1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০২:৪৩ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

বিএনপিতে পদ পাচ্ছেন আরো ৩ শতাধিক

  • আপডেট সময় রবিবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণার পর ‘এক নেতা এক পদ’ নীতি কার্যকরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এ সিদ্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়িত হলে ঘোষিত কমিটিতে কমপক্ষে ৪০টি পদ শূন্য হতে পারে। ঘোষণার অপেক্ষায় থাকা যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটির শীর্ষ পদেও নিয়ে যাওয়া হবে নির্বাহী কমিটিতে পদ পাওয়া বেশ কয়েকজনকে। এর বাইরে ২৫টি বিষয়ভিত্তিক কেন্দ্রীয় উপকমিটিতে জায়গা পাচ্ছেন আরো ৩০০’র মতো নেতা। সব মিলিয়ে সাড়ে ৩০০ থেকে ৪০০ নেতা নতুন করে পদ পেতে যাচ্ছেন।
গত সপ্তাহে ৫০২ সদস্যবিশিষ্ট বিশাল কলেবরের নতুন কমিটি ঘোষণার পর বিএনপিতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে। যারা কাক্সিক্ষত পদ পেয়েছেন, তারা আছেন খোশমেজাজে। আর যারা বঞ্চিত হয়েছেন কিংবা প্রত্যাশিত পদ পাননি, তাদের মধ্যে ভর করেছে হতাশা। কয়েকজন নেতা পদত্যাগের হুমকিও দিয়েছেন। তবে দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ভাইস চেয়ারম্যান পদ পাওয়া মোসাদ্দেক আলী ফালু ছাড়া সিনিয়র কোনো নেতাই দল থেকে পদত্যাগ করছেন না। সিনিয়র এক-দুইজন নেতা যারা প্রকাশ্যে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন, তারা এখন চুপ মেরে গেছেন।
দলের একটি সূত্র জানিয়েছে, দিন দুই আগে ভাইস চেয়ারম্যান পদ পাওয়া এক নেতা খালেদা জিয়ার সাথে কমিটি নিয়ে কিছু কথা বলতে গেলে, তার অতীত কর্মকা- তুলে ধরে শাসিয়ে দেন। দলের শৃঙ্খলা প্রশ্নে চেয়ারপারসনের অবস্থান কঠোর বলে জানা গেছে। দলের হাইকমান্ড অবশ্য কমিটি গঠনে কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতির কথা স্বীকার করে নিয়েছে। বিএনপির বিভিন্ন পদে আরো নেতা অন্তর্ভুক্ত হওয়ার সুযোগ আছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীল নেতারা।
সূত্র মতে, দলের স্থায়ী কমিটির দু’টি শূন্যপদে শিগগিরই নাম ঘোষণা করা হতে পারে। এ পদের দাবিদার দলের সিনিয়র হাফ ডজন নেতা। আব্দুল্লাহ আল নোমান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, সাদেক হোসেন খোকা, সেলিমা রহমান ও অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুবুর রহমানের মধ্যে যে কেউই এই পদে অধিষ্ঠিত হতে পারেন। দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী জোবায়দা রহমানকে স্থায়ী কমিটিতে জায়গা দেয়া হতে পারে এমন আলোচনা দলে থাকলেও এর সম্ভাবনা খুবই কম বলে জানা গেছে। তবে সিনিয়র নেতাদের চাপ থাকায় ১৯ সদস্যের স্থায়ী কমিটির কলেবর বাড়তে পারে। ঘোষিত কমিটিতে যুব ও ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক পদ খালি রাখা হয়েছে।
জানা গেছে, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি ঘোষণার মধ্য দিয়ে এ দু’টি পদের সুরাহা হবে। যুবদলে সাইফুল আলম নীরব ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু সভাপতি ও সেক্রেটারি পদের জন্য বিবেচনায় রয়েছেন। অন্য দিকে স্বেচ্ছাসেবক দলে বিবেচনায় আছেন শফিউল বারী বাবু ও আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল। এ মাসের মধ্যেই এ দু’টি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গসংগঠনের কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে।
জানা গেছে, কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণার পর নেতাদের প্রতিক্রিয়া পর্যালোচনা করছে হাইকমান্ড। পদবঞ্চিতদের কাকে কোথায় পদায়ন করা যায়, সেই প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। নির্বাহী কমিটির ১৮০ জন সদস্যের মধ্যেও যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। সেখান থেকে বয়োবৃদ্ধ ও অসুস্থদের একটি তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তাদের বুঝিয়ে সম্মানজনকভাবে বিদায় দেয়া হতে পারে। যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি থেকে শুরু করে সিনিয়র সব নেতাকেই কমিটির বিভিন্ন স্থানে রাখার চিন্তা করা হচ্ছে। এ জন্য স্বেচ্ছাসেবক দল, যুবদল ও ছাত্রদলের সাবেক ও বর্তমান নেতাদের তালিকা সংগ্রহ করা হচ্ছে। এ ছাড়া জেলা ও মহানগর পর্যায়ে বিএনপি ও অন্য অঙ্গসংগঠনের যোগ্য নেতাদেরও পৃথক তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। এসব নেতা থেকে যারা নির্বাহী কমিটিতে যাওয়ার যোগ্য, তাদের সেখানে নেয়া হবে। যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলেও জায়গা হবে অনেক তরুণ নেতার। আবার মহানগর বিএনপিতেও রাখা হবে বঞ্চিত নেতাদের একটি অংশকে।
বিএনপির ষষ্ঠ কাউন্সিলে ‘এক ব্যক্তির এক পদ’ সিদ্ধান্ত গৃহীত হওয়ায় নতুন নির্বাহী কমিটিতে জায়গা পাওয়া অনেক নেতাকে বহুপদ থেকে একটি পদ বেছে নিতে হবে। বিএনপি প্রধান দ্রুত এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে কেন্দ্রে পদ পাওয়া জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পর্যায়ের নেতাদের যেকোনো একটি জায়গা বেছে নিতে হবে। এতে করে নতুন আরো বেশ কিছু নেতার জায়গা হবে কেন্দ্রীয় কমিটিতে।
এ প্রসঙ্গে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বিএনপির বিভিন্ন পদে আরো নেতার অন্তর্ভুক্তির সুযোগ আছে। বিশেষ মন্ত্রণালয়ভিত্তিক কমিটিতে প্রায় আড়াই শ’ নেতার স্থান হবে। এক নেতা এক পদে থেকে বাকিগুলো ছেড়ে দিতে হবে। সেখানেও বেশ কিছু পদ শূন্য হবে। কমিটির বাইরে যারা রয়েছেন, তাদের সংখ্যা খুব একটা বেশি নয়। হয়ত অনেকেই প্রত্যাশা অনুযায়ী পদ পাচ্ছেন না, কিন্তু বিএনপির কমিটিতে থাকতে পারছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com