শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন

Notice :

সেবা কার্যক্রম বিঘ্নিত : ১২৩টি কমিউনিটি ক্লিনিক বিদ্যুৎহীন

শামস শামীম ::
জেলার ১২৩টি কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় তৃণমূলের সেবাগ্রহিতা এবং সেবাদাতাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বিদ্যুৎ সংযোগের অভাবে জরুরি ভ্যাক্সিনসহ ইপিআই সামগ্রী কমিউনিটি ক্লিনিকে সংরক্ষণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়া সরকার প্রদত্ত সিএইচসিপিদের দেয়া ল্যাপটপও ব্যবহার করা যাচ্ছে না। প্রতিদিনের প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য সরকার সিএইচসিপিদের ল্যাপটপ প্রদান করলেও বিদ্যুতের কারণে তাঁরা নিয়মিত প্রতিবেদন পাঠাতে পারছে না। সম্প্রতি গ্রীষ্মের প্রচন্ড দাবদাহে বিদ্যুতের অভাবে সেবা কার্যক্রমও বিঘিœত হচ্ছে বলে জানা গেছে।
জানা গেছে, সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয় প্রায় ৮ মাস আগে পল্লী বিদ্যুৎকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার জন্য লিখিত আহ্বান জানায়। সংশ্লিষ্টরা জানান, এর মধ্যে একটি কমিউনিটি ক্লিনিকেও সংযোগ দেওয়া হয়নি। লিখিত দেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্টরা উন্নয়ন সমন্বয় সভায়ও একাধিকবার কমিউনিটি ক্লিনিকে সংযোগ প্রদানের আহ্বান জানিয়েছেন বলে জানা গেছে।
জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলায় ২১৮টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। তৃণমূল জনগণকে স্বাস্থ্যসেবা দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বর্তমান সরকার সারাদেশে কয়েক হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক চালুর পর তৃণমূলের স্বাস্থ্যসেবা বদলে গেছে। এখন ঘরে বসেই প্রতিদিন গ্রামীণ রোগীরা ওষুধসহ চিকিৎসাসেবা পাচ্ছেন। অনেক কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়মিত ডেলিভারিও হচ্ছে। মা ও শিশুদের বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করে প্রশংসা কুড়াচ্ছে কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মীরা। দিনদিন সেবাগ্রহিতাদের সংখ্যা বাড়লেও জরুরি বিদ্যুতের কারণে সেবা সম্প্রসারণ হচ্ছে না। প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রতিদিনের স্বাস্থ্যসেবার প্রতিবেদন নিয়মিত ইমেইলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে পাঠানোর নির্দেশনা থাকলেও বিদ্যুৎ সংযোগের কারণে লেপটপ ব্যবহারই করতে পারছেনা সিএইচসিপিরা। ফলে তাদের প্রতিদিনের কাজে ছন্দপতন ঘটছে বলে তারা জানান।
সূত্র জানায়, জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সিএসএসজে/২০১৫/১২০৮নং স্মারকে গত বছরের ২ অক্টোবর সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার বরাবর কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের জন্য আহ্বান জানায়। ওই পত্রে জেলার বিদ্যুৎহীন কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রদান করা হয়। ওই তালিকায় নির্দিষ্ট ছক দিয়ে কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে বিদ্যুৎ লাইনের দূরত্বসহ আনুষঙ্গিত তথ্য উল্লেখ করা হয়। তাছাড়া প্রতিটি উন্নয়ন সমন্বয়সভায় সিভিল সার্জন কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের জন্য নিয়মিত বলে আসছেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা বলে জানা গেছে। পল্লী বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্টরা জনগুরুত্বপূর্ণ কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগের বিষয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছেনা বলে স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ।
মাইজবাড়ি কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি মাহবুব আলম বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় লেপটপ চার্জ করা যায় না। যে কারণে নিয়মিত প্রতিবেদন পাঠাতে সমস্যা হয়। তাছাড়া বিদ্যুতের কারণে সেবাগ্রহিতা এবং সেবাদাতাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে তিনি জানান।
সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের জেনারেল ম্যানেজার সোহেল পারভেজ বলেন, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের লিখিত আবেদন পাবার পর আমরা কয়েকটিতে কমিউনিটি ক্লিনিকে সংযোগ দিয়েছি। বাকিগুলোতেও পর্যায়ক্রমে সংযোগ দেয়া হবে। নানা জটিলতার কারণে সংযোগে বিলম্ব হচ্ছে বলে তিনি জানান।
জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল হাকিম বলেন, নিয়মিত লিখিতভাবে আবেদন জানানোর পাশাপাশি আমি প্রতিটি মাসিক সমন্বয় সভায় এ বিষয়ে কথা বলি। সংশ্লিষ্টরা আমাকে নিয়মিত আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। বিদ্যুতের অভাবে লেপটপ চার্জ করতে পারছেনা সিএইচসিপিরা। তাছাড়া জরুরি ভ্যাকসিন এবং অনেক ইপিআই সামগ্রীও সংরক্ষণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী