শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

Notice :

রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র : ৫৪ ধারায় আসলাম সাত দিনের রিমান্ডে

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
বাংলাদেশের সরকার উৎখাতে ইসরায়েলের সঙ্গে ‘ষড়যন্ত্রে’ জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের হেফাজতে পেয়েছে পুলিশ।
সোমবার তাকে ঢাকার আদালতে হাজির করে ৫৪ ধারায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার দেখিয়ে দশ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে মহানগর হাকিম মো. সারাফুজ্জামান আনসারী সাত দিনের হেফাজত মঞ্জুর করেন। আগের দিন সন্ধ্যায় গ্রেপ্তার আসলামকে রাতে রাখা হয় ঢাকার মিন্টো রোডে, গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে।
গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক গোলাম রব্বানী সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন আদালত পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের সহকারি কমিশনার মিরাশ উদ্দিন।
গত ৫ মার্চ যুগান্তরে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের সূত্র ধরে রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, বিএনপি নেতা আসলাম সম্প্রতি ভারতে ‘ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের একজন সদস্যের সঙ্গে’ বৈঠক করেন। তিনি ‘সরকার উৎখাতে ইসরায়েলের সঙ্গে ষড়যন্ত্রে’ জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।
এর বিরোধিতা করে আসলামের পক্ষে শুনানি করেন সানাউল্লাহ মিয়া ও মাসুদ আহমেদ তালুকদার। আসলামের পক্ষে জামিনেরও আবেদন করেন তারা।
আইনজীবীরা দাবি করেন, আসলাম চিকিৎসার প্রয়োজনে পাঁচ দিনের জন্য দিল্লি গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি এক ‘দাওয়াত অনুষ্ঠানে’ যান। ইসরায়েলের কয়েকজনের সঙ্গে সেখানেই তার ‘দেখা’ হয়। সেই ছবিই গণমাধ্যমে এসেছে। আসলামের সঙ্গে কোনো বৈঠক তাদের হয়নি।
শুনানি শেষে বিচারক সারাফুজ্জামান আনসারী জামিন আবেদন নাকচ করে আসলামকে সাত দিনের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন।
আসলামের ব্যক্তিগত সহকারী আসাদুজ্জামান মিয়াকেও সাত দিনের রিমান্ডে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।
চট্টগ্রামের নেতা আসলাম মাস খানেক আগে বিএনপির নতুন কমিটিতে যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে মনোনীত করেন খালেদা জিয়া।
ইসরায়েলের ক্ষমতাসীন লিকুদ পার্টির সদস্য মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলামের একটি ছবি সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশের পর থেকে তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়।
বাংলাদেশের একটি পত্রিকায় কিছুদিন আগে আসলামের সঙ্গে ভারতে মেন্দি এন সাফাদির সেই সাক্ষাতের খবর ও ছবি প্রকাশিত হয়। দিল্লিতে ডেল-আভিভ শীর্ষক ওই সম্মেলন এবং মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের ফেসবুক পেইজেও দেখা যায় তাদের একাধিক ছবি।
লিকুদ পার্টির সদস্য মেন্দি এন সাফাদি ইসরায়েলের বর্তমান সরকারের উপমন্ত্রী এম কে আয়ুব কারার একজন সাবেক উপদেষ্টা। তিনি নিজের নামে মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস প্রতিষ্ঠানটি চালান।
আসলাম ইসরায়েলি রাজনীতিক মেন্দির সঙ্গে ভারতে সাক্ষাতের হওয়ার খবর অস্বীকার করেননি। তবে একাধিক পত্রিকা ও টেলিভিশনকে তিনি বলেছেন, তিনি তখন জানতেন না যে মেন্দি এন সাফাদি ইসরায়েলের লিকুদ পার্টির নেতা।
আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করছেন, শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করতে বিএনপি ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েল এবং দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে মিলে ‘ষড়যন্ত্র’ করছে।
তবে বিএনপি ইসরায়েল কিংবা মোসাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, আসলামের ওই সফর ছিল ‘ব্যক্তিগত’।
এ নিয়ে আলোচনার মধ্যেই রোববার দুপুরে এই বিএনপি নেতার বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, আসলামকে দেখামাত্র গ্রেপ্তার করা হবে।
এরপর রোববার সন্ধ্যায় ঢাকার খিলক্ষেতে ৩০০ ফুট রাস্তা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় আসলাম চৌধুরীকে। ওই সময় তার সঙ্গে থাকা ব্যক্তিগত সহকারী আসাদুজ্জামান মিয়া এবং গাড়ি চালককেও আটক করে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন সোমবার দুপুরে বলেন, “আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলা করার জন্য তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যথাযথ অনুমতি নিয়েই এ মামলা করা হবে।”
প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে চারদলীয় জোট ক্ষমতায় এলে জিয়া পরিষদের মাধ্যমে বিএনপির রাজনীতিতে আসেন সাবেক জামায়াত ও শিবির নেতা আসলাম চৌধুরী। ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে সীতাকুন্ড আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন। ২০১৪ সালের ২৬ এপ্রিল তিনি উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হন। এর আগে সাধারণ স¤পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। সম্প্রতি বিএনপির কেন্দ্রীয় সম্মেলন শেষে যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী