1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৭:১৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

‘ডিসেম্বরের মধ্যেই জেলা পরিষদ নির্বাচন’

  • আপডেট সময় সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘আগামী ১৫ দিনের মধ্যে জেলা পরিষদের ১৫টি ওয়ার্ড ভাগ করে গেজেট নোটিফিকেশন ও শুনানি চূড়ান্ত করা হবে। ফলে এ বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই জেলা পরিষদ নির্বাচন দিতে পারবো।’
সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জেলা পরিষদ আইনের (সংশোধিত) খসড়ায় মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন আরও বলেন, আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই জেলা পরিষদগুলোতে ওয়ার্ড নির্ধারণ, গেজেট নোটিফিকেশন এবং শুনানি শেষ হয়ে যাবে। এরপরই আমরা নির্বাচন কমিশনকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন আয়োজনের বিষয়ে চিঠি দেব। নির্বাচন কমিশনই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করবে। তবে আমরা যতটুকু জেনেছি ইতোমধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিধিমালা তৈরি করেছে নির্বাচন কমিশন।
মন্ত্রী বলেন, ‘পাঁচটি স্তরে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে অধিকাংশ স্তরে নির্বাচন হয়ে গেছে। শুধু জেলা পরিষদ নির্বাচন বাকি। সেটিও আমরা আয়োজন করতে যাচ্ছি। তবে এজন্য কিছু আনুষ্ঠানিকতার দরকার আছে। প্রত্যেক জেলা পরিষদকে ১৫টি ওয়ার্ডে সমানভাবে ভাগ করা, গেজেট নোটিফিকেশন ও শুনানি করা। ইতোমধ্যে এসব কাজের অগ্রগতি হয়েছে। ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে এসব কার্যক্রম শেষ হয়ে যাবে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, ‘গণতন্ত্রকে জনগণের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে আমরা স্থানীয় নির্বাচনগুলোকে দলীয় প্রতীকে করার ব্যবস্থা করেছি। এখানে কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই। স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন স্তরে যারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন তারাই জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট দেবেন।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের মধ্যে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব আছে, সেভাবে জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও জেলা পরিষদ প্রশাসকের মধ্যে দ্বন্দ্ব হবে কি না জানতে চাইলে খন্দকার মোশররফ বলেন, ‘দ্বন্দ্ব হবে এটাই তো নিয়ম। মতবিরোধ, মতনৈক্য থাকলেই উন্নয়ন ও অগ্রগতি হয়। দ্বন্দ্ব না থাকলেই বরং চিন্তিত থাকি। যেখানে ‘ডিফারেন্স অব ওপেনিয়ন’ থাকে না সেই জায়গাগুলো নিয়ে আমরা চিন্তিত থাকি। আর মতবিরোধ থাকলেই উন্নয়ন হয়।’’
মার্কা বা দলীয় প্রতীকের অধীনে জেলা পনিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গেজেট জারির পর নির্বাচন কমিশনই ঠিক করবে নির্বাচন কীভাবে হবে। এটা তাদের বিষয়। তাদের নীতিমালায় সবকিছু অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com