1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৯:২৬ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

কোন্দলনহীন আওয়ামী লীগে কোন্দলের সৃষ্টি : মতিউর রহমানের দৃষ্টি কেন দিরাইয়ের দিকে

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১২ আগস্ট, ২০১৬

বিশেষ প্রতিনিধি ::
গত ফেব্রুয়ারি মাসে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে মনোনীত হয়ে আলহাজ্ব মতিউর রহমান প্রায় একদশক পর ভারমুক্ত হন। এরপরই তিনি নজর ফেরান নিজ উপজেলা দিরাইয়ের দিকে। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদে নিজের একাধিক প্রার্থীকে দলীয় মনোনয়ন দিয়ে আলোচনায় আসেন। তবে তাঁর মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সবাই বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন বলে জানা গেছে।
সম্প্রতি এই বয়োজ্যেষ্ঠ নেতা এই এলাকার সাত বারের সাংসদ জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অসুস্থতাজনিত কারণে জেলা শহরের চেয়ে নিজের এলাকার (সুনামগঞ্জ-২ নির্বাচনী এলাকা) দিকে মনোযোগ দিয়েছেন। হঠাৎ তিনি সেদিকে মনোযোগ দেওয়ায় দ্বন্দ্ব-কোন্দলহীন আওয়ামী লীগে এবার দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা। সম্প্রতি দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একটি সভায় যোগদান করলেও সভা করতে পারেননি। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসন সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করে। এর আগে আনুষ্ঠানিকভাবে বৈঠক করে উপজেলা আওয়ামী লীগ আলহাজ্ব মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে জামায়াত-বিএনপিকে নিয়ে বৈঠক করছেন বলেও অভিযোগ করে।
দিরাই-শাল্লার একাধিক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বয়োজ্যেষ্ঠ নেতা ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান দিরাই-শাল্লার দিকে রাজনীতিক দৃষ্টি ফেরান। ফলে কোন্দলবিহীন দিরাই-শাল্লায় হঠাৎ নীরব কোন্দলের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় একটি বলয় এলাকার দলীয় সাংসদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলয়ের বাইরে গিয়ে মতিউর রহমানের সঙ্গে ভিরে। এ কারণে এই দুই উপজেলায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ ও হতাশ হয়ে পড়েছেন।
জানা গেছে, গত ইউপি নির্বাচনের সময় সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অসুস্থতার সময় সুরঞ্জিতবিরোধী একটি গোষ্ঠী ওই এলাকার নির্বাচনের দিন গুজব রটায়। তবে মিথ্যে গুজব রটানোয় ক্ষোভের মুখে পড়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীরা। তারা নির্বাচনে ফলাফলের প্রভাব বিস্তারের লক্ষ্যে এটা করলেও শেষ পর্যন্ত সুরঞ্জিত বলয়ের নেতাকর্মীদের অধিকাংশই নির্বাচিত হন। এরপরে আলহাজ্ব মতিউর রহমানকে আড়ালে রেখে সুরঞ্জিত বলয় বিরোধী একটি গোষ্ঠী দাঁড়ানোর চেষ্টা করলেও তারা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সমর্থকদের সামনে টিকতে পারছেনা। ফলে দ্বন্দ্ব-কোন্দলের সৃষ্টি হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে একে অন্যের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিতেও দেখা যায়।
সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পাশ কাটিয়ে আলহাজ্ব মতিউর রহমানকে নিয়ে ধলবাজারে সমাবেশ করতে চান। এই খবর জানতে পেরে একই স্থানে পাল্টা সমাবেশের ডাক দেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সমর্থকরা। ফলে মতিউর রহমান আর সেখানে অনুষ্ঠান করতে পারেননি।
দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোশারফ মিয়া বলেন, আমাদের দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগে কোন কোন্দল নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধ। তবে শ্রদ্ধেয় মতিউর রহমান সাহেব কিছুদিন ধরে আমাদের কিছু না জানিয়ে দলীয় ব্যানারে সভা করতে চাচ্ছেন। আমাদের কোন্দলহীন দলে, তিনি কোন্দলের সৃষ্টি করতে চাচ্ছেন। তিনি জামায়াত-বিএনপিকে নিয়েও সভা করছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি। এটা তাঁর মতো শ্রদ্ধেয় নেতার পক্ষে উচিত নয়।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন ধরেননি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com