1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:০৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

ঈদযাত্রায় ২১১ দুর্ঘটনায় নিহত ২৬৫

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
ঈদুল আজহায় সারাদেশে সড়ক, রেল ও নৌ-পথে ২১১ দুর্ঘটনায় ২৬৫ জন নিহত ও ১ হাজার ১৫৩ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। এরমধ্যে শুধু ১৯৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ২৪৮ জন ও আহত হয়েছেন ১ হাজার ৫৬ জন। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেলক হক চৌধুরী এ তথ্য জানান। জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত ‘ঈদযাত্রায় দুর্ঘটনা প্রতিবেদন-২০১৬’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।
সংগঠনের মহাসচিব মোজাম্মেলক হক জানান, বিগত ঈদযাত্রায় মানুষের যাতায়াতে ভোগান্তির পাশাপাশি সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েছে। পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি বলেন, ৭ সেপ্টেম্বর ঈদযাত্রা শুরুর দিন থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর কর্মস্থলে ফেরা পর্যন্ত ১২দিনে সারাদেশে ১৯৩টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এরমধ্যে ২৪৮জন নিহত ও ১ হাজার ৫৬ জন আহত হয়। একই সময় ৮টি নৌ দুর্ঘটনায় ১০ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়। রেলে কাটা পড়ে ৭ জন নিহত ও চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে আহত হয় ৫০ জন।
প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঈদযাত্রা শুরুর প্রথমদিন ৭ সেপ্টেম্বর ১৬টি দুর্ঘটনায় ২১ নিহত, আহত হয় জন, ৮ সেপ্টেম্বর ১২টি দুর্ঘটনায় ১২ জন নিহত, ৩২ জন আহত, ৯ সেপ্টেম্বর ১৪টি দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত, ১৮৫ জন আহত, ১০ সেপ্টেম্বর ১৫টি দুর্ঘটনায় ২৮ জন নিহত ৫৪ জন আহত, ১১ সেপ্টেম্বর ২০টি দুর্ঘটনায় ১৮ জন নিহত, ১৭৬ জন আহত, ১২ সেপ্টেম্বর ১৩টি দুর্ঘটনায় ২৩ জন নিহত, ৫৪ জন আহত, ১৩ সেপ্টেম্বর ১০টি দুর্ঘটনায় ১২ জন নিহত, ৮৭ জন আহত, ১৪ সেপ্টেম্বর ২৭টি দুর্ঘটনায় ২৯ জন নিহত, ১৬৪ জন আহত, ১৫ সেপ্টেম্বর ১৩টি দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত, ৮৭ জন আহত, ১৬ সেপ্টেম্বর ২৩টি দুর্ঘটনায় ৩৫ জন নিহত, ১৮৩ জন আহত, ১৭ সেপ্টেম্বর ২৯টি দুর্ঘটনায় ৩৯ জন নিহত ১০৪ জন আহত, ১৮ সেপ্টেম্বর ১৮টি দুর্ঘটনায় ২৪ জন নিহত ৯২ জন আহত হয়।
দুর্ঘটনা পর্যালোচনা করে প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্ঘটনায় ৭৭টি মুখোমুখি সংঘর্ষে ১১২ জন নিহত ও ৫৫৭ জন আহত হয়। ২৭টি বাস চাপার দুর্ঘটনায় ২৯ নিহত ও ২০ জন আহত হয়। ২০টি পরিবহন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাওয়া দুর্ঘটনায় ৩৪ নিহত ও ২৬৪ জন আহত হয়। ৮টি ট্রাক চাপার দুর্ঘটনায় ৮ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়। এছাড়া নানা কারণে ৮৩টি দুর্ঘটনায় ৮২ জন নিহত ও ২৬৮ জন আহত হয়। অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালানো, বিপদজনক ওভারটেকিং, ডিভাইডার না থাকা, ট্রাফিক আইন না মানাসহ দুর্ঘটনার ২০টি কারণ চিহ্নিত করেছে সংগঠনের দুর্ঘটনা মনিটরিং সেল।
মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, এবার ঈদের আগে বেশ কিছু নতুন সড়ক হয়েছে। গাড়ির গতি বেড়েছে। কিন্তু মহাসড়কে বড় যানবাহনের সঙ্গে ছোট যানবাহন চলার কারণে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। সিটি এলাকায় যেসব ছোট গাড়ি মহাসড়কে চলতে অভ্যন্ত নয় সেসব গাড়ি মহাসড়কে চলার কারণেও দুর্ঘটনার হার বেড়েছে।
কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, দুর্ঘটনার জন্য সরকারের পাশাপাশি জনগণের দায়িত্ব অবহেলা রয়েছে। ড্রাইভিং স্কুলের সংখ্যা বৃদ্ধি, দক্ষ চালক গড়ে তোলা, উন্নত সড়ক যোগাযোগ ও সচেতনতা বৃদ্ধি পেলে মৃত্যুহার রোধ সম্ভব।
সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যকরি সভাপতি রুস্তম আলী, বুয়েটের এক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক কাজী সাইফুন নেওয়াজ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com