1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:৩৪ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

জেলায় বন্ধ হল পাঁচটি বাল্যবিয়ে

  • আপডেট সময় বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
জেলার তিন উপজেলায় পৃথক পাঁচটি বাল্যবিয়ে পন্ড করা হয়েছে। গতকাল বুধবার প্রশাসনের হস্তক্ষেপে দক্ষিণ সুনামগঞ্জে তিনটি, জামালগঞ্জ ও তাহিরপুরে একটি করে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করা হয়।
আমাদের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, এ উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও, পাথারিয়া ও দরগাপাশা ইউনিয়নে ৩টি বাল্যবিয়ে পন্ড করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রশাসনের তৎপরতায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় জনগণের হস্তক্ষেপে এ বাল্যবিয়েগুলো পন্ড করা হয়।
স্থানীয় ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের ইমদাদুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ও বীরগাঁও পশ্চিম পাড়া গ্রামের কন্যা (১৬)-এর সাথে একই গ্রামের ওয়াজির উদ্দিনের ছেলে বাদশা মিয়া (২২)-এর বিয়ের দিন ঠিক হয়। এ বাল্যবিয়ের খবরে আশপাশের লোকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অবহিত করেন। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিদের্শক্রমে পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নুর কালামের উপস্থিতিতে বাল্যবিয়ের আয়োজন বন্ধ করা হয়।
এদিকে উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়নের পাইকাপন গ্রামের গোলাম আলীর ছেলে সাবলু মিয়া (১৭)-এর সঙ্গে দিরাই উপজেলার নাছনা গ্রামের কন্যা (১৬)-এর বিয়ের দিন ঠিক হয়। বরের প্রাপ্ত বয়স না হওয়ায় খবর জানতে পারেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইবাদত হোসেন। তাৎক্ষণিক তিনি এ বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেন। পরে ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনির উদ্দিন ও ইউপি সদস্য, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের উপস্থিতিতে বাল্যবিয়ের আয়োজন বন্ধ এবং ছেলেটির প্রাপ্ত বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দিতে অভিভাবকদের নির্দেশ দেয়া হয়।
অপরদিকে পাথারিয়া ইউনিয়নের গণিনগর ষোলগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী (১৪)-এর সাথে একই এলাকার মৃত আরজু মিয়া কাবুলীর ছেলে দবির মিয়া (২৩)-এর সহিত বিয়ের দিন ঠিক হয়। বাল্যবিয়ের সংবাদে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশক্রমে পাথারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আমিনুর রশিদ আমিন ও গণিনগর ষোলগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপস্থিতিতে বাল্যবিয়ে তাৎক্ষণিক বন্ধ করা হয়। বুধবার বিকেলে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইবাদত হোসেন সরেজমিনে পাথারিয়া ইউনিয়নের আন্দাবাজ গ্রামে গিয়ে মেয়ের পূর্ণ বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেন। এ সময় উস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলনা ত্যৈয়বুর রহমান, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ, সহ সভাপতি এম এ কাসেম সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
এদিকে জামালগঞ্জে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা। জানা যায়, বুধবার বিকেলে উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের কামিনীপুর গ্রামের কন্যা (১৭)-এর সঙ্গে ফেনারবাক ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে মো. মঞ্জুর আলী’র বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা এ বিষয়টি জানতে পারেন। তাৎক্ষণিক তিনি সদর ইউনিয়নের ইউপি সচিব মো. নুরুল আমিন ও ইউপি সদস্য মনির উদ্দিন, মেয়ের অভিভাবককে তাঁর কার্যালয়ে তলব করেন। এ সময় দেখা যায়, জন্মনিবন্ধন অনুযায়ী তার বর্তমান বয়স ১৭ বছর ২ মাস। তখন মেয়েটির পিতা তার মেয়েকে ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার পর বিয়ে দেবেন বলে অঙ্গীকার করেন।
অপরদিকে তাহিরপুরে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার উপজেলার দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের কুকুরকান্দি গ্রামের কন্যা’র সঙ্গে পার্শ্ববর্তী উত্তর বড়দল ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের ছানু মিয়ার ছেলে রহিজুলের বিয়ের দিন ধার্য্য ছিল। কনের বাড়িতে চলছিল বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। বিষয়টি গতকাল বুধবার সকালে স্থানীয় বাদাঘাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ’র সাংগঠনিক সম্পাদক ও হাজী জয়নাল আবেদীন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল্লাহ্কে অবহিত করলে তিনি বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের এ.এস.আই ফরহাদ আলীকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। এএসআই ফরহাদ আলী’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ স্থানীয় বাদাঘাট বাজারে কনের বাবাকে আটক করে কনের প্রাপ্তবয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দিয়ে নিয়মিত বিদ্যালয়ে পাঠানোর শর্তে মুচলেকা নিয়ে বিয়েটি বন্ধ করেন। তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল্লাহ্ বাল্যবিয়ে প্রতিরোধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com