মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

Notice :

মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে বিশ্বম্ভরপুরের ৫০ পরিবার

হাসান বশির ও নাছিমা আক্তার ::
মুজিববর্ষে বিশ্বম্ভরপুরের ৫০টি গৃহহীন পরিবার জমিসহ ঘর পাচ্ছে। উপজেলায় এ ঘরগুলোর নির্মাণকাজ চলছে।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় বিশ্বম্ভরপুরের ৫টি ইউনিয়নের ৫০টি গৃহহীন পরিবারকে সেমিপাকা ঘর করে দেয়া হচ্ছে। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই এসব ঘর জমিসহ গৃহহীনদের হাতে তুলে দেয়ার কথা রয়েছে। এসব ঘর নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ৮৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা।
প্রতিটি বাড়িতে দুটি কক্ষ, একটি রান্নাঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দা রয়েছে। বিশ^ম্ভরপুরের পলাশ ইউনিয়নের মাঝাইর এলাকায় ১৩টি, ধনপুর ইউনিয়নে ১টি, ফতেপুর ইউনিয়নে ১০টি, বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নে ৯টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া সলুকাবাদ ইউনিয়নের কাপনা এলাকায় ১৭টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম জানান, প্রতিটি ঘরের ব্যায় বরাদ্দের পরিমাণ ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাদি উর রহিম জাদিদ জানান, ইউপি চেয়ারম্যানগণের মাধ্যমে ছিন্নমূল ও ভূমিহীন পরিবারের তথ্য স্থানীয় ভূমি অফিস থেকে যাচাই করে নিশ্চিত হওয়ার পরেই সুবিধাভোগীদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আর নির্মাণকাজ যাতে সঠিকভাবে সম্পন্ন হয় সেজন্য নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে। প্রথম দফায় ৩০টি ঘর সুবিধাভোগীদের মাঝে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। পরবর্তীতে বাকি ২০টি ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল মোল্লা বলেন, সুবিধাভোগীদের এসব ঘরসহ জমি কবুলিয়াত করে দেয়া হবে। প্রতিটি পরিবার ২ শতক করে ভূমি পাবে, তবে যাদের দখলে বেশি পরিমাণ খাস জায়গা আছে তাদেরকে পরিমাণ অনুযায়ী জায়গা বন্দোবস্ত দেওয়া হবে। দুই ধাপে এসব ঘর নির্মাণ ও কবুলিয়ত সম্পন্ন করে সুবিধাভোগীদের মাঝে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।
জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসহায় পরিবারের জন্য উপহার স্বরূপ এসব আশ্রয়স্থল করে দিচ্ছেন। মুজিববর্ষে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণাকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসনের জন্য সারাদেশের ন্যায় জেলাজুড়ে কাজ চলছে।
এদিকে ৮ জানুয়ারি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সলুকাবাদ, কাপনা ও পলাশ ইউনিয়নের ও মাঝাইর গ্রামে সরকারি খাস জমিতে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের চলমান ঘর নির্মাণকাজ পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. জসীম উদ্দিন। পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)সহ সংশ্লিষ্ট লোকজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী