1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতির ফাঁসিতে যে কারণে চুপ ছাত্রশিবির

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরের পরও চুপ রয়েছে ইসলামী ছাত্রশিবির। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে কাশিমপুর কারাগারে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হলেও ১৯৭৭ সালে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটি কার্যত কোনও কর্মসূচি নেয়নি। এদিকে ২০১৩ ও ২০১৪ সালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াত নেতাদের বিরুদ্ধে আদালতের রায় প্রকাশ ও রায় কার্যকর করার পর সারাদেশে নাশকতা করে শিবিরের নেতাকর্মীরা। এ সময় দেশ-বিদেশে সংগঠনের রাজনৈতিক কর্মকান্ড নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। অসংখ্য নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে সহ¯্রাধিক মামলা হয়। গ্রেফতার-আটক করা হয় অনেককে। এসব কারণে গত এক বছরের বেশি সময় ধরেই সারা দেশে অনেকটাই নিষ্ক্রিয় সংগঠনটি। একইসঙ্গে জামায়াতের কঠোর নিষেধাজ্ঞা থাকায় রাজপথে সক্রিয় হয়নি শিবির। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি প্রতিকূলে থাকায় সাংগঠনিক পরিচয়ে কোনও রকম বিক্ষোভ-সমাবেশ করা থেকে বিরত থাকে ছাত্র শিবির। ছাত্র শিবিরের কেন্দ্রীয় ও সাবেক কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে এসব বিষয়ে জানা গেছে।
এদিকে গত দুই বছরে জঙ্গিদের তৎপরতা বেড়ে যাওয়ায় সরকারের পক্ষ থেকেও অভিযোগ করা হয়েছে, জঙ্গিবাদের সঙ্গে শিবির জড়িত। সর্বশেষ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জঙ্গি সংগঠনের পাশাপাশি শিবির নিষিদ্ধ করার কথাও জানান। মীর কাসেমের মৃত্যুদন্ড কার্যকরের বিষয়টিকে ইস্যু কেন্দ্র করে হরতাল-বিক্ষোভ করে সরকারের রোষানলে পড়তে চায় না জামায়াত। ক্ষমতাসীনদের না চটিয়ে জামায়াত কিভাবে রাজনৈতিকভাবে টিকতে থাকতে পারে, সে চিন্তাও রয়েছে দলটির ভেতর। এ কারণেও মীর কাসেমের ফাঁসির প্রতিবাদে শিবিরকে কোনও রকম আন্দোলন করার অনুমতি দেয়নি জামায়াত।
জানা গেছে, জামায়াতের সর্বশেষ সংশোধিত গঠনতন্ত্রের ধারা ৬ এ স্থায়ী কর্মসূচি আছে ৪টি। এর মধ্যে চতুর্থ নম্বরটি হচ্ছে, ‘গণতান্ত্রিক পন্থায় সরকার পরিবর্তন এবং সমাজের সর্বস্তরে- সৎ ও চরিত্রবান লোকের নেতৃত্ব কায়েমের চেষ্টা করা।’ এক বছরের বেশি আগে দলের নীতিনির্ধারকরা এই কর্মসূচিকে স্থগিত রেখেছেন। সরকারের কঠোর অবস্থান ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারির কারণে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়নি জামায়াত-শিবির।
জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর জামায়াতের পল্টন শাখার এক কর্মী, শিবিরের ঢাকা আলিয়ার সাবেক বায়তুল মাল স¤পাদক গণমাধ্যমকে জানান, ‘সাংগঠনিকভাবে একটা টোকা দেওয়াও নিষেধ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা আছে জামায়াতের পক্ষ থেকে।’
জানা গেছে, ছাত্রশিবিরের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রথম সভাপতি ছিলেন আলবদর নেতা মীর কাসেম আলী। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হলে তিনি সৌদি আরবে পালিয়ে যান। ১৯৭৫ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা এবং ক্ষমতার পালাবদলের পর তিনি দেশে ফিরে আসেন। এরপরই ছাত্রশিবির প্রতিষ্ঠার কাজ শুরু করেন ৭১-এর আগে ছাত্রসংঘের এই কেন্দ্রীয় নেতা।
ছাত্রশিবিরের একাধিক সাবেক দায়িত্বশীলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিষয়টি তাদের কাছেও ‘অবাক লেগেছে। তারা মনে করেন, ’মীর কাসেম আলীর ফাঁসির রায় কার্যকর করায় অন্তত বিক্ষোভ করার প্রয়োজন ছিল।’ তারা দোয়া মাহফিলেই দায় মিটিয়েছে বলেই মনে করেন একাধিক সাবেক শিবির নেতা।
ছাত্রশিবিরের সাবেক এক প্রচার স¤পাদক বলেন, ‘ভালো বিষয় ধরেছেন। আসলেই তো, এটা খেয়ালই করিনি।’
জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার প্রভাবশালী এই সদস্য আরও বলেন, ‘ছাত্রশিবিরের উত্থান-পতন সব কিছুই উনার হাত ধরে এসেছে। এখন যারা জামায়াতের প্রভাবশালী নেতা, তারা প্রত্যেকেই তার অনুজ। শিবিরের সাবেক নেতা। ফলে, জামায়াত বলা মানেই তো শিবির বলা।’
গত শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে মীর কাসেমের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর রোববার সারাদেশে দোয়া মাহফিল করে শিবির। এই কর্মসূচিও ছিল জামায়াত ঘোষিত। একই দিন সকালে সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার স¤পাদক মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত বিবৃতি পাঠানো হয়। ওই বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় সভাপতি আতিকুর রহমান ও সেক্রেটারি জেনারেল ইয়াসিন আরাফাত বলেছেন, ‘আমরা দৃঢ়তার সঙ্গে ঘোষণা করছি, সর্বোচ্চ ত্যাগের বিনিময়ে হলেও মীর কাসেম আলীর রেখে যাওয়া কাজকে স¤পূর্ণ করতে আমরা দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ। মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদন্ডের মাধ্যমে যারা ইসলামি আন্দোলনকে নেতৃত্বশূন্য করার স্বপ্ন দেখছে, তাদের সে স্বপ্ন কখনোই পূরণ হবে না। মীর কাসেম আলীর প্রতি ফোঁটা রক্ত এ দেশের ইসলামি মূল্যবোধে বিশ্বাসী জনগণকে উজ্জীবিত করবে।’
সচরাচর শিবিরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে নানা ধরনের কঠোর বক্তব্য থাকলেও মীর কাসেমের ফাঁসির প্রতিক্রিয়াটি অনেকটাই ‘নরম’ ছিল বলে মনে করছেন অনেকেই।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com