1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৯:১৫ অপরাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01867-379991, 01716-288845

হোটেল রেজিয়ায় অসামাজিক কার্যকলাপ : দুই নারীসহ চার জনকে সাজা

  • আপডেট সময় বুধবার, ১ জুন, ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার ::
এবার শহরের ব্যস্ততম এলাকা পুরাতন বাসস্টেশনের আবাসিক হোটেল রেজিয়ায় অভিযান চালিয়ে দুই নারীসহ ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সদর মডেল থানা পুলিশের একটি বিশেষ দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হোটেলটিতে অভিযান পরিচালনা করে। এসময় হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে হোটেল ম্যানেজার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের গাজীনগর গ্রামের মৃত ওয়ারিছ উল্লাহর ছেলে তালিমুল ইসলাম (৬৮), বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার উল্লাসনগর গ্রামের ফারুক মিয়ার স্ত্রী সাজেদা (৩৫), সদর উপজেলার লালপুর গ্রামের আব্দুল ছত্তারের স্ত্রী স্বপ্না বেগম (৩৫) এবং টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর থানাধীন কলামেঘা গ্রামের মৃত শরিফ মিয়ার ছেলে মো. রফিক মিয়া (৪৫)কে আটক করে পুলিশ।
সদর মডেল থানা পুলিশের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, হোটেল রেজিয়াতে অসামাজিক কার্যকলাপের খবর পেয়ে হোটেলটির কার্যক্রমের উপর নজর ছিল পুলিশের। গতকাল মঙ্গলবার সকালে গোপন সংবাদ পাওয়ামাত্র ওই হোটেলটিতে অভিযান চালায় সদর থানা পুলিশের একটি বিশেষ দল। এ দলে নেতৃত্ব দেন এসআই এমরান হোসেন, এসআই রিপন চন্দ্র গোপ, এসআই মাহবুব ও এসআই কয়েস। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা হোটেলটির ৮নম্বর ও ৩০ নম্বর কক্ষ থেকে ২ নারী সাজেদা ও স্বপ্নাসহ রকিব মিয়াকে আটক করেন। এসময় অসামাজিক কার্যকলাপে সহযোগিতা করায় হোটেলটির ম্যানেজার তালিমুল ইসলামকেও আটক করা হয়।
পরে বিকেলে তাদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে আদালতের বিচারক ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মামুন খন্দকার তাদের অপরাধ অনুযায়ী প্রচলিত আইনে স্বপ্না বেগমকে ১মাস, হোটেল ম্যানেজার তালিমুল ইসলামকে ১মাস ও সাজেদাকে ১৫দিন কারাদন্ড এবং মো. রফিক মিয়াকে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডের আদেশ দেন।
পুলিশের এ অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালতে আটকদের সাজা হওয়ার বিষয়টি মঙ্গলবার শহরে আলোচনার সৃষ্টি করে। বিশেষ করে হোটেল রেজিয়ার কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন ওঠে সাধারণ মানুষের মাঝে।
অভিযানের ব্যাপারে সদর মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী বলেন, ‘আমরা শহরের আবাসিক হোটেলগুলোর উপর আমাদের নজরদারি রেখেছি। হোটেল রেজিয়াও এ নজরদারির মধ্যে ছিল। হোটেলের কার্যক্রমের উপর আমরা বেশ কয়েকদিন ধরেই নজর রাখছিলাম। সর্বশেষ মঙ্গলবার আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হোটেলটিতে অভিযান চালিয়েছি। এ হোটেলটির ২টি কক্ষ থেকে আমরা অসামাজিক কাজে জড়িত থাকা ২ নারীসহ আরো একজনকে আটক করতে সক্ষম হই। এছাড়াও অসামাজিক কার্যকলাপে সহযোগিতা করায় হোটেলটির ম্যানেজারকেও আমরা আটক করি। পরে তাদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালত সাজা প্রদান করেছেন। আমরা এ ধরনের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করবো। বিশেষ করে আবাসিক হোটেলগুলোতে আমাদের বাড়তি নজরদারি রয়েছে।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com