1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৭:১৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস : অবহেলায় জেলার প্রস্তাবিত পর্যটন সংরক্ষিত এলাকা

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

শামস শামীম ::
সুনামগঞ্জের অনন্য জলাভূমি ও আন্তর্জাতিক রামসার সাইট টাঙ্গুয়ার হাওর, খাসিয়া পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত বড়গোপটিলা (বারেকের টিলা), রূপের নদী যাদুকাটা ও টেকেরঘাট খনিজ প্রকল্পের পর্যটন সংরক্ষিত এলাকা দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত। পর্যটন সম্ভাবনা কাজে লাগানো যাচ্ছে না। বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় ২০১৩ সনের ৯ জুলাই প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে ওই এলাকার ৫০ একর ভূমিকে পর্যটনের জন্য সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করে পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বলে জানা যায়। পর্যটন এলাকা হিসেবে সরকারি গেজেটভুক্ত হওয়ায় প্রায় সাড়ে ৩ বছর পরও অবকাঠমো নির্মাণের কোন উদ্যোগ নেই। ফলে সম্ভাবনা থাকার পরও সুনামগঞ্জের দর্শনীয় এ স্থানগুলো তার সৌন্দর্য্য দেশবাসীর সামনে তুলে ধরতে পারছে না।
সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, টাঙ্গুয়ার হাওর, যাদুকাটা, বড়গোপটিলা ও টেকেরঘাট খনিজ প্রকল্প মিলিয়ে প্রায় ৫০ একর জায়গায় পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের জন্য সরকার গেজেট করেছে সাড়ে তিন বছর আগে। কিন্তু অবকাঠামো নির্মাণের উদ্যোগ না নেওয়ায় পর্যটন সম্ভাবনার কথা বিবেচনা করে ২০১৫ সালের ২৫ মে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান বরাবরে এ বিষয়ে একটি পত্র প্রেরণ করে। ওই পত্রে প্রস্তাবিত ও পর্যটন এলাকা ঘোষিত পর্যটন সম্ভাব্যতা, পর্যটন সুবিধা সৃষ্টির বর্ণনা, প্রকল্পের আর্থিক ব্যবস্থাপনা, জমির বিবরণসহ নানা বিষয় উল্লেখ করে অবকাঠামো নির্মাণের আহ্বান জানানো হয়। এতে প্রস্তাবিত এলাকার ভৌগোলিক ও সৌন্দর্য্যরে বর্ণনা, পর্যটক ও জীববৈচিত্র্য বিষয়ক তথ্যও উপস্থাপন করা হয় পর্যটন করপোরেশনকে। অবকাঠামো নির্মিত হলে এই এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নতিসহ সরকারেরও রাজস্ব বৃদ্ধি পাবে বলে পত্রে জানানো হয়। টাঙ্গুয়ার হাওরের আশপাশে, টেকেরঘাট এবং বড়গোপটিলায় হোটেল ও রিসোর্ট নির্মাণ, টাঙ্গুয়ার হাওরের জয়পুর গোলাবাড়ি এলাকায় অবকাঠামো উন্নয়ন এবং এখানে নৌকা-ট্রলার, স্পিডবোট’র ব্যবস্থা করা, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট চালুর উদ্যোগগ্রহণ, নিরাপত্তা, পয়ঃনিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য উদ্যোগ গ্রহণেরও জরুরি সুপারিশ করা হয়। এভাবে জেলা প্রশাসন সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একাধিক পত্রে অবকাঠামো নির্মাণের অনুরোধ জানিয়ে আসছে। স্থানীয় প্রশাসন গেজেটভুক্ত স্থানে পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণে প্রকল্প গ্রহণের আহ্বান জানালেও এখন পর্যন্ত সংশ্লিষ্টরা এ বিষয়ে কোন উদ্যোগ নেননি। ফলে সরকার ঘোষিত সুনামগঞ্জের অনন্য পর্যটন সংরক্ষিত এলাকা অবহেলিত অবস্থায় আছে।
স্থানীয় প্রশাসন ও স্থানীয় সরকারের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা জানান, টাঙ্গুয়ার হাওরেই প্রতি বছরে ২০-২৫ লাখ অতিথি পাখি আসে। এই হাওর, যাদুকাটা নদী ও টেকেরঘাট খনিজ প্রকল্পের নয়নাভিরাম এলাকা দেখতে প্রতিদিনই শত শত পর্যটক আসছেন। সারি সারি হিজল করচ বাগান, নলখাগড়া মুগ্ধ করে পর্যটকদের। সীমান্ত নদী যাদুকাটার স্বচ্ছতোয়া নীলাভ জলে অবগাহন করেন পর্যটকরা। নদীর তীরের ঘনসবুজের বড়গোপ টিলার বনের গহীনে হারিয়ে যান। এসব এলাকা দেখতে আসা পর্যটকদের থাকা-খাওয়া ও যাতায়াতের ন্যূনতম সুবিধা না থাকায় ভোগান্তি ও দুর্ভোগে পড়েন পর্যটকরা। অবকঠামোর কারণেই ওই এলাকা পিছিয়ে আছে বলে মনে করা হয়।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল বলেন, আমরা গত ১৬ – ১৭ সেপ্টেম্বর হাওরে জ্যোৎ¯œা উৎসব উদ্যাপন করে এই এলাকায় পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের দাবি জানিয়েছি। পর্যটন অবকাঠামো নির্মিত হলে এই এলাকার আর্থ সামাজিক উন্নতিসহ সরকারও এই খাত থেকে বিপুল রাজস্ব পাবে। তিনি বলেন, টাঙ্গুয়ার হাওর, যাদুকাটা নদী ও টেকেরঘাটের পরিত্যক্ত লেক দেখতে প্রতিদিন শত শত মানুষ আসেন। তারা থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা না পেয়ে হতাশ হন। আমাদের পর্যটন সম্ভাবনাকে আমরা কাজে লাগাতে পারছি না।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. লুৎফুর রহমান বলেন, পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের জন্য আমরা বহু আগেই স্থান নির্ধারণ করেছি। সেই স্থান মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন আকারে পর্যটন সংরক্ষণ এলাকা হিসেবে গেজেট করেছে। তাছাড়া আমরা পর্যটন করপোরেশনকেও একাধিকবার পর্যটন অবকাঠামো নির্মাণের কথা জানিয়েছি। প্রস্তাবিত পর্যটন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে পুরো জেলারই আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নতি হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com