1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

‘স্মার্ট ফোন একটা টিপলে আর একটা আহে!’

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেছেন, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কাড এগুলো আমি বুঝতেই পারি না। এগুলো এখনো আমার কাছে ‘আন-নোয়িং’ (অপরিচিত)। নিজের মোবাইল ফোনটি প্যান্টের পকেট থেকে বের করে রাষ্ট্রপতি দেখান আমার মোবাইলটাও এনালগ। স্মার্টফোন না। স্মার্ট ফোন একটা টিপলে আর একটা আহে।’
সাংবাদিকদের প্রতি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের ভালোবাসা বেশ পুরনো। যখন তিনি জাতীয় সংসদের ¯িপকার ছিলেন তখন থেকেই সাংবাদিকদের হৃদ্ধতা ছাপ দেখা যায়। সেই ধারাবাহিকতায় বৃহ¯পতিবার বিকেল ৪টা ২০মিনিটে জাতীয় সংসদের ৬ষ্ঠ তলায় সংবাদিক লাউঞ্জে আসেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।
নিরাপত্তার ঘেরটেপ পেরিয়ে সাংবাদিকদের কাছে আসেন কিছু সময় অবস্থান করে খোঁজখবর নেন সবার। এসময় প্রায় ১০ মিনিট অবস্থান করে ৪টা ৪০ মিনিটে বেরিয়ে যান।
রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড আমি বুঝি না। আমি টেহাও জমা দেই চেকের মাধ্যমে। এসময় একজন সাংবাদিক বলেন, স্যার সরকার তো ডিজিটাল। একথা বলার পর রাষ্ট্রপতি বলেন, আমি তো বাবা ডিজিটাল না, এনালগ।’
রাষ্ট্রপতি কুশলাদি বিনিময় করার সময় একজন সাংবাদিক তাঁর জীবনী লেখার কথা জানতে চাইলে বলেন, ‘আমার আগে জিল্লু সাহেব শেষ করতে পারেন নাই, মারা গেছে। আমি শুরু করেছি, মরার আগে করতে পারব…।’
এ সময় তিনি স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে সাংবাদিকের কুশল জানতে চান। সাংবাদিকরাও রাষ্ট্রপতিকে কাছে পেয়ে তার শরীরের খোঁজ খবর নেন। এসময় রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আমি যখন এখান থেকে যাই, তখন ছিলাম ৬৮ কেজি, এখন ৬৯ কেজি। এই কয়েক বছরে এক কেজি বাড়ছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘এই এক কেজি বাড়ছে খোয়াড়ের (নিরাপত্তা বলায়ে থাকার কথা বুঝিয়েছেন) মধ্যে থাকি তো। খোয়াড়ের মধ্যে থাকলে ওজন বাড়ে।’
রাষ্ট্রপতি পার্লামেন্ট জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের খোঁজ খবর নেন। এসময় অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উত্তম চক্রবর্তী বলেন, ‘স্যার আমি এই মাসেই দায়িত্ব ছেড়ে দিচ্ছি।’ রাষ্ট্রপতি তার প্রতিউত্তরে বলেন, ‘বাই রোটেশন সবাইকে সুযোগ দেন। লাউঞ্জে সব সুযোগ সুবিধা আছে কি না জানতে চান।’
সংসদের অধিবেশনে এ নিয়ে ৫ম বারের মতো রাষ্ট্রপতি সাংবাদিকদের লাউঞ্জে এসে শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন। ¯িপকার থাকার সময়ও আবদুল হামিদ অ্যাডভোকেট প্রায়ই সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করতেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com