1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৭:২৩ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

দোয়ারাবাজার ও বিশ্বম্ভরপুরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত : পাহাড়ি ঢলে ভেঙে গেছে বেড়িবাঁধ, রাস্তাঘাট

  • আপডেট সময় বুধবার, ২০ জুলাই, ২০১৬

দোয়ারাবাজার ও বিশ্বম্ভরপুর প্রতিনিধি ::
গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে দোয়ারাবাজার ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এ দুটির উপজেলার রাস্তাঘাটেরও ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। তাছাড়া পাহাড়ি ঢলে সদর উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
দোয়ারাবাজার প্রতিনিধি জানান, খাসিয়ামারা নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে অন্তত ১৫ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পাহাড়ি ঢলে তলিয়ে যাওয়ায় সুরমা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ এলাকার আমন বীজতলা ও চাষাবাদকৃত বর্ষাকালীন সবজি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
জানা গেছে, গত বছর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাবারড্যাম প্রকল্প ও খাসিয়ামারা নদীর বেড়িবাঁধ কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কার করা হয়েছিল। কিন্তু এবার পাহাড়ি ঢলের প্রথম ধাক্কাতেই ফের ভেঙে গিয়ে প্লাবিত হয়েছে বেশ কয়েকটি গ্রাম। উজানের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় মহ্ববতপুর-লিয়াকতগঞ্জবাজার, টিলাগাঁও-গিরিশনগর রাস্তা ও বেড়িবাঁধ এখন হুমকির মুখে রয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে স্থানীয় মহব্বতপুর বাজার প্লাবিত হয়ে হাঁটু সমান পানি দেখা গেছে। ফলে বাজারের অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ থাকতে দেখা গেছে।
মঙ্গলবার দুপুরে ক্ষতিগ্রস্ত রাবারড্যাম প্রকল্প ও বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেছেন এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ও উপজেলা প্রকৌশলী ফজলুর রহমান, সুরমা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান মাস্টার, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খন্দকার মামুনুর রশীদ।
জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের টিলাগাঁও রাবারড্যাম প্রকল্পের বেড়িবাঁধ ভেঙে গেলে প্লাবিত হয় দোয়ারা সদর, সুরমা, লক্ষ্মীপুর ও বোগলাবাজার ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম। দ্রুত পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তিন ইউনিয়নের যোগাযোগের প্রধানতম সড়কের শরীফপুর গ্রামের নিকটবর্তী প্রায় অর্ধ কিলোমিটার রাস্তা তলিয়ে গিয়ে উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এছাড়া বাংলাবাজার, নরসিংপুর ও সদর ইউনিয়নের দোয়ারা-বাংলাবাজার ব্রিটিশ সড়কটি আংশিক তলিয়ে গিয়ে উপজেলা সদরের সাথে সকাল থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। অন্যদিকে দোয়ারাবাজার-ছাতক লাফার্জ সড়কের একাধিক ব্রিজের কাজ শেষ না হওয়ায় উপজেলা সদরের সাথে বিভাগীয় শহর সিলেট ও ছাতক উপজেলার সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সুরমা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে কাঞ্চনপুর গ্রামের বেড়িবাঁধ ভেঙে গিয়ে কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হয়ে পড়েছে।
দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত রাবারড্যাম প্রকল্প ও বেড়িবাঁধ সরেজমিন পরিদর্শন করেছি। প্লাবিত এলাকার লোকজনের সাথে কথা হয়েছে কিভাবে আপদকালীন অবস্থা উত্তরণ করা যায়।
এদিকে পাহাড়ি ঢল ও বৃষ্টিতে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দুটি ইউনিয়নের ২৯ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শক্তিয়ারখলা সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে তাহিরপুর বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সড়ক যোগাযোগ। কয়েকদিনের বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পলাশ ইউপির পদ্মনগর ও প্যারীনগর এবং ফতেপুর ইউপির রায়পুর, বাহাদুরপুর, চান্দারগাঁওসহ প্রায় দুই ইউনিয়নের প্রায় ২৯টি গ্রাম এখন প্লাবিত। গতকাল মঙ্গলবার প্লাবিত কয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করেছেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তালুত।
ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন বলেন, আমি একাধিক গ্রাম ঘুরে প্লাবিত এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা তাদের সমস্যা কথা বলার পর আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি।
এদিকে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কিছু এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com