1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০২:০৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

ছাতকে দু’পক্ষের সংঘর্ষে শতাধিক আহত

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৬

ছাতক প্রতিনিধি ::
ছাতকের পল্লীতে ডোবায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে নারীসহ শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত ৩০জনকে ভর্তি করা হয়েছে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। গতকাল বুধবার দুপুরে নোয়ারাই ইউনিয়নের মৌলা গ্রামের মৃত হাতিম আলীর পুত্র হাসনাত উল্লাহ ও মৃত আছদ্দর আলীর পুত্র মছব্বির আলী পক্ষদ্বয়ের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
আহতদের ছাতক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করাতে এসে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অভ্যন্তরে ফের সংঘর্ষে লিপ্ত হয় দু’পক্ষের লোকজন। এ সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক পুলিশে খবর দেয়। তাৎক্ষণিক ছাতক থানার ওসি (তদন্ত) ও এসআই সৈয়দ আব্দুল মান্নানসহ একদল পুলিশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রাম সংলগ্ন একটি ডোবার মালিকানা নিয়ে হাসনাত উল্লাহ ও মছব্বির আলীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার বিকেলে হাসমত উল্লাহ পক্ষ বিরোধকৃত ডোবায় পানি সেচে মাছ ধরার প্রস্তুতি নিলে মছব্বির আলী এতে বাধা প্রদান করেন। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় বিষয়টি সালিশে নিষ্পত্তি করার আশ্বাস দিয়ে তাৎক্ষণিক মিটমাট করে দেয়া হয়। বুধবার এ ঘটনা নিয়ে সালিশ-বৈঠকে বসার কথা ছিল। কিন্তু সকালে হাসমত উল্লাহ পক্ষের লোকজন ডোবায় অবস্থান নিলে প্রতিপক্ষ মছব্বির আলী পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তুমুল সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে নারীসহ উভয়পক্ষের অন্তত শতাধিক লোক আহত হন। গুরুতর আহত ইউসুফ আলী, শিপন, জিয়া উদ্দিন, তরিবুন নেছা, এমরান, শফিক, দেলোয়ার, আব্দুস সহিদ, ওয়াছির আলী, সুরুজ আলী, সজিদ আলী, রবিউল, সাজিত মিয়া, সুজিত মিয়া, রহিম আলী, রজব আলী, আনর আলী, ফিরোজ আলী, উস্তার আলী, মানিক আলী, লাল বানু, আনোয়ার আলী, মুক্তার আলী, সায়েক আলী, সেলিম, মিনার হোসেনসহ ৩০জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
কালা মিয়া, কবির মিয়া, আকবর আলী, আকিল মিয়া, রবিউল হোসেন, মছব্বির আলী, বিপন খান, আমির হোসেন, রাসেল আহমদ, ছাবিয়া বেগম, আলীরাজ, হারুন আলী, ইয়াকুব আলী, রুমেল মিয়া, আব্দুল আহাদ, মনোহর আলী, নোয়াব আলী, নবীউল হোসেন, জিয়া উদ্দিন, হাসান মিয়া, ইমরান হোসেন, লিটন মিয়া, রাসেদ, আব্দুল কাইয়ুমসহ আহতদের ছাতক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়।
ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশেক সুজা মামুন জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় এখনো কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি। এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com