1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

‘তথ্য অধিকার আইন কার্যকরে বাধা সামন্ততান্ত্রিক আমলা কাঠামো’

  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
বিদ্যমান ‘সামন্ততান্ত্রিক আমলা কাঠামো’কে তথ্য অধিকার আইন কার্যকরের ক্ষেত্রে অন্যতম বড় বাধা হিসেবে মনে করেন সাবেক তথ্য কমিশনার সাদেকা হালিম।
মঙ্গলবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে এক সেমিনারে তিনি বলেন, “আইনের আওতায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে হয়তো শাস্তি ও জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায়, কিন্তু তার বস বা ঊর্ধ্বতন যারা থাকেন, তারাও অনেক সময় তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে অনাগ্রহী থাকেন, আবার অনেকে আইনটাও সেভাবে জানেন না।
“অনেক সময় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা চাইলেও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার কারণে কিছু করতে পারেন না। ফলে আমাদের বিদ্যমান সামন্ততান্ত্রিক আমলা কাঠামোও আইনটি কার্যকরে বাধা সৃষ্টি করছে।”
রিসার্চ ইনিশিয়েটিভ বাংলাদেশ (আরআইবি) আয়োজিত ‘গণগবেষণা ও তথ্য অধিকার আইনের সহায়তায় সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীতে দুঃস্থ জনগোষ্ঠীর অভিগম্যতা’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তব্য দেন ড. সাদেকা।
আইনি বাধ্যবাধকতা থাকলেও সরকার সব জায়গায় তথ্য কর্মকর্তা নিয়োগ দিচ্ছে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, “কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে সর্বাধিক সংখ্যক কর্মকর্তা আমরা পেয়েছি। এর মাধ্যমে প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষ ভূমি অধিকার ও কৃষি স¤পর্কে নানা ধরনের সুফল পাচ্ছে।”
অধিকার আদায় প্রশ্নে নারীদের পিছিয়ে থাকার কথা উল্লেখ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের এই শিক্ষক বলেন, বিশেষ করে প্রান্তিক পর্যায়ের নারীরা তথ্য অধিকার আইনের সুফল পাওয়ার ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে। এখন তাদের অনেকে বিভিন্ন এনজিওর মাধ্যমে এক্ষেত্রে এগিয়ে আসছেন।
আরআইবির চেয়ারম্যান শামসুল বারির সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক ড. মেঘনা গুহঠাকুরতা।
আরআইবির গণগবেষণা ও তথ্য অধিকার আইনের সমন্বয়ে দেশের পাঁচ জেলায় পরিচালিত কার্যক্রমের নানা দিক তুলে ধরেন তিনি।
অনুষ্ঠানে বক্তব্যে ‘নিজেরা করি’র নির্বাহী পরিচালক খুশি কবির প্রান্তিক মানুষদের স¤পৃক্তকরণের মাধ্যমে যে সুফল পাওয়া গেছে তা ধরে রাখতে পরবর্তী সময়ে সুবিধাভোগীদের নিয়ে সংগঠন তৈরির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
তিনি বলেন, “কর্মকর্তাগণ, সেটা সরকারি বা বেসরকারি উভয় ক্ষেত্রে হতে পারে, অনেক সময় তথ্য দিতে চান না। তথ্য দেওয়া যে তাদের কর্তব্য, তথ্য পাওয়া যে অধিকার সেটা তারা মানেন না। স্থানীয় সরকার থেকে শুরু প্রত্যেকটা পর্যায়ে এটা আছে।”
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, “মানুষের অধিকারের মূল জায়গাটা রাজনৈতিক। আমাদের সচেতনতার জায়গাটা ওইখানে যাওয়া উচিত।
বক্তব্যে রাজনৈতিক সচেতনতার উপর গুরুত্ব দেন আরআইবির ভাইস-চেয়ারপারসন হামিদা হোসেনও।
তিনি বলেন, “প্রান্তিক মানুষের অধিকার রাজনৈতিক ইস্যু। সংবিধানে নাগরিকদের অধিকার নিয়ে ভালো ভালো অনেক কথা লেখা আছে, কিন্তু সেগুলো বাস্তবায়ন যে হচ্ছে না তার জন্য নাগরিকদের সচেতন করা দরকার।”
প্রান্তিক মানুষের অংশগ্রহণে গণগবেষণার ওপর জোর দিতে তিনি আরও বলেন, এলাকার গণগবেষক যখন তার সম্প্রদায়ের মানুষের কাছে যাবেন, নিজেদের সমস্যা নিজেরা বের করবেন ও সমাধানের পথ বের করবেন; তখন রাষ্ট্র ও নাগরিকের সঙ্গে স¤পর্ক তৈরি করা সম্ভব হবে।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরআইবির পরিচালনা পরিষদের সদস্য অধ্যাপক আনিসুর রহমান, নেটজ বাংলাদেশের প্রোগ্রাম ম্যানেজার শারমিন ইসলাম বক্তব্য দেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com