1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন নির্মাণে ৪৭৭ কোটি টাকা অনুমোদন

  • আপডেট সময় বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েলগেজ রেললাইন নির্মাণে (বাংলাদেশ অংশ) ৪৭৭ কোটি ৮১ লাখ টাকার প্রকল্প অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।
মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে এ প্রকল্পে অনুমোদন দেয় একনেক। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।
বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।
মন্ত্রী মুস্তফা কামাল বলেন, একনেক সভায় মোট ছয়টি উন্নয়ন প্রকল্পে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, যার মোট ব্যয় ধরা হয়েছে, ১ হাজার ৯৫ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৬৭৪ কোটি ৭১ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৪২০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা আসবে।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, শাহপরীর দ্বীপ বাঁধ নির্মাণের সময় বাঁধের পাড় মজবুত করে বেঁধে গাছ লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, এখন থেকে গৃহ নির্মাণের বড় প্রকল্পের পাশাপাশি ছোট ছোট প্রকল্প হাতে নেওয়া হবে। বর্তমানে প্রকল্পের সংখ্যা ১ হাজার ২শ থেকে বেড়ে ১ হাজার ৫শ হবে। পিছিয়ে পড়া মানুষদের অর্থনীতির মূল ¯্রােতে নিয়ে আসতে এসব ছোট প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে, যাতে প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে।
তিনি আরও বলেন, কামার, কুমার, বেদে, জেলে, নাপিত, কাঠমিস্ত্রি, মিষ্টির কারিগর ও বাঁশ-বেতের যারা কাজ করেন তাদের জন্য প্রকল্প নেওয়া হবে।
একনেক সভায় জানানো হয়, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সঙ্গে রেল সংযোগ স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে ১৫ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণে ব্যয় হবে হাজার কোটি টাকার বেশি।
বাংলাদেশের ১০ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণে ব্যয় হবে ৪৭৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা। চলতি অর্থবছর এ রেললাইন নির্মাণের কাজ শুরু হবে। ২০১৯ সালে নির্মাণ কাজ শেষ করা হবে।
প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ভারত থেকে ৪২০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা অনুদান পাওয়া যাবে। ব্রডগেজ ও মিটারগেজ দুই মাধ্যমেই দুই দেশের মধ্যে রেললাইনটি নির্মাণ করা হবে। বাংলাদেশের দিকে প্রথম স্টেশন হবে গঙ্গাসাগর। গঙ্গাসাগর থেকে আখাউড়ার মধ্যে বর্তমান স্টেশনের পাশ দিয়ে তৈরি হবে নতুন রেললাইন। এছাড়া ত্রিপুরা রাজ্যের দিকে পাঁচ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণ করবে ভারত। আগরতলা রেলওয়ে স্টেশন থেকে বের হয়ে নিশ্চিন্তপুর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে এ রেলপথ। নিশ্চিন্তপুরে হবে সীমান্ত স্টেশন ও রেল ইয়ার্ড।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ২০১০ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিল্লি সফরের সময় আগরতলা-আখাউড়া রেল সংযোগ প্রকল্পের বিষয়ে অনুলিপি চূড়ান্ত হয়েছিল। একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো- ২৭২ কোটি ৮২ লাখ টাকা ব্যয়ে ভৈরব রিভার বেসিন এলাকার জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও টেকসই পানি ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন প্রকল্প, ১০৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা ব্যয়ে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার শাহপরীর দ্বীপে পোল্ডার নম্বর-৬৮ এর সি-ডাইক অংশে বাঁধ পুনঃনির্মাণ ও প্রতিরক্ষা কাজ বাস্তবায়ন প্রকল্প, ৯৫ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম জেলার বাপাউবোর আওতায় উপকূলীয় অঞ্চলের পোল্ডার নম্বর ৬১/১ (সীতাকুন্ড), ৬১/২ (মীরসরাই) ও ৭২ (সন্দ্বীপ)-এর বিভিন্ন অবকাঠামোসমূহের ভাঙন প্রতিরোধ, নিষ্কাশন এবং সেচ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য পুনর্বাসন প্রকল্প, ৮৬ কোটি ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নগরভিত্তিক প্রান্তিক মহিলা উন্নয়ন (২য় পর্যায়) প্রকল্প এবং ৫৭ কোটি ১৩ লাখ টাকা ব্যয়ে ঢাকার শেরেবাংলা নগরস্থ বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন সচিবালয় কমপ্লেক্স নির্মাণ (৮ থেকে ১১তলা) (৩য় পর্ব) প্রকল্প।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com