তিনি বিভিন্ন যুক্তি টেনে বলেন, রাজাকাররা কারো মঙ্গল চায় না। নিজের দেশ ভালো পায় না। বর্তমানে রাজাকারের চরিত্রের কিছু লোক রয়ে গেছে। আমাদের বাধার সৃষ্টি করেছে। মেজর মাহফুজুর রহমান সবুজ আমাকে দাওয়াত করেছেন। আমি আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনের জন্য আসি নাই, কোন সাংগঠনিক কাজের জন্য আসি নাই। আমি কি আমার বন্ধুর বাড়িতে যেতে পারি না? আত্মীয়র বাড়িতে দাওয়াতে যেতে পারি না? আমি ফেসবুক বুঝি না। প্রোগ্রামের আগের রাতে আমাকে একজন দেখাচ্ছে আমি আসলে কালো পতাকা দেখাবে, এটা কি? এ রাজাকারের চেয়েও খারাপ, এরা ঘরের শত্রু। ঘরের শত্রু বিভীষণ। খাটের নিচে সাপ রেখে ঘুমাতে পারবেন? এরা আসলে অনুপ্রবেশকারী, এরা এসেছে স্রোতের টানে। এরা আওয়ামী লীগের উপর ছুরি মারে। নিবেদন করছি এ সকল লোক থেকে আপনারা সাবধান থাকবেন। এসকল লোক করো মঙ্গল চায় না। আব্দুস সাত্তার মাস্টারকে স্মরণ করি। তিনি শিক্ষক ছিলেন, ফাউন্ডেশন করেছেন, মেজর মাহফুজুর রহমান সবুজ তার ছেলে, সে তার নামে এই বয়সে একটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছেন কিন্তু আমিতো পারিনি। সে আরো কিছু করতে চায়।
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান দিগেন্দ্র বর্মণ ডিগ্রি কলেজের ৩ হাজার শিক্ষার্থীর পাঠদান ও আবাসনের জন্য শিক্ষা প্রকৌশল বিভাগের মাধ্যমে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ৬ তলা বিশিষ্ট ভবন করার জন্য ঘোষণা করেন। মন্ত্রী বলেন, শিক্ষা ছাড়া বিকল্প নেই। শিক্ষার উন্নয়নের জন্য দিগেন্দ্র বর্মণ ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা দিগেন্দ্র বর্মণ ও মাহফুজুর রহমান সবুজসহ শিক্ষার উন্নয়নে সংশ্লিষ্টদের প্রশংসা করেন।
মন্ত্রী এমএ মান্নান আরও বলেন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে। এটি শেখ হাসিনার ম্যাজিক। শেখ হাসিনা বলেছেন মান্নান সাহেব ভাটি এলাকায় আপনার বাড়ি, হাওর এলাকার ছেলে, এ এলাকার জন্য কাজ করেন। বিশ্ববিদ্যালয়সহ একের পর এক প্রতিষ্ঠান হচ্ছে সুনামগঞ্জে। ছাতক থেকে রেল আসবে সুনামগঞ্জে।
মন্ত্রী বলেন, আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রস্তাব করি সুনামগঞ্জের সকল সংসদ সদস্য বলে উঠলেন শান্তিগঞ্জ এলাকায় নয়! আপনারা আপনাদের এলাকায় বলুন। শান্তিগঞ্জে নয় কেন? যাক আপনারা সম্মানিত লোক, তারা বার বার সংসদ সদস্য হয়েছেন, তাদের জন্য দোয়া করি। সুনামগঞ্জে ইউনিভার্সিটি হবে, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হবে, সড়ক হবে, রেল লাইন হবে। আমি কেউ নয়, পেশকার যেভাবে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে কাগজ দেয়, আমিও কাজ করে দেব, ওইটা এইটা দেন, প্রধানমন্ত্রী দেবেন। স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন, নলকূপের জন্য বৃহৎ প্রকল্প করবো। আপনারা নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করবেন দেশ উন্নত হবে।
আব্দুস সাত্তার মাস্টার ফাউন্ডেশনের পরিচালক শিক্ষক মোখলেছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, সরকারি দিগেন্দ্র বর্মণ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ বিমলাংশু রায়, নির্বাহী শিক্ষা প্রকৌশলী নজরুল হাকিম, শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. আশরাফুল করিম, সিলেট বর্ডারগার্ড স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফয়জুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হায়াতুন্নবী, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোশারফ হোসেন, ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রতারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অঞ্জন কুমার দে। অনুষ্ঠানের অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদি উর রহিম জাদিদ, ওসি সুরঞ্জিত তালুকদার, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও দৈনিক সুনামকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি মো. জিয়াউল হক, জেলা আ.লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. আজাদুল ইসলাম রতন, তাহিরপুর উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল কর. জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি দিপঙ্কর কান্তি দে প্রমুখ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com