1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

শিক্ষার্থীরা প্রাথমিকেই দু’রকম পাঠ্যবই পড়বে!

  • আপডেট সময় বুধবার, ২৯ জুন, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
সরকারিভাবে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষা ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন পাঠ্যক্রম প্রণীত হয়নি। পূর্বের সিলেবাসেই নতুন বই ছাপা শুরু হয়ে গেছে। ফলে শিক্ষার্থীদের আগামী বছর প্রাথমিকেই দু’রকম বই অর্থাৎ পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্নপত্রের পাঠ্যবই এবং ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সৃজনশীল প্রশ্নপত্রের পাঠ্যবই পড়তে হবে। এনসিটিবি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো এমনিতেই সংকটাপন্ন। অধিকাংশ বিদ্যালয়ে আটটি শ্রেণিকক্ষ নেই, পর্যাপ্ত শিক্ষকও নেই। অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াতে ¯œাতক ডিগ্রীধারী ও বিএডধারী শিক্ষক লাগে সেটাও নেই। যোগ্য শিক্ষকের অভাবে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষায় মানসম্মত শিক্ষাদান সম্ভব নয়। তবু কীসের ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষার পরিধি বাড়ানো হলো তা জানেন না কেউই।
এনসিটিবির কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পূর্বের সিলেবাস অনুযায়ী ২০১৭ সালের বিনামূল্যের পাঠ্যবই ছাপার কাজ শুরু হয়ে গেছে। আগামী বছরের জন্য ৩৬ কোটির কিছু বেশি পাঠ্যবই ছাপানো হবে। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত রয়েছে ১১ কোটি ৫৬ লাখের কিছু বেশি পাঠ্যবই।
অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষার নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন না হওয়ায় ২০১৭ সালে প্রাথমিক শিক্ষায় দু’রকম পাঠ্যবই পড়বে শিক্ষার্থীরা। পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা পড়বে যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্নপত্রের পাঠ্যবই এবং ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা পড়বে সৃজনশীল প্রশ্নপত্রের পাঠ্যবই। অথচ দুটোই প্রাথমিক শিক্ষা।
এনসিটিবির গবেষণা কর্মকর্তা সৈয়দ মইনুল হাসান গণমাধ্যমকে জানান, ‘নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করতে হলে কমপক্ষে ৬০ মাস সময়ের প্রয়োজন। এই সময়ের মধ্যে শিক্ষাক্রম প্রণয়ন, পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন, শিক্ষক নির্দেশিকা, অন্যান্য শিখন এবং শেখানো সামগ্রী, মূল্যায়ন পদ্ধতি ও শিক্ষাক্রম বিস্তরণ প্রশিক্ষণ পাঠ-উপযোগী নির্দেশিকা প্রণয়ন করা হয়।’
তিনি আরও বলেন, ‘এতদিন ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার নজরদারি করত শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আর এখন করবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। কারিকুলাম প্রণয়ন করে প্রাথমিক শিক্ষার স্তর পরিবর্তন করলে এরকম পরিস্থিতির সৃষ্টি হত না।’
সূত্র জানায়, শিক্ষানীতি-২০১০ এ ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল। সেই হিসেবে অতিরিক্ত আরও এক বছর সময় থাকলেও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মো. মোস্তাফিজুর রহমানের প্রবল আগ্রহে শিক্ষাবর্ষের মাঝপথে এসে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষা বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
প্রস্তুতি ছাড়াই কেন এ ঘোষণা দেয়া হলো এ বিষয়ে জানতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন ধরেননি।
জানতে চাইলে এনসিটিবির চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র পাল জানান, ‘নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন না হওয়ায় একটু সমস্যা হবে বৈকি। তবে তার মতে, অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষার জন্য নতুন কারিকুলাম প্রণয়নে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবকে চেয়ারম্যান এবং এনসিটিবি চেয়ারম্যানকে কো-চেয়ারম্যান করে একটি পরামর্শক কমিটি গঠনের কাজ চলছে। এই কমিটি গঠনের পর বেশ কয়েকটি উপ-কমিটি গঠন হবে। এসব কমিটির মাধ্যমেই প্রাথমিক স্তরের জন্য নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন হবে।’ তবে কবে নাগাদ স¤পন্ন হবে তা তিনি সু¯পষ্ট করে বলতে পারেননি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com