1. dailysunamkantha@gmail.com : admin2017 :
  2. editor@sunamkantha.com : Sunam Kantha : Sunam Kantha
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা ::
সুনামগঞ্জ জেলার জনপ্রিয় সর্বাধিক পঠিত পত্রিকা সুনামকন্ঠে আপনাকে স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন। আমাদের পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন - 01711-368602

‘ইসরায়েলের সঙ্গে ষড়যন্ত্র’: বিএনপি নেতা আসলাম গ্রেপ্তার

  • আপডেট সময় সোমবার, ১৬ মে, ২০১৬

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
বাংলাদেশের সরকার উৎখাতে ইসরায়েলের সঙ্গে ‘ষড়যন্ত্রে’ জড়িত বলে অভিযোগ উঠার পর বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরী গ্রেপ্তার হয়েছেন।
বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিবের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানানোর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে রোববার সন্ধ্যায় তাকে ঢাকায় গ্রেপ্তার করা হয়।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন সাংবাদিকদের এই খবরটি নিশ্চিত করেছেন।
গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম বলেন, “নারায়ণগঞ্জ যাওয়ার পথে ঢাকার খিলক্ষেত থেকে আসলাম চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”
আসলামের সঙ্গে গাড়িতে থাকা তার এক সহযোগী এবং চালককেও আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
চট্টগ্রামের নেতা আসলাম মাস খানেক আগে বিএনপির নতুন কমিটিতে যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে মনোনীত করেন খালেদা জিয়া।
ইসরায়েলের ক্ষমতাসীন লিকুদ পাটির সদস্য মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলামের একটি ছবি সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশের পর থেকে তা নিয়ে আলোচনা চলছিল।
সলাম ইসরায়েলি রাজনীতিক মেন্দির সঙ্গে ভারতে এক হওয়ার খবর অস্বীকার করেননি। তবে তিনি গণমাধ্যমে বলেছিলেন, ব্যবসায়িক কারণে বিভিন্ন জনের সঙ্গে তার দেখা হয়েছে, তবে কোনো বৈঠক হয়নি।
এনিয়ে গত কয়েক দিন ধরে আলোচনার মধ্যে চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার রোববার সকালে সাংবাদিকদের বলেন, আসলামের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। তাকে পেলেই গ্রেপ্তার করা হবে।
নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি তুলে ধরে দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালও দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “নজরদারিতে আছে (আসলাম), আরও তথ্য কালেকশন করে পরবর্তী অ্যাকশনে যাব।” এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে রাজধানী থেকেই বিএনপির এই নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
সম্প্রতি বাংলাদেশের একটি পত্রিকায় আসলামের সঙ্গে ভারতে মেন্দি এন সাফাদির সেই সাক্ষাতের খবর ও ছবি প্রকাশিত হয়। দিল্লিতে ডেল-আভিভ শীর্ষক ওই সম্মেলন এবং মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের ফেইসবুক পেইজেও দেখা যায় তাদের একাধিক ছবি।
লিকুদ পার্টির সদস্য মেন্দি এন সাফাদি ইসরায়েলের বর্তমান সরকারের উপমন্ত্রী এম কে আয়ুব কারার একজন সাবেক উপদেষ্টা। তিনি নিজের নামে মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস প্রতিষ্ঠানটি চালান।
বাঁয়ে লিকুদ পার্টির নেতা মেন্দি এন সাফাদি, মাঝে আসলাম চৌধুরী। ছবিটি গত ১০ মার্চ মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের ফেইসবুক পেইজে আপলোড করা হয়।
বাঁয়ে লিকুদ পার্টির নেতা মেন্দি এন সাফাদি, মাঝে আসলাম চৌধুরী। ছবিটি গত ১০ মার্চ মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের ফেইসবুক পেইজে আপলোড করা হয়।
আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করছেন, শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করতে বিএনপি ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েল এবং দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে মিলে ‘ষড়যন্ত্র’ করছে।
বিষয়টি জেনে ঢাকায় ফিলিস্তিনি শার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ইসরায়েলের সঙ্গে স¤পর্ক স্থাপন হবে ‘রাজনৈতিক আত্মহত্যা’।
তবে বিএনপি ইসরায়েল কিংবা মোসাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, আসলামের ওই সফর ছিল ‘ব্যক্তিগত’।
বাংলাদেশের সঙ্গে কূটনৈতিক স¤পর্কহীন একটি দেশের রাজনীতিকের সঙ্গে বিএনপি নেতার বৈঠকের বিষয়টি সরকার গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
তিনি বলেন, “আর কারা কারা এ বিষয়ে জড়িত, তাদের খুঁজে বের করছি। সেই তথ্যের ভিত্তিতে আমাদের গোয়েন্দারা কাজ করছে। যারা জড়িত থাকুক, সবাইকে খুঁজে বের করব। তারা কীভাবে জড়িত, কোন পর্যন্ত ক্ষতি করেছে, সব কিছু জানিয়ে দেব।”
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “মোসাদ বিভিন্ন কায়দায় আমাদের এখানে নানা ধরনের অপতৎপরতা চালানোর চেষ্টা করছে।
“যাদের নাম আসছে এখানে, তাদের গতিবিধির উপর আমরা নজরদারি করছি। তাদের সঙ্গে এখানে কারা কারা স¤পৃক্ত আছে সেইগুলো আমাদের গোয়েন্দারা দেখছে।”
বিএনপির বিষয়ে আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, “তারা যে দেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নিচ্ছে, তারই আরেকটা বহিঃপ্রকাশ এই যে মোসাদের সঙ্গে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিবের বৈঠক।”
প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে চারদলীয় জোট ক্ষমতায় এলে জিয়া পরিষদের মাধ্যমে বিএনপির রাজনীতিতে আসেন আসলাম চৌধুরী। ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে সীতাকুন্ড আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন। ২০১৪ সালের ২৬ এপ্রিল তিনি উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হন। এর আগে সাধারণ স¤পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। সম্প্রতি বিএনপির কেন্দ্রীয় সম্মেলন শেষে যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

© All rights reserved © 2016-2021
Theme Developed By ThemesBazar.Com