1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে উন্নত বাস চালুর জনদাবি পূরণ হোক

  • আপডেট সময় শনিবার, ৪ জুন, ২০১৬

শুক্রবারের দৈনিক সুনামকণ্ঠ পত্রিকার একটি শিরোনাম ছিলÑ “সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে উন্নত বাস চালুর দাবি, এবার রাজপথে নামছেন জনপ্রতিনিধিরা”। সংবাদ বিবরণীতে বলা হয়েছেÑ সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে উন্নত বাস চালুর দাবি বাস্তবায়ন করতে এবার নাগরিক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে রাজপথে নামছেন উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ। এ দাবি বাস্তবায়নের আন্দোলনে রাজপথে সক্রিয় রয়েছে সুনামগঞ্জের সচেতন যুবসমাজ। …তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপ ও বাসমালিকদের উদ্যোগ কামনা করছেন।”
আন্দোলনের গতিপ্রকৃতি বলে দিচ্ছে, আন্দোলনের চাপটা প্রযুক্ত হচ্ছে বাসমালিকদের উপর, আশা করা হচ্ছে এই চাপে কাজ হবে, বাসমালিকরা উদ্ভূত সমস্যা নিরসনে উদ্যোগী হবেন, জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপের কল্যাণে। কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না উদ্ভূত সমস্যা আর মুনাফা প্রাপ্তি এখানে সমার্থক, সমস্যা নিরসন হলে মুনাফা মিলবে না।
বাসমালিকরা ব্যবসা করেন, তারা বাণিজ্যিক নীতি অনুসারে পুঁজি খাটিয়ে সর্বোচ্চ মুনাফা লাভেই একমাত্র আগ্রহী, আন্দোলনের চাপে মুনাফাবঞ্চনাকে বরণ করে নেবেন কি? যাত্রীসেবার মানোন্নয়ন করে তাঁরা লোকসান গুনতে চাইবেন না। ব্যবসায়ীরা রাষ্ট্রকর্তৃক নির্ধারিত নীতি অনুসারে ব্যবসা করেন। যে দেশে মদ নিষিদ্ধ, মদের ব্যবসাটাও। তাই বলে মদের ব্যবসাটা বন্ধ হয়ে যায়নি, চলছেই। তাছাড়া গাঁজা, ইয়াবা, হেরোইন বিক্রি হচ্ছে যত্রতত্র গোপনে। সুনামগঞ্জে মাদকবিরোধী আন্দোলন গড়ে তোলা হয়েছিল, কিন্তু মাদকব্যবসা প্রতিরোধ হয়ে যায়নি। আইনে অবৈধ ব্যবসা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। যাত্রীসেবা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে বাসমালিকরা নিজেদের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য রাষ্ট্র নির্ধারিত আইন অমান্য করেছেন কি-না সেটা প্রথমত দেখা দরকার। আন্দোলনটা হতে হবে বেআইনের বিরুদ্ধে আইনের লড়াই। আর নিয়মমতো আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মহান কর্মে ব্রতী হয়ে সাধারণ মানুষের পাশে থাকার কথা সরকার ও প্রশাসনের। ফিটনেসবিহীন যান চালানো, অতিরিক্ত ভাড়া, বাসে নিয়মবহির্ভূত বাড়তি আসনবিন্যাস, যত্রতত্র যাত্রী ও মালামাল উঠানো-নামানো এসব অবশ্যই শুধু নিয়মবহির্ভূতই নয়, বেআইনিও। এবংবিধ সমস্যার সমাধান করা উচিত প্রশাসনের। প্রশাসনকে রাষ্ট্রনির্ধারিত আইন প্রয়োগের ব্যর্থতার দায়ভার বহন করতে হবে, জবাবদিহি করতে হবে রাষ্ট্র বরাবরে জনগণের কাছে। রাষ্ট্রের প্রণীত আইন রাষ্ট্রের ভিতরে যারা মানছে না তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র কেন ব্যবস্থা নিচ্ছে না? জনগণ ও জনপ্রতিনিধিদের উচিত তাঁদের আন্দোলনকে রাষ্ট্রীয় আইনের প্রয়োগের সহায়ক ভূমিকা রাখার সহযোগী শক্তিতে পরিণত করা। এছাড়া প্রচলিত আইন প্রয়োগের বিষয়টিকেই সব কীছুর আগে নিশ্চিত করা চাই। আইন কেউ মানছে না, আইনের রক্ষকরা তা দেখেও না দেখার ভান করছেন বা সেটাকে বাড়তি আয় উপার্জনের মওকা করে তোলেছেন। সেটাকে আগে প্রতিরোধ করা চাই। জনপ্রতিনিধিরা যানবাহন বা গণপরিবহন চলাচলে সরকার নির্ধারিত বিধিগুলো যথাযথভাবে প্রয়োগের ও কার্যকর করার ব্যবস্থা করবেন-এই আশা করি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com