বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

Notice :

জগন্নাথপুরে ইউপি নির্বাচন : চ্যালেঞ্জের মুখে নৌকার প্রার্থীরা

বিশেষ প্রতিনিধি ::
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জগন্নাথপুরে বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারণে চ্যালেঞ্জের মুখে নৌকার প্রার্থীরা। বলয়ে বলয়ে বিভক্তির কারণে বলি হতে পারেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা। মনোনয়ন দাখিলের এক সপ্তাহ পার হলেও ৭টি ইউনিয়নের কোনটিতেই নৌকার পালে হাওয়া নেই। বরং সকল আলোচনা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে।
স্থানীয় জনসাধারণ, প্রার্থী ও দলীয় নেতাদের সূত্রে জানা যায়, আগামী ২৮ মে অনুষ্ঠিতব্য ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী হয়েছেন জনপ্রিয় ও দায়িত্বশীল নেতারা। এদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী ঠেকানোর কোনো উদ্যোগ নেই জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগের। অভিযোগ রয়েছে বিদ্রোহী প্রার্থীদের পক্ষে আড়ালে আবডালে কাজ করছেন উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা। বিভিন্ন বলয়ে বিভক্ত হয়ে নিজ নিজ বলয়ের প্রার্থীদের জেতাতে কাজ করছেন নেতা-কর্মীরা।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, কলকলিয়া ইউনিয়নে মনোনয়ন পেয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক দীপক রঞ্জন দে। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম।
পাটলি ইউনিয়নে নৌকা পেয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আঙ্গুর মিয়া। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল হক।
চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আরশ মিয়া। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি, সাবেক চেয়ারম্যান হারুন রশীদ।
রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক মেম্বার শহিদুল ইসলাম রানা। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান মজলুল হক। একই ইউনিয়নের অপর বিদ্রোহী প্রার্থী, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাফিজ।
সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবুল হাসান। বিদ্রোহী হয়েছেন প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা তৈয়ব কামালী। তিনি কোনো বলয়ের সঙ্গে সরাসরি স¤পৃক্ত না থাকলেও সকল বলয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন বলে জানা যায়।
আশারকান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা শাহ আবু ইমানী। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য, বর্তমান চেয়ারম্যান আয়ুব খাঁন। এ ইউনিয়নে অপর বিদ্রোহী প্রার্থী- সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ মদরিছ।
পাইলগাঁও ইউনিয়নে আ.লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আপ্তাব উদ্দিন। এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য, সাবেক চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলী আফজাল।
জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক স¤পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদীর আহমদ এ প্রসঙ্গে বলেন, বড় দল হিসেবে মনোনয়নের আগে পছন্দ-অপছন্দ থাকা স্বাভাবিক। এখন সবাই নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে। আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হলে সকল সংশয়ের অবসান হবে। সকল দায়িত্বশীল নেতা-কর্মীরা যাতে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে থাকেন সে লক্ষ্যে আমরা তৎপর রয়েছি।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আকমল হোসেন বলেন, সকল ইউনিয়নে আমরা কর্মীসভা করবো। প্রচারণায় অংশ নেবো। আমরা কোনো বলয়ে বিশ্বাসী নই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যাঁদেরকে নৌকা দিয়েছেন, আমরা তাঁদের বিজয় নিশ্চিত করবো।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থীদের মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য আমরা চেষ্টা করছি। উপজেলার নেতৃবৃন্দকে এ ব্যাপারে বলা হয়েছে। আশা করি সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে দ্বিধাদ্বন্দ্ব পরিহার করে কাজ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী